Dhaka ০৫:১৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

গোয়ালন্দে এমপির ব্যানার ফেস্টুন ছিড়েছে কোন্ দুর্বৃত্ত? পাল্টাপাল্টি সাংবাদ সম্মেলন, বিক্ষোভ

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৬:৪১:৪৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০
  • / ১৩৬১ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ গোয়ালন্দে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি সম্বলিত স্থানীয় সংসদ সদস্যের পক্ষে স্থাপিত ব্যানার-ফেষ্টুন, ছেঁড়া ও ভাংচুরের প্রতিবাদ ও দোষীদের শাস্তির দাবীতে পাল্টপাল্টি সাংবাদ সম্মেলন করেছে গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগ ও যুবলীগসহ অন্যান্য সহযোগি সংগঠন। এ  ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে স্থানীয় আওয়ামীলীগের রাজনীতি।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় গোয়ালন্দ বাজারস্থ শহীদ মিনার চত্ত্বরে সাংবাদ সম্মেলন করে গোয়ালন্দ উপজেলা যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠন। এর আগে তারা গোয়ালন্দ বাজারের প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল করে। উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. ইউনুছ মোল্লার সভাপতিত্বে সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান চৌধূরী। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ¦ কাজী কেরামত আলীর পক্ষে যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সহ সংগঠনের নেতাকর্মীরা ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দ এলাকায় অন্তত ৩শতাধিক ব্যানার ও ফেষ্টুন টাঙ্গায়। এতে কাজী কেরামত আলীর ছবি ছাড়াও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সংযুক্ত ছিল। রাতে অজ্ঞাত দুষ্কৃতিকারীরা ওই ব্যানার ও ফেষ্টুনগুলো ভাংচুর ও কেটে ছিড়ে ফেলে। এ ঘটনায় বুধবার গোয়ালন্দ ঘাট থানায় অজ্ঞাত ১৫/২০জনকে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা ন্যাক্কার জনক এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী করছি।

অপর দিকে বেলা ১২টায় গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের ব্যানারে এ ঘটনায় অপপ্রচারের প্রতিবাদে পৃথক সাংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরুজ্জামান মিয়ার সভাপতিত্বে সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) বিপ্লব কুমার ঘোষ। এ সম্মেলনের বিষয়ে নুরুজ্জামান মিয়া জানান, এ ঘটনায় আমরা উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সকল সহযোগি সংগঠন যৌথ ভাবে সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করি। কিন্তু যুবলীগ- স্বেচ্ছাসেবক লীগের একাংশ পৃথক ভাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে। তিনি আরো জানান, ব্যানার-ফেষ্টুন ভাঙ্গার ঘটনায় রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী ও গোয়ালন্দ পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) মো. নজরুল ইসলামকে দায়ী করে একটি মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছে।  আমরা এ অপপ্রচারের নিন্দা জানাই।

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, ফেস্টুন ভাংচুরের ঘটনায় অজ্ঞাত আসামীদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয়েছে। অপরাধীদের চি‎িহ্নত করে আইনের আওতায় আনার চেষ্টা অব্যাহত আছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

গোয়ালন্দে এমপির ব্যানার ফেস্টুন ছিড়েছে কোন্ দুর্বৃত্ত? পাল্টাপাল্টি সাংবাদ সম্মেলন, বিক্ষোভ

প্রকাশের সময় : ০৬:৪১:৪৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ গোয়ালন্দে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি সম্বলিত স্থানীয় সংসদ সদস্যের পক্ষে স্থাপিত ব্যানার-ফেষ্টুন, ছেঁড়া ও ভাংচুরের প্রতিবাদ ও দোষীদের শাস্তির দাবীতে পাল্টপাল্টি সাংবাদ সম্মেলন করেছে গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগ ও যুবলীগসহ অন্যান্য সহযোগি সংগঠন। এ  ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে স্থানীয় আওয়ামীলীগের রাজনীতি।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় গোয়ালন্দ বাজারস্থ শহীদ মিনার চত্ত্বরে সাংবাদ সম্মেলন করে গোয়ালন্দ উপজেলা যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠন। এর আগে তারা গোয়ালন্দ বাজারের প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল করে। উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. ইউনুছ মোল্লার সভাপতিত্বে সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান চৌধূরী। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ¦ কাজী কেরামত আলীর পক্ষে যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সহ সংগঠনের নেতাকর্মীরা ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দ এলাকায় অন্তত ৩শতাধিক ব্যানার ও ফেষ্টুন টাঙ্গায়। এতে কাজী কেরামত আলীর ছবি ছাড়াও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সংযুক্ত ছিল। রাতে অজ্ঞাত দুষ্কৃতিকারীরা ওই ব্যানার ও ফেষ্টুনগুলো ভাংচুর ও কেটে ছিড়ে ফেলে। এ ঘটনায় বুধবার গোয়ালন্দ ঘাট থানায় অজ্ঞাত ১৫/২০জনকে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা ন্যাক্কার জনক এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী করছি।

অপর দিকে বেলা ১২টায় গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের ব্যানারে এ ঘটনায় অপপ্রচারের প্রতিবাদে পৃথক সাংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরুজ্জামান মিয়ার সভাপতিত্বে সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) বিপ্লব কুমার ঘোষ। এ সম্মেলনের বিষয়ে নুরুজ্জামান মিয়া জানান, এ ঘটনায় আমরা উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সকল সহযোগি সংগঠন যৌথ ভাবে সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করি। কিন্তু যুবলীগ- স্বেচ্ছাসেবক লীগের একাংশ পৃথক ভাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে। তিনি আরো জানান, ব্যানার-ফেষ্টুন ভাঙ্গার ঘটনায় রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী ও গোয়ালন্দ পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) মো. নজরুল ইসলামকে দায়ী করে একটি মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছে।  আমরা এ অপপ্রচারের নিন্দা জানাই।

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, ফেস্টুন ভাংচুরের ঘটনায় অজ্ঞাত আসামীদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয়েছে। অপরাধীদের চি‎িহ্নত করে আইনের আওতায় আনার চেষ্টা অব্যাহত আছে।