Dhaka ০৬:২৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কৃষকের ছদ্মবেশে সাজাপ্রাপ্ত আসামি পাকড়াও

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৬:১৯:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১
  • / ১২৭৭ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ কৃষকের ছদ্মবেশ ধারণ করে মাদক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত  আসামি জাহাঙ্গীর শেখকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মহেন্দ্রপুর পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা অভিযান চালিয়ে উপজেলার মদাপুর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামের একটি মাঠ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। সে একই গ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলে।

জানা যায়, ২০১৫ সালের ২০ আগস্ট তারিখে জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী সদর থানায় মাদক আইনে মামলা হয়। এই মামলায় ২০২০ সালের ৫ আগস্ট তারিখে রাজবাড়ীর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সুধাংশু শেখর রায় তাকে ছয় মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। তারপর থেকেই সে পলাতক ছিল।

মহেন্দ্রপুর পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই হিরণ কুমার বিশ^াস জানান, আদালতে রায়ের পর থেকেই  জাহাঙ্গীর পলাতক ছিল। সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়েও তাকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়েই সে পালিয়ে যায়। যেকারণে মাথায় গামছা বেঁধে, লুঙ্গি পড়ে, হাতে কাস্তে নিয়ে  কৃষকের ছদ্মবেশ ধারণ করে তাকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালাই।  এপর্যায়ে তাকে গ্রেপ্তার করা গেছে। জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে আরও চারটি মাদক মামলা রয়েছে। যেগুলো আদালতে বিচারাধীন। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানোর প্রক্রিয়া তচলছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

কৃষকের ছদ্মবেশে সাজাপ্রাপ্ত আসামি পাকড়াও

প্রকাশের সময় : ০৬:১৯:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১

জনতার আদালত অনলাইন ॥ কৃষকের ছদ্মবেশ ধারণ করে মাদক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত  আসামি জাহাঙ্গীর শেখকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মহেন্দ্রপুর পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা অভিযান চালিয়ে উপজেলার মদাপুর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামের একটি মাঠ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। সে একই গ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলে।

জানা যায়, ২০১৫ সালের ২০ আগস্ট তারিখে জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী সদর থানায় মাদক আইনে মামলা হয়। এই মামলায় ২০২০ সালের ৫ আগস্ট তারিখে রাজবাড়ীর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সুধাংশু শেখর রায় তাকে ছয় মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। তারপর থেকেই সে পলাতক ছিল।

মহেন্দ্রপুর পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই হিরণ কুমার বিশ^াস জানান, আদালতে রায়ের পর থেকেই  জাহাঙ্গীর পলাতক ছিল। সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়েও তাকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়েই সে পালিয়ে যায়। যেকারণে মাথায় গামছা বেঁধে, লুঙ্গি পড়ে, হাতে কাস্তে নিয়ে  কৃষকের ছদ্মবেশ ধারণ করে তাকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালাই।  এপর্যায়ে তাকে গ্রেপ্তার করা গেছে। জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে আরও চারটি মাদক মামলা রয়েছে। যেগুলো আদালতে বিচারাধীন। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানোর প্রক্রিয়া তচলছে।