Dhaka 4:20 pm, Friday, 3 February 2023

ঘন কুয়াশায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ব্যাহত ফেরি চলাচল ॥ নদী পাড়ের অপেক্ষায় কয়েকশ যান

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 07:55:37 pm, Saturday, 4 January 2020
  • / 1346 জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ তীব্র ঘন কুয়াশায় দেশের ব্যস্ততম দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে শনিবার দুই দফায় সাড়ে ৩ ঘন্টা ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। এতেকরে শনিবার সারাদিনই দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় নদী পাড়ের অপেক্ষায় মহাসড়কে যানবাহনে দীর্ঘ সারি ছিল।
বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট সূত্র জানায়, শুক্রবার দিনগত মধ্যরাত থেকে পদ্মা নদী এলাকায় কুয়শা পড়তে শুরু করে। শনিবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট ঘন কুয়াশার চাদরে ঢেকে গেলে দূর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। সকাল ৭টার দিকে কুয়াশার তীব্রতা কিছুটা কমে এলে সাবধানতার সাথে ফের ফেরি চলাচল শুরু হয়। আবারো সকাল ৮টার দিকে ঘন কুয়াশায় নৌরুটের মার্কিং বাতি অস্পষ্ট হয়ে যায়। এতেকরে পুনরায় রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে সকাল ৯টার দিকে কুয়াশা কমে এলে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হতে থাকে। দু’দফা ফেরি বন্ধ থাকায় ঘাট এলাকায় নদী পাড়ের অপেক্ষায় আটকে পড়ে শত শত বিভিন্ন যানবাহন। কনকনে শীতের মধ্যে আটকে থাকা যানবাহনের যাত্রী ও পরিবহন সংশ্লিষ্টরা চরম দূর্ভোগ পোহান।
শনিবার বিকেলে সরেজমিন দৌলতদিয়া ঘাট ঘুরে দেখা যায়, ফেরি ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে মহাসড়কের দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত অন্তত ৩ কিলোমটিার জুড়ে যানবাহনের দীর্ঘ সারি। এছাড়া দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ১২ কিলোমিটার দুরে গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় সিরিয়ালে আটকে রাখা হয়েছে শতাধিক পন্যবাহি ট্রাক।
বিআইডব্লিউটিসি’র দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক আবু আব্দুল্লাহ রনি জানান, ঘন কুয়াশায় ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় ঘাট এলাকায় নদী পাড়ের অপেক্ষায় সিরিয়ালে কিছু যানবাহন আটকা পড়েছে। এটা প্রাকৃতিক সমস্যা। এতে তাদের কোন হাত নেই। তবে আটকে থাকা যানবাহনগুলো দ্রুত সময়ের মধ্যে নদী পারের চেষ্টা করা হচ্ছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

ঘন কুয়াশায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ব্যাহত ফেরি চলাচল ॥ নদী পাড়ের অপেক্ষায় কয়েকশ যান

প্রকাশের সময় : 07:55:37 pm, Saturday, 4 January 2020

জনতার আদালত অনলাইন ॥ তীব্র ঘন কুয়াশায় দেশের ব্যস্ততম দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে শনিবার দুই দফায় সাড়ে ৩ ঘন্টা ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। এতেকরে শনিবার সারাদিনই দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় নদী পাড়ের অপেক্ষায় মহাসড়কে যানবাহনে দীর্ঘ সারি ছিল।
বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট সূত্র জানায়, শুক্রবার দিনগত মধ্যরাত থেকে পদ্মা নদী এলাকায় কুয়শা পড়তে শুরু করে। শনিবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট ঘন কুয়াশার চাদরে ঢেকে গেলে দূর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। সকাল ৭টার দিকে কুয়াশার তীব্রতা কিছুটা কমে এলে সাবধানতার সাথে ফের ফেরি চলাচল শুরু হয়। আবারো সকাল ৮টার দিকে ঘন কুয়াশায় নৌরুটের মার্কিং বাতি অস্পষ্ট হয়ে যায়। এতেকরে পুনরায় রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে সকাল ৯টার দিকে কুয়াশা কমে এলে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হতে থাকে। দু’দফা ফেরি বন্ধ থাকায় ঘাট এলাকায় নদী পাড়ের অপেক্ষায় আটকে পড়ে শত শত বিভিন্ন যানবাহন। কনকনে শীতের মধ্যে আটকে থাকা যানবাহনের যাত্রী ও পরিবহন সংশ্লিষ্টরা চরম দূর্ভোগ পোহান।
শনিবার বিকেলে সরেজমিন দৌলতদিয়া ঘাট ঘুরে দেখা যায়, ফেরি ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে মহাসড়কের দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত অন্তত ৩ কিলোমটিার জুড়ে যানবাহনের দীর্ঘ সারি। এছাড়া দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ১২ কিলোমিটার দুরে গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় সিরিয়ালে আটকে রাখা হয়েছে শতাধিক পন্যবাহি ট্রাক।
বিআইডব্লিউটিসি’র দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক আবু আব্দুল্লাহ রনি জানান, ঘন কুয়াশায় ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় ঘাট এলাকায় নদী পাড়ের অপেক্ষায় সিরিয়ালে কিছু যানবাহন আটকা পড়েছে। এটা প্রাকৃতিক সমস্যা। এতে তাদের কোন হাত নেই। তবে আটকে থাকা যানবাহনগুলো দ্রুত সময়ের মধ্যে নদী পারের চেষ্টা করা হচ্ছে।