Dhaka 4:58 pm, Wednesday, 8 February 2023

গোয়ালন্দে ডেন্টাল টেকনোলজিষ্ট স্ত্রীসহ অগ্নিদগ্ধ

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 09:28:30 pm, Tuesday, 14 April 2020
  • / 1380 জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক কোয়ার্টারে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডে ডেন্টাল টেকনোলজিষ্ট প্রদ্বীপ কুমার মজুমদার (৪০) ও তার স্ত্রী রূপা শিকদার (৩৫) অগ্নিদগ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন। সোমবার বিকেলে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, ১৫ বছর ধরে প্রদ্বীপ মজুমদার গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডেন্টাল ইউনিটের টেকনোলজিষ্ট হিসেবে দায়িত্বরত আছেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি বিভিন্ন ধরনের মাদক সেবন করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তার এই মাদক সেবন নিয়ে তাদের দাম্পত্য কলোহের বিষয়টি স্থানীয় অনেকেরই জানা। হাসপাতাল সংশ্লিষ্ট অনেকেই জানান, পারিবারিক কলোহের জের ধরে প্রদ্বীপ মজুমদারের স্ত্রী রূপা শিকদার অত্মহত্যার জন্য নিজের শরীরে অগ্নিসংযোগ করে। বিষয়টি স্বামী প্রদ্বীপ মজুমদার টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে তিনিও অগ্নিদগ্ধ হন। তবে প্রদ্বীপ মজুমদার গুরুতর অগ্নিদগ্ধ না হলেও তার স্ত্রী’র শরীরের প্রায় ৩০ শতাংশ পুড়ে গুরুতর আহত হয়েছেন। এ ঘটনার পর গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর তাদেরকে ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
এ বিষয়ে প্রদ্বীপ মজুমদার জানান, তার স্ত্রী রান্না করার সময় হঠাৎ গ্যাসের চুলায় আগুন ধরে গেলে তার শরীরে আগুন লেগে যায়। এ সময় তিনি পাশের কক্ষ থেকে দৌড়ে তাকে উদ্ধার করতে গেলে তিনিও অগ্নিদগ্ধ হন। প্রদ্বীপের স্ত্রীর অবস্থা খারাপ থাকায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।
এদিকে সরেজমিন ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, প্রদ্বীপ মজুমদার চুলার আগুনে অগ্নিকান্ডের ঘটানা দাবী করলেও এরকম কোন লক্ষন নেই। এছাড়া গ্যাস সিলিন্ডারের আগুনের কথা বলা হলেও তার স্ত্রীর সারা শরীরে কেরোসিনের গন্ধ ছিল।
গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসিফ মাহমুদ জানান, পূর্বে প্রদ্বীপ মজুমদার মাদক সেবন করলেও তার জানামতে বর্তমানে তিনি নিজেকে সংশোধন করেছিলেন। তবে শুনেছি নানা কারণে তার দাম্পত্য কলোহ ছিল। ঘটনার পর থানা পুলিশকে অবগত করেছেন। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করলেই সঠিক ঘটনা জানা যাবে।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আশিকুর রহমান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গুরুতর অগ্নিদগ্ধ গৃহবধু জানিয়েছে দুর্ঘটনা বশত তারা অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন। তাদের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলে বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনা সম্পর্কে আরো পরিষ্কার হওয়া যাবে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

গোয়ালন্দে ডেন্টাল টেকনোলজিষ্ট স্ত্রীসহ অগ্নিদগ্ধ

প্রকাশের সময় : 09:28:30 pm, Tuesday, 14 April 2020

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক কোয়ার্টারে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডে ডেন্টাল টেকনোলজিষ্ট প্রদ্বীপ কুমার মজুমদার (৪০) ও তার স্ত্রী রূপা শিকদার (৩৫) অগ্নিদগ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন। সোমবার বিকেলে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, ১৫ বছর ধরে প্রদ্বীপ মজুমদার গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডেন্টাল ইউনিটের টেকনোলজিষ্ট হিসেবে দায়িত্বরত আছেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি বিভিন্ন ধরনের মাদক সেবন করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তার এই মাদক সেবন নিয়ে তাদের দাম্পত্য কলোহের বিষয়টি স্থানীয় অনেকেরই জানা। হাসপাতাল সংশ্লিষ্ট অনেকেই জানান, পারিবারিক কলোহের জের ধরে প্রদ্বীপ মজুমদারের স্ত্রী রূপা শিকদার অত্মহত্যার জন্য নিজের শরীরে অগ্নিসংযোগ করে। বিষয়টি স্বামী প্রদ্বীপ মজুমদার টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে তিনিও অগ্নিদগ্ধ হন। তবে প্রদ্বীপ মজুমদার গুরুতর অগ্নিদগ্ধ না হলেও তার স্ত্রী’র শরীরের প্রায় ৩০ শতাংশ পুড়ে গুরুতর আহত হয়েছেন। এ ঘটনার পর গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর তাদেরকে ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
এ বিষয়ে প্রদ্বীপ মজুমদার জানান, তার স্ত্রী রান্না করার সময় হঠাৎ গ্যাসের চুলায় আগুন ধরে গেলে তার শরীরে আগুন লেগে যায়। এ সময় তিনি পাশের কক্ষ থেকে দৌড়ে তাকে উদ্ধার করতে গেলে তিনিও অগ্নিদগ্ধ হন। প্রদ্বীপের স্ত্রীর অবস্থা খারাপ থাকায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।
এদিকে সরেজমিন ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, প্রদ্বীপ মজুমদার চুলার আগুনে অগ্নিকান্ডের ঘটানা দাবী করলেও এরকম কোন লক্ষন নেই। এছাড়া গ্যাস সিলিন্ডারের আগুনের কথা বলা হলেও তার স্ত্রীর সারা শরীরে কেরোসিনের গন্ধ ছিল।
গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসিফ মাহমুদ জানান, পূর্বে প্রদ্বীপ মজুমদার মাদক সেবন করলেও তার জানামতে বর্তমানে তিনি নিজেকে সংশোধন করেছিলেন। তবে শুনেছি নানা কারণে তার দাম্পত্য কলোহ ছিল। ঘটনার পর থানা পুলিশকে অবগত করেছেন। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করলেই সঠিক ঘটনা জানা যাবে।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আশিকুর রহমান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গুরুতর অগ্নিদগ্ধ গৃহবধু জানিয়েছে দুর্ঘটনা বশত তারা অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন। তাদের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলে বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনা সম্পর্কে আরো পরিষ্কার হওয়া যাবে।