Dhaka ০৭:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সমাজকর্মী রিন্টু নেই \ তার মহৎ কাজের ধারাবাহিকতা আছে

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময় : ০৯:২৮:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ এপ্রিল ২০২৪
  • / ১০৪৪ জন সংবাদটি পড়েছেন

রাজবাড়ীর সমাজকর্মী মেজবাহ উল করিম রিন্টু। যিনি প্রতি ঈদের হতদরিদ্র মানুষকে সাধ্যমত ঈদসামগ্রী উপহার দিতেন। মারণব্যধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ২০২০ সালের ৯ ফেব্রæয়ারি। তার মহৎ কাজটির ধারাবাহিকতা রক্ষা করছে তার নামে গড়া সংগঠন মেজবাহ উল করিম রিন্টু স্মৃতি পরিষদ। সোমবার সংগঠনটির পক্ষ থেকে রাজবাড়ী শহরের ৬৫ জন হতদরিদ্র মানুষকে ঈদের সামগ্রী উপহার দেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে ছিল চাল, মাংস, চিনি, শেমাই, পেঁয়াজ, তেল, সাবান, লবণ ইত্যাদি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি আজিজা খানম, সহ সভাপতি সৈয়দ সিদ্দিকুর রহমান, কমল কান্তি সরকার, মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ, যুগ্ম সম্পাদক আহসান হাবীব, ফারুক উদ্দিন, অর্থ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী পাপুল, গিয়াস আহমেদ, আরিফুর রহমান প্রমুখ।

সংগঠনের সভাপতি আজিজা খানম বলেন, রিন্টু একজন সৃষ্টিশীল মানুষ ছিলেন। সমাজের জন্য যা কিছু ভাল তাই করতেন। রিন্টুর মহৎ কাজের ধারাবাহিকতা রক্ষা তারা করতে চান। রিন্টু শহরে বৃক্ষ রোপণ করতেন। জেলাজুড়ে তালবীজ রোপণ করেছেন। ধীরে ধীরে এসব কাজও তারা করবেন।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

সমাজকর্মী রিন্টু নেই \ তার মহৎ কাজের ধারাবাহিকতা আছে

প্রকাশের সময় : ০৯:২৮:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ এপ্রিল ২০২৪

রাজবাড়ীর সমাজকর্মী মেজবাহ উল করিম রিন্টু। যিনি প্রতি ঈদের হতদরিদ্র মানুষকে সাধ্যমত ঈদসামগ্রী উপহার দিতেন। মারণব্যধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ২০২০ সালের ৯ ফেব্রæয়ারি। তার মহৎ কাজটির ধারাবাহিকতা রক্ষা করছে তার নামে গড়া সংগঠন মেজবাহ উল করিম রিন্টু স্মৃতি পরিষদ। সোমবার সংগঠনটির পক্ষ থেকে রাজবাড়ী শহরের ৬৫ জন হতদরিদ্র মানুষকে ঈদের সামগ্রী উপহার দেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে ছিল চাল, মাংস, চিনি, শেমাই, পেঁয়াজ, তেল, সাবান, লবণ ইত্যাদি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি আজিজা খানম, সহ সভাপতি সৈয়দ সিদ্দিকুর রহমান, কমল কান্তি সরকার, মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ, যুগ্ম সম্পাদক আহসান হাবীব, ফারুক উদ্দিন, অর্থ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী পাপুল, গিয়াস আহমেদ, আরিফুর রহমান প্রমুখ।

সংগঠনের সভাপতি আজিজা খানম বলেন, রিন্টু একজন সৃষ্টিশীল মানুষ ছিলেন। সমাজের জন্য যা কিছু ভাল তাই করতেন। রিন্টুর মহৎ কাজের ধারাবাহিকতা রক্ষা তারা করতে চান। রিন্টু শহরে বৃক্ষ রোপণ করতেন। জেলাজুড়ে তালবীজ রোপণ করেছেন। ধীরে ধীরে এসব কাজও তারা করবেন।