Dhaka 1:05 pm, Friday, 2 December 2022
, মামাতো ভাই গ্রেপ্তার পাওনা টাকার জন্য চাপ দেওয়ায় খুন

নিখোঁজের ৫ দিন পর সেপটিক ট্যাংক থেকে কৃষকের লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময় : 09:13:06 pm, Sunday, 13 November 2022
  • / 1051 জন সংবাদটি পড়েছেন

 নিখোঁজের পাঁচদিন পর সেপটিক ট্যাংক থেকে মোশারফ মোল্লা নামে এক কৃষকের লাশ উদ্ধার করেছে কালুখালী থানার পুলিশ। শনিবার দুপুরে কালুখালী উপজেলার আমবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি একই গ্রামের বাসিন্দা। পাওনা টাকার জন্য চাপ দেওয়ায় তার আপন ফুফাতো ভাই নান্নু শাহ তাকে শ^াসরোধে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। অভিযুক্ত নান্নুকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

কালুখালী থানা সূত্র জানায়, গত ৮ নভেম্বর রাতে নিখোঁজ হন মোশারফ মোল্লা। ঘটনার পরদির তার মেয়ে জেমি কালুখালী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এর সূত্র ধরে পুলিশ তদন্ত শুরু করে। এক পর্যায়ে নান্নু শাহকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে হত্যার কথা স্বীকার করে। নান্নু পুলিশকে জানিয়েছে, মোশারফ মোল্লার সাথে তার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। মোশারফ মোল্লা তার জমি বন্ধক রেখে নান্নুকে এক লাখ টাকা ধার দেন। যথাসময়ে টাকা পরিশোধ করতে না পারায় তাকে টাকার জন্য চাপ দেন মোশারফ। গত ৮ নভেম্বর রাতে মোশারফকে মোবাইল ফোনে ডেকে আমবাড়িয়া গ্রামের একটি আমবাগানে যেতে বলেন নান্নু। সেখানে যাওয়ার পর পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী মাছ ধরার জাল দিয়ে মোশারফকে হত্যার পর বাগানের একটি সেফটিক ট্যাংকে লাশ গুম করে রাখে।

কালুখালী থানার ওসি নাজমুল হাসান জানান, পুলিশ নান্নু শাহর দেখানো মতে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এব্যাপারে হত্যা মামলা হয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

, মামাতো ভাই গ্রেপ্তার পাওনা টাকার জন্য চাপ দেওয়ায় খুন

নিখোঁজের ৫ দিন পর সেপটিক ট্যাংক থেকে কৃষকের লাশ উদ্ধার

প্রকাশের সময় : 09:13:06 pm, Sunday, 13 November 2022

 নিখোঁজের পাঁচদিন পর সেপটিক ট্যাংক থেকে মোশারফ মোল্লা নামে এক কৃষকের লাশ উদ্ধার করেছে কালুখালী থানার পুলিশ। শনিবার দুপুরে কালুখালী উপজেলার আমবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি একই গ্রামের বাসিন্দা। পাওনা টাকার জন্য চাপ দেওয়ায় তার আপন ফুফাতো ভাই নান্নু শাহ তাকে শ^াসরোধে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। অভিযুক্ত নান্নুকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

কালুখালী থানা সূত্র জানায়, গত ৮ নভেম্বর রাতে নিখোঁজ হন মোশারফ মোল্লা। ঘটনার পরদির তার মেয়ে জেমি কালুখালী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এর সূত্র ধরে পুলিশ তদন্ত শুরু করে। এক পর্যায়ে নান্নু শাহকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে হত্যার কথা স্বীকার করে। নান্নু পুলিশকে জানিয়েছে, মোশারফ মোল্লার সাথে তার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। মোশারফ মোল্লা তার জমি বন্ধক রেখে নান্নুকে এক লাখ টাকা ধার দেন। যথাসময়ে টাকা পরিশোধ করতে না পারায় তাকে টাকার জন্য চাপ দেন মোশারফ। গত ৮ নভেম্বর রাতে মোশারফকে মোবাইল ফোনে ডেকে আমবাড়িয়া গ্রামের একটি আমবাগানে যেতে বলেন নান্নু। সেখানে যাওয়ার পর পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী মাছ ধরার জাল দিয়ে মোশারফকে হত্যার পর বাগানের একটি সেফটিক ট্যাংকে লাশ গুম করে রাখে।

কালুখালী থানার ওসি নাজমুল হাসান জানান, পুলিশ নান্নু শাহর দেখানো মতে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এব্যাপারে হত্যা মামলা হয়েছে।