Dhaka 4:46 pm, Friday, 3 February 2023

প্রেমে বাধা : মেয়ের হাতে মা খুন

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 07:20:40 pm, Saturday, 5 October 2019
  • / 1286 জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ প্রেমে বাধা দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে মা নাজনীন বেগম(৩৮)কে কুপিয়ে হত্যা করেছে তারই মেয়ে মোমেনা (১৫)। রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়নের আগমারাই গ্রামে শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নাজনীন বেগম একই গ্রামের আব্দুল মান্নান মৃধার স্ত্রী। পুলিশ ঘাতক মোমেনাকে আটক করেছে। সে রাজবাড়ী ইয়াছিন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী।
জানা গেছে, মোমেনার সাথে তার নিকটাত্মীয় যুবকের সাথে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। শুক্রবার মোমেনা তার এক বান্ধবীর বাড়ি গিয়ে ওই যুবকের সাথে দীর্ঘক্ষণ কথা বলে। সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরার পর তার মা এ বিষয়ে জানতে চাইলে দুজনের সাথে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে বটি দিয়ে তার মাকে কোপায়। পরে মোমেনা অন্য একটি ঘরে গিয়ে বসে থাকে। পরিবারের সদস্যরা গুরুতর আহতাবস্থায় নাজনীন বেগমকে প্রথমে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে পাঠানো হয় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। ফরিদপুর থেকে ঢাকায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
রাজবাড়ী সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আমিনুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় নিহতের স্বামী বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মেয়ে মোমেনাকে আটক করা হয়েছে। নিহতের লাশ রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

প্রেমে বাধা : মেয়ের হাতে মা খুন

প্রকাশের সময় : 07:20:40 pm, Saturday, 5 October 2019

জনতার আদালত অনলাইন ॥ প্রেমে বাধা দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে মা নাজনীন বেগম(৩৮)কে কুপিয়ে হত্যা করেছে তারই মেয়ে মোমেনা (১৫)। রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়নের আগমারাই গ্রামে শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নাজনীন বেগম একই গ্রামের আব্দুল মান্নান মৃধার স্ত্রী। পুলিশ ঘাতক মোমেনাকে আটক করেছে। সে রাজবাড়ী ইয়াছিন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী।
জানা গেছে, মোমেনার সাথে তার নিকটাত্মীয় যুবকের সাথে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। শুক্রবার মোমেনা তার এক বান্ধবীর বাড়ি গিয়ে ওই যুবকের সাথে দীর্ঘক্ষণ কথা বলে। সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরার পর তার মা এ বিষয়ে জানতে চাইলে দুজনের সাথে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে বটি দিয়ে তার মাকে কোপায়। পরে মোমেনা অন্য একটি ঘরে গিয়ে বসে থাকে। পরিবারের সদস্যরা গুরুতর আহতাবস্থায় নাজনীন বেগমকে প্রথমে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে পাঠানো হয় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। ফরিদপুর থেকে ঢাকায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
রাজবাড়ী সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আমিনুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় নিহতের স্বামী বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মেয়ে মোমেনাকে আটক করা হয়েছে। নিহতের লাশ রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।