Dhaka ০৮:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দৌলতদিয়া ঘাটের গাড়ি অপেক্ষমান গোয়ালন্দ মোড়ে

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:০৪:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ অগাস্ট ২০২০
  • / ১২৫১ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের রাজবাড়ী সদর উপজেলার গোয়ালন্দ মোড়ে দুই কিলোমিটার জুড়ে আটকে আছে কয়েকশ পণ্যবাহী ট্রাক। দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের দ্বারপথ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথ পারি দেয়ার অপেক্ষায় আছে তারা। এদের মধ্যে অনেকেই আছেন একদিন ধরে অপেক্ষা করছেন। দৌলতদিয়া ঘাটের জট  কমাতে ঘাটের ১০ কিলোমিটার দূরে এখানে গাড়িগুলোতে সারিবদ্ধ করে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে।

বুধবার দুপুর একটার দিকে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গোয়ালন্দ মোড় থেকে ফেলুর দোকান পর্যন্ত দুই কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এক সারিতে দাঁড়িয়ে আছে পণ্য্যবাহী ট্রাক। বেনাপোল থেকে ঢাকাগামী একটি ট্রাকে তুলা নিয়ে যাচ্ছেন আব্দুর রাজ্জাক।  তিনি কোম্পানীর স্কড বলে জানালেন। আব্দুর রাজ্জাক জানান, মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে গোয়ালন্দ মোড় আসার পর তাদের গাড়ি আটকে দেয়া  হয়। রাতে থাকার জায়গা না পেয়ে চালক, হেলপার ও তিনি  ট্রাকের মধ্যেই গাদাগাদি করে ঘুমিয়েছেন। দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পরও  ট্রাক ছাড়ছে না। এপর্যন্ত তাদের ছয় সাতশ টাকা খরচ হয়েছে। সময় মতো তুলা ডেলিভারি দিতে না পারলে কোম্পানীর ক্ষতি হবে।  এনিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় আছেন।

 অপ্র  একটি ট্রাকের চালক কাউসার আহমেদ জানান, তারা কাঁচ নিয়ে ঢাকা যাচ্ছেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত একটার দিকে গোয়ালন্দ মোড়ে আসার পর তাদের গাড়ি আটকে দেয়া  হয়। এখানে থাকা খাওয়ার খুব সমস্যা। গাড়ির মধ্যে বসে বসে সময় পার করছেন। কিছু করার নেই। ঘাটে থাকলে আন্দাজ করা যায় কতক্ষণ  পর  ফেরির  নাগাল পাওয়া যাবে। এখানে বসে সেটা বোঝার কোনো উপায় নেই।

 রাজবাড়ী সদর উপজেলার আহ্লাদিপুর হাইওয়ে থানার ওসি মো. লুৎফর রহমান জানান, দৌলতদিয়া ঘাটে যানজট সৃষ্টি হলে ফেরি পারাপারে সুবিধার্থে গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় অপচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক আটকে দেয়া হয়। বেশ কিছু দিন ধরেই এটা শুরু হয়েছে। ঘাটকেন্দ্রীক যে যানজট এটা আর হয়না।

দৌলতদিয়া বিআইডব্লিইটিসির  সহকারী ব্যবস্থাপক মো. মাহবুব হোসেন জানান, কাঁচামালবাহী  ট্রাক পারের সুবিধার্থে বিকেল থেকে অপচনশীল পণ্যবাহী ট্রাককে আটকে রাখা হয়। সমানতালে ট্রাক আসলে একই লাইনে পচনশীল ও অপচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক একই লাইনে পড়ে যায়। তখন  সমস্যা হয়। বর্তমানে দৌলতদিয়া ঘাটে তেমন যানজট নেই। কিছু গাড়ি আছে নদী পারের অপেক্ষায়।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

দৌলতদিয়া ঘাটের গাড়ি অপেক্ষমান গোয়ালন্দ মোড়ে

প্রকাশের সময় : ০৭:০৪:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ অগাস্ট ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের রাজবাড়ী সদর উপজেলার গোয়ালন্দ মোড়ে দুই কিলোমিটার জুড়ে আটকে আছে কয়েকশ পণ্যবাহী ট্রাক। দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের দ্বারপথ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথ পারি দেয়ার অপেক্ষায় আছে তারা। এদের মধ্যে অনেকেই আছেন একদিন ধরে অপেক্ষা করছেন। দৌলতদিয়া ঘাটের জট  কমাতে ঘাটের ১০ কিলোমিটার দূরে এখানে গাড়িগুলোতে সারিবদ্ধ করে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে।

বুধবার দুপুর একটার দিকে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গোয়ালন্দ মোড় থেকে ফেলুর দোকান পর্যন্ত দুই কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এক সারিতে দাঁড়িয়ে আছে পণ্য্যবাহী ট্রাক। বেনাপোল থেকে ঢাকাগামী একটি ট্রাকে তুলা নিয়ে যাচ্ছেন আব্দুর রাজ্জাক।  তিনি কোম্পানীর স্কড বলে জানালেন। আব্দুর রাজ্জাক জানান, মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে গোয়ালন্দ মোড় আসার পর তাদের গাড়ি আটকে দেয়া  হয়। রাতে থাকার জায়গা না পেয়ে চালক, হেলপার ও তিনি  ট্রাকের মধ্যেই গাদাগাদি করে ঘুমিয়েছেন। দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পরও  ট্রাক ছাড়ছে না। এপর্যন্ত তাদের ছয় সাতশ টাকা খরচ হয়েছে। সময় মতো তুলা ডেলিভারি দিতে না পারলে কোম্পানীর ক্ষতি হবে।  এনিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় আছেন।

 অপ্র  একটি ট্রাকের চালক কাউসার আহমেদ জানান, তারা কাঁচ নিয়ে ঢাকা যাচ্ছেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত একটার দিকে গোয়ালন্দ মোড়ে আসার পর তাদের গাড়ি আটকে দেয়া  হয়। এখানে থাকা খাওয়ার খুব সমস্যা। গাড়ির মধ্যে বসে বসে সময় পার করছেন। কিছু করার নেই। ঘাটে থাকলে আন্দাজ করা যায় কতক্ষণ  পর  ফেরির  নাগাল পাওয়া যাবে। এখানে বসে সেটা বোঝার কোনো উপায় নেই।

 রাজবাড়ী সদর উপজেলার আহ্লাদিপুর হাইওয়ে থানার ওসি মো. লুৎফর রহমান জানান, দৌলতদিয়া ঘাটে যানজট সৃষ্টি হলে ফেরি পারাপারে সুবিধার্থে গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় অপচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক আটকে দেয়া হয়। বেশ কিছু দিন ধরেই এটা শুরু হয়েছে। ঘাটকেন্দ্রীক যে যানজট এটা আর হয়না।

দৌলতদিয়া বিআইডব্লিইটিসির  সহকারী ব্যবস্থাপক মো. মাহবুব হোসেন জানান, কাঁচামালবাহী  ট্রাক পারের সুবিধার্থে বিকেল থেকে অপচনশীল পণ্যবাহী ট্রাককে আটকে রাখা হয়। সমানতালে ট্রাক আসলে একই লাইনে পচনশীল ও অপচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক একই লাইনে পড়ে যায়। তখন  সমস্যা হয়। বর্তমানে দৌলতদিয়া ঘাটে তেমন যানজট নেই। কিছু গাড়ি আছে নদী পারের অপেক্ষায়।