Dhaka ০৮:৩৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোয়ালন্দে এক ব্যক্তির গলাকাটা লাশ উদ্ধার

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:১২:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২০
  • / ১৩১৪ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে আলমাস খান (৪২) নামের এক ব্যক্তির বস্তাবন্দি গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের সাহাজদ্দিন মাতব্বর পাড়ার মৃত বাবু খানের ছেলে। আলমাস ৪ কন্যা সন্তানের জনক।

রবিবার দুপুরে ওই গ্রামের সাত্তার মোল্লার পরিত্যক্ত পুকুর পাড় হতে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আলমাস খানের স্ত্রী রাহেলা বেগমের অভিযোগের প্রেক্ষিতে একই গ্রামের সেকেন শেখের ছেলে সেলিম শেখ (৩০), মৃত রহিম খানের ছেলে আজিজুল খান (৪০) এবং আজিজুল খানের স্ত্রী মনোয়ারা বেগমকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন জানান, আলমাস দীর্ঘদিন ধরে বেকারীর বিস্কুট-পাউরুটির ব্যবসা করতেন। কিন্তু প্রায় ১ বছর ধরে সে কোন কাজ-কর্মই করতেন না। সম্ভবত সে একটি মাদক ব্যবসায়ী চক্রের সাথে জড়িয়ে গিয়েছিল। ব্যবসার পাশাপাশি সে নিয়মিত মাদক সেবনও করতো। মাদক ব্যবসা নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে শনিবার দিনগত রাতে তাকে খুন করা হয়ে থাকতে পারে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য চুন্নু মীর মালত জানান, রবিবার দুপুর ২টার দিকে সাত্তার মোল্লার পুকুর পাড়ে বস্তাবন্দি বড় একটা কিছু পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে যান। বস্তাটি রক্তাক্ত দেখে ভয়ে আর কেউ বস্তার মুখ খোলেনি। খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এসে থানা পুলিশকে খবর দেই। পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে এবং এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ জনকে থানায় নিয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, আলমাস খানকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এর বিশেষ কোন কারণ জানা না গেলেও সে মাদকাসক্ত ছিল বলে জানা গেছে। ঘটনার প্রকৃত কারণ উদঘাটনে পুলিশ কাজ শুরু করেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩জনকে আটক করা হয়েছে। রাজবাড়ীর সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শরিফুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

গোয়ালন্দে এক ব্যক্তির গলাকাটা লাশ উদ্ধার

প্রকাশের সময় : ০৭:১২:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে আলমাস খান (৪২) নামের এক ব্যক্তির বস্তাবন্দি গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের সাহাজদ্দিন মাতব্বর পাড়ার মৃত বাবু খানের ছেলে। আলমাস ৪ কন্যা সন্তানের জনক।

রবিবার দুপুরে ওই গ্রামের সাত্তার মোল্লার পরিত্যক্ত পুকুর পাড় হতে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আলমাস খানের স্ত্রী রাহেলা বেগমের অভিযোগের প্রেক্ষিতে একই গ্রামের সেকেন শেখের ছেলে সেলিম শেখ (৩০), মৃত রহিম খানের ছেলে আজিজুল খান (৪০) এবং আজিজুল খানের স্ত্রী মনোয়ারা বেগমকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন জানান, আলমাস দীর্ঘদিন ধরে বেকারীর বিস্কুট-পাউরুটির ব্যবসা করতেন। কিন্তু প্রায় ১ বছর ধরে সে কোন কাজ-কর্মই করতেন না। সম্ভবত সে একটি মাদক ব্যবসায়ী চক্রের সাথে জড়িয়ে গিয়েছিল। ব্যবসার পাশাপাশি সে নিয়মিত মাদক সেবনও করতো। মাদক ব্যবসা নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে শনিবার দিনগত রাতে তাকে খুন করা হয়ে থাকতে পারে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য চুন্নু মীর মালত জানান, রবিবার দুপুর ২টার দিকে সাত্তার মোল্লার পুকুর পাড়ে বস্তাবন্দি বড় একটা কিছু পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে যান। বস্তাটি রক্তাক্ত দেখে ভয়ে আর কেউ বস্তার মুখ খোলেনি। খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এসে থানা পুলিশকে খবর দেই। পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে এবং এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ জনকে থানায় নিয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, আলমাস খানকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এর বিশেষ কোন কারণ জানা না গেলেও সে মাদকাসক্ত ছিল বলে জানা গেছে। ঘটনার প্রকৃত কারণ উদঘাটনে পুলিশ কাজ শুরু করেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩জনকে আটক করা হয়েছে। রাজবাড়ীর সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শরিফুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।