Dhaka ০৯:৫৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পুলিশের পাতা ফাঁদে ধরা পড়লো ইয়াবা ব্যবসায়ী

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ১২:৩২:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০১৭
  • / ১৪১০ জন সংবাদটি পড়েছেন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ইয়াবার ক্রেতা পরিচয় দিয়ে ফোন করেছিলেন পুলিশের এক কর্মকর্তা। নির্ধারিত জায়গায় গেলে ইয়াবা নিয়ে হাজির সেই ব্যবসায়ী। অতপরঃ হাতেনাতে ধরা। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে রাজবাড়ী শহরে। গ্রেফতারকৃত ওই ইয়াবা ব্যবসায়ীর নাম সুমন মল্লিক। সে রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের গঙ্গাপ্রসাদপুর গ্রামের হাসেম মল্লিকের ছেলে। অরিয়ন গ্রুপ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের সিকিউরিটি গার্ড হিসেবে রাজবাড়ী শহরের প্রাণকেন্দ্র কলেজরোডে অবস্থিত সাউথ ইস্ট ব্যাংকের এটিএম বুথে সে কর্মরত ছিল।
রাজবাড়ী সদর থানার এসআই বদিয়ার রহমান জানান, সিকিউরিটি গার্ডের আড়ালে সুমন দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবার ব্যবসা করে আসছে। গোপন সূত্রে এ খবর পেয়ে তাকে ধরতে একটি ফাঁদ পাতা হয়েছিল। সেই ফাঁদে সে হাতেনাতে ধরা পড়েছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ইয়াবার ক্রেতা পরিচয় দিয়ে সুমনের কাছে ফোন করে ১০ পিচ ইয়াবা চাওয়া হয়। সে দিতে রাজী হওয়ার পর সাদা পোশাকের পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সুমন ইয়াবা নিয়ে আসে। পরে তার কাছ থেকে আরও ৪৫ পিচ ইয়াবা পাওয়া যায়। এব্যাপারে সুমন মল্লিকের বিরুদ্ধে মাদক আইনে রাজবাড়ী সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে।
থানা হাজতে থাকা সুমন মল্লিক অবশ্য সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেছে, সে এক মাস যাবৎ ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত। কখনও কখনও সে ইয়াবা খেত।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

পুলিশের পাতা ফাঁদে ধরা পড়লো ইয়াবা ব্যবসায়ী

প্রকাশের সময় : ১২:৩২:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০১৭

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ইয়াবার ক্রেতা পরিচয় দিয়ে ফোন করেছিলেন পুলিশের এক কর্মকর্তা। নির্ধারিত জায়গায় গেলে ইয়াবা নিয়ে হাজির সেই ব্যবসায়ী। অতপরঃ হাতেনাতে ধরা। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে রাজবাড়ী শহরে। গ্রেফতারকৃত ওই ইয়াবা ব্যবসায়ীর নাম সুমন মল্লিক। সে রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের গঙ্গাপ্রসাদপুর গ্রামের হাসেম মল্লিকের ছেলে। অরিয়ন গ্রুপ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের সিকিউরিটি গার্ড হিসেবে রাজবাড়ী শহরের প্রাণকেন্দ্র কলেজরোডে অবস্থিত সাউথ ইস্ট ব্যাংকের এটিএম বুথে সে কর্মরত ছিল।
রাজবাড়ী সদর থানার এসআই বদিয়ার রহমান জানান, সিকিউরিটি গার্ডের আড়ালে সুমন দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবার ব্যবসা করে আসছে। গোপন সূত্রে এ খবর পেয়ে তাকে ধরতে একটি ফাঁদ পাতা হয়েছিল। সেই ফাঁদে সে হাতেনাতে ধরা পড়েছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ইয়াবার ক্রেতা পরিচয় দিয়ে সুমনের কাছে ফোন করে ১০ পিচ ইয়াবা চাওয়া হয়। সে দিতে রাজী হওয়ার পর সাদা পোশাকের পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সুমন ইয়াবা নিয়ে আসে। পরে তার কাছ থেকে আরও ৪৫ পিচ ইয়াবা পাওয়া যায়। এব্যাপারে সুমন মল্লিকের বিরুদ্ধে মাদক আইনে রাজবাড়ী সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে।
থানা হাজতে থাকা সুমন মল্লিক অবশ্য সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেছে, সে এক মাস যাবৎ ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত। কখনও কখনও সে ইয়াবা খেত।