Dhaka ০৬:৫৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি : চক্রের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৯:৪৫:৪৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪
  • / ১০৪৩ জন সংবাদটি পড়েছেন

 

স্টাফ রিপোর্টার \  সরকারি চাকরিতে নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি দেওয়ার অভিযোগে প্রতারক চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে রাজবাড়ী সদর থানার পুলিশ। রোববার রাতে রাজবাড়ী শহরের সিঙ্গার মোড় এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলেন রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার বহরপুর নতুন চর এলাকার বেলায়েত হুসাইনের ছেলে সাইফুল ইসলাম লিটন, বরিশালের মেদুয়া গ্রামের সামছুল হক খানের ছেলে আমানউল্লাহ ও রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার বোয়ালিয়া গ্রামের রহিম মন্ডলের ছেলে আমিরুল ইসলাম।

রাজবাড়ী সদর থানার ওসি ইফতেখারুল আলম প্রধান জানান, গত ৩০ মার্চ তারিখে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতাধীন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির শূন্যপদে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস করার চেষ্টা করে একটি চক্র। পাশাপাশি ছবি, স্বাক্ষর ও সীল নকল করে এক চাকরি প্রার্থীর হয়ে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। পুলিশি তদন্ত এবং গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে নেওয়া নগদ টাকা, পরীক্ষার কাজে ব্যবহার করা চারটি মোবাইল ফোন সেট এবং বিভিন্ন ব্যাংকের চারটি চেক বই জব্দ করা হয়েছে। পুলিশি জিজ্ঞাাসাবাদে তারা স্বীকার করেছে ইতিপূর্বে তারা দেশের বিভিন্ন স্থানে নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতির মাধ্যমে একজনের হয়ে অপরজনকে দিয়ে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। তাদের সাতজনের একটি দল রয়েছে।

এ ব্যাপারে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা দায়েরের পর আসামিদের রাজবাড়ী আদালতে চালান করা হয়েছে। চক্রের বাকী সদস্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি : চক্রের ৩ সদস্য গ্রেপ্তার

প্রকাশের সময় : ০৯:৪৫:৪৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪

 

স্টাফ রিপোর্টার \  সরকারি চাকরিতে নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি দেওয়ার অভিযোগে প্রতারক চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে রাজবাড়ী সদর থানার পুলিশ। রোববার রাতে রাজবাড়ী শহরের সিঙ্গার মোড় এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলেন রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার বহরপুর নতুন চর এলাকার বেলায়েত হুসাইনের ছেলে সাইফুল ইসলাম লিটন, বরিশালের মেদুয়া গ্রামের সামছুল হক খানের ছেলে আমানউল্লাহ ও রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার বোয়ালিয়া গ্রামের রহিম মন্ডলের ছেলে আমিরুল ইসলাম।

রাজবাড়ী সদর থানার ওসি ইফতেখারুল আলম প্রধান জানান, গত ৩০ মার্চ তারিখে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতাধীন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির শূন্যপদে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস করার চেষ্টা করে একটি চক্র। পাশাপাশি ছবি, স্বাক্ষর ও সীল নকল করে এক চাকরি প্রার্থীর হয়ে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। পুলিশি তদন্ত এবং গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে নেওয়া নগদ টাকা, পরীক্ষার কাজে ব্যবহার করা চারটি মোবাইল ফোন সেট এবং বিভিন্ন ব্যাংকের চারটি চেক বই জব্দ করা হয়েছে। পুলিশি জিজ্ঞাাসাবাদে তারা স্বীকার করেছে ইতিপূর্বে তারা দেশের বিভিন্ন স্থানে নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতির মাধ্যমে একজনের হয়ে অপরজনকে দিয়ে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। তাদের সাতজনের একটি দল রয়েছে।

এ ব্যাপারে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা দায়েরের পর আসামিদের রাজবাড়ী আদালতে চালান করা হয়েছে। চক্রের বাকী সদস্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।