Dhaka ০৪:৪৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বালিয়াকান্দিতে ব্যাপক জনসমাগম করে ইউএনও অফিসের সুপারের ছেলের বৌভাত !

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৯:২৪:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০
  • / ১৪৮০ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে করোনার ভাইরাসের প্রার্দুভাবের মাঝেই ব্যাপক জনসমাগম করে বিয়ের বৌভাত অনুষ্ঠানের আয়োজনের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলা প্রশাসনের অফিস সুপার এসএম আসলামের ছেলে আয়াতুল্লাহর বৌভাত শনিবার আড়কান্দি গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়। এতে নানা ক্রিয়া প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

বেলা সাড়ে ১২ টার সময় বহরপুর ইউনিয়নের ইলিশকোল গ্রামের বালিয়াকান্দি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসের পূর্ব দিকে আসলামের বাড়ীতে গিয়ে দেখা যায় বহু মানুষের উপস্থিতি। বাড়ীর ভিতরের প্যান্ডেলে পর্যাপ্ত আসন না থাকায় এসময় অর্ধ শতাধিক মোটরসাইকেল, মাইক্রো, ভ্যান, অটোগাড়ী যোগে আসা আমন্ত্রিত অতিথিরা বাড়ীর বাইরে ও ভিতরে অপেক্ষা করতে দেখা যায়। প্রতিটি বৈঠকে ছিলো ৫০-৬০ জন করে বসার ব্যবস্থা।

বেলা চারটার দিকে গিয়ে দেখা যায়, বাড়ী পরিপূর্ণ মানুষ। গাদাগাদি করে বসে আছে ঘরের মধ্যে নারীরা। কোন প্রকার শারীরিক দুরত্বের বালাই নেই। বাড়ীর বাইরে তখনো অপেক্ষা করছে বহু মানুষ।

একজন বৃদ্ধা বলেন, প্রতিটি পর্বে ৫০-৬০ জন লোক বসে খানা খাচ্ছে। এখনো অনেক মানুষ খাওয়ার বাকি আছে। বাইরের বাইরে ও  ভিতরে অনেকেই অপেক্ষা করছে। তাতে করে আরো ৫-৭টি বৈঠকের মাঝে অতিথি আপ্যায়ন সম্পন্ন হবে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ব্যক্তি বলেন, এই করোনার মধ্যে যেখানে জানাযায় লোকজন জড়ো হচ্ছে না, মসজিদে একসঙ্গে নামাজ পরতে পারছি না, সেখানে শত শত মানুষের উপস্থিতি ঘটেছে এই বৌ ভাত অনুষ্টান, সত্যিই অদ্ভুত !’

এ বিষয়ে বৌভাতের আয়োজনকারী ইউএনও অফিসের অফিস সুপার এর ব্যক্তিগত মোবাইলে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেন নি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম হেদায়েতুল ইসলাম বলেন, ‘আমার কাছে আসলাম সাহেব তার পুত্রের বিয়ের বিষয়টি বলেছিলেন। আমি তাকে নিরুৎসাহিত করেছিলাম এখন পুত্রের বিয়ে দিতে, কোনভাবেই যেন স্বাস্থ্য বিধি লংঘন না হয় সেটিও স্পষ্টভাবে বলেছি। পারিবারিকভাবে সীমিত পরিসরে তাকে কাজ সম্পন্ন করতে বলেছি। বড় পরিসরে আয়োজন করে থাকলে বিধি মোতাবেক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে’ বলেও তিনি জানান।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

বালিয়াকান্দিতে ব্যাপক জনসমাগম করে ইউএনও অফিসের সুপারের ছেলের বৌভাত !

প্রকাশের সময় : ০৯:২৪:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে করোনার ভাইরাসের প্রার্দুভাবের মাঝেই ব্যাপক জনসমাগম করে বিয়ের বৌভাত অনুষ্ঠানের আয়োজনের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলা প্রশাসনের অফিস সুপার এসএম আসলামের ছেলে আয়াতুল্লাহর বৌভাত শনিবার আড়কান্দি গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়। এতে নানা ক্রিয়া প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

বেলা সাড়ে ১২ টার সময় বহরপুর ইউনিয়নের ইলিশকোল গ্রামের বালিয়াকান্দি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসের পূর্ব দিকে আসলামের বাড়ীতে গিয়ে দেখা যায় বহু মানুষের উপস্থিতি। বাড়ীর ভিতরের প্যান্ডেলে পর্যাপ্ত আসন না থাকায় এসময় অর্ধ শতাধিক মোটরসাইকেল, মাইক্রো, ভ্যান, অটোগাড়ী যোগে আসা আমন্ত্রিত অতিথিরা বাড়ীর বাইরে ও ভিতরে অপেক্ষা করতে দেখা যায়। প্রতিটি বৈঠকে ছিলো ৫০-৬০ জন করে বসার ব্যবস্থা।

বেলা চারটার দিকে গিয়ে দেখা যায়, বাড়ী পরিপূর্ণ মানুষ। গাদাগাদি করে বসে আছে ঘরের মধ্যে নারীরা। কোন প্রকার শারীরিক দুরত্বের বালাই নেই। বাড়ীর বাইরে তখনো অপেক্ষা করছে বহু মানুষ।

একজন বৃদ্ধা বলেন, প্রতিটি পর্বে ৫০-৬০ জন লোক বসে খানা খাচ্ছে। এখনো অনেক মানুষ খাওয়ার বাকি আছে। বাইরের বাইরে ও  ভিতরে অনেকেই অপেক্ষা করছে। তাতে করে আরো ৫-৭টি বৈঠকের মাঝে অতিথি আপ্যায়ন সম্পন্ন হবে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ব্যক্তি বলেন, এই করোনার মধ্যে যেখানে জানাযায় লোকজন জড়ো হচ্ছে না, মসজিদে একসঙ্গে নামাজ পরতে পারছি না, সেখানে শত শত মানুষের উপস্থিতি ঘটেছে এই বৌ ভাত অনুষ্টান, সত্যিই অদ্ভুত !’

এ বিষয়ে বৌভাতের আয়োজনকারী ইউএনও অফিসের অফিস সুপার এর ব্যক্তিগত মোবাইলে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেন নি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম হেদায়েতুল ইসলাম বলেন, ‘আমার কাছে আসলাম সাহেব তার পুত্রের বিয়ের বিষয়টি বলেছিলেন। আমি তাকে নিরুৎসাহিত করেছিলাম এখন পুত্রের বিয়ে দিতে, কোনভাবেই যেন স্বাস্থ্য বিধি লংঘন না হয় সেটিও স্পষ্টভাবে বলেছি। পারিবারিকভাবে সীমিত পরিসরে তাকে কাজ সম্পন্ন করতে বলেছি। বড় পরিসরে আয়োজন করে থাকলে বিধি মোতাবেক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে’ বলেও তিনি জানান।