Dhaka ০৭:২৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কোথায় যাবেন অশীতিপর এই বৃদ্ধা ?

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:৩৩:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৯
  • / ১৫১৬ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত দুদিন যাবৎ ভর্তি রয়েছেন অশীতিপর এক বৃদ্ধা। কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধার পরিচয় জানার চেষ্টা করেও কোনো লাভ হয়নি। কোথা থেকে কীভাবে বালিয়াকান্দিতে এসেছেন তার কিছুই জানা যায়নি। কে নেবেন এই বৃদ্ধার দায়িত্ব। কোথায় যাবেন তিনি? সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হয়ে উঠেছে এটাই।
বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. ফারুক হোসেন জানান, গত সোমবার বালিয়াকান্দি থানার পুলিশ ওই বৃদ্ধাকে বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে যায়। বৃদ্ধার পরিচয় পাওয়া জানার অনেক চেষ্টা করেও কোনো লাভ হয়নি। সে কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন। কথা বলেন আস্তে আস্তে। কিন্তু কোনো কথারই উত্তর দেন না। তার এক পায়ে কিছু সমস্যা আছে। শারীরিক দুর্বলতা আর বার্ধক্যজনিত অসুখে ভুগছেন তিনি। মঙ্গলবার সকালে বেশ কয়েকবার ওই বৃদ্ধা হাসপাতাল থেকে চলে যাবার চেষ্টা করেছেন। তাকে জোর করে আটকে রাখা হয়েছে।
বালিয়াকান্দি থানার ওসি একেএম আজমল হুদা জানান, সোমবার দীপঙ্কর নামে এক ব্যক্তি ৩৩৩ নাম্বারে কল দিয়ে বিষয়টি জানানোর পর উপজেলার বহরপুর রেল স্টেশন থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বিষয়টি নিয়ে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। বৃদ্ধার দায়িত্ব কেউ নিতে চাইছে না। এজন্য তাকে ফরিদপুর বৃদ্ধাশ্রমে পাঠানোর চেষ্টা চলছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

কোথায় যাবেন অশীতিপর এই বৃদ্ধা ?

প্রকাশের সময় : ০৭:৩৩:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৯

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত দুদিন যাবৎ ভর্তি রয়েছেন অশীতিপর এক বৃদ্ধা। কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধার পরিচয় জানার চেষ্টা করেও কোনো লাভ হয়নি। কোথা থেকে কীভাবে বালিয়াকান্দিতে এসেছেন তার কিছুই জানা যায়নি। কে নেবেন এই বৃদ্ধার দায়িত্ব। কোথায় যাবেন তিনি? সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হয়ে উঠেছে এটাই।
বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. ফারুক হোসেন জানান, গত সোমবার বালিয়াকান্দি থানার পুলিশ ওই বৃদ্ধাকে বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে যায়। বৃদ্ধার পরিচয় পাওয়া জানার অনেক চেষ্টা করেও কোনো লাভ হয়নি। সে কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন। কথা বলেন আস্তে আস্তে। কিন্তু কোনো কথারই উত্তর দেন না। তার এক পায়ে কিছু সমস্যা আছে। শারীরিক দুর্বলতা আর বার্ধক্যজনিত অসুখে ভুগছেন তিনি। মঙ্গলবার সকালে বেশ কয়েকবার ওই বৃদ্ধা হাসপাতাল থেকে চলে যাবার চেষ্টা করেছেন। তাকে জোর করে আটকে রাখা হয়েছে।
বালিয়াকান্দি থানার ওসি একেএম আজমল হুদা জানান, সোমবার দীপঙ্কর নামে এক ব্যক্তি ৩৩৩ নাম্বারে কল দিয়ে বিষয়টি জানানোর পর উপজেলার বহরপুর রেল স্টেশন থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বিষয়টি নিয়ে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। বৃদ্ধার দায়িত্ব কেউ নিতে চাইছে না। এজন্য তাকে ফরিদপুর বৃদ্ধাশ্রমে পাঠানোর চেষ্টা চলছে।