Dhaka 4:02 pm, Thursday, 8 December 2022
একটি মানবিক আবেদন

ক্যান্সার আক্রান্ত বাবাকে বাঁচাতে ক্লান্তিহীন ছুটছেন মেয়ে

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময় : 11:59:59 am, Monday, 3 October 2022
  • / 1195 জন সংবাদটি পড়েছেন

ব্লাড  ক্যান্সার আক্রান্ত গোবিন্দ সাহাকে বাঁচাতে গত ছয় বছর ধরে ক্লান্তিহীন ছুটে চলেছেন মেয়ে পিউ সাহা। তার বাবার চিকিৎসার সাহায্যের জন্য মানুষের কাছে জানাচ্ছেন আকুল আবেদন। বর্তমানে গোবিন্দ সাহা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। উন্নত চিকিৎসার জন্য জরুরী ভিত্তিতে গোবিন্দ সাহাকে ভারত নিয়ে যাওয়া প্রয়োজন। যে জন্য লাগবে অন্ততঃ ২৫ লাখ টাকা। গোবিন্দ সাহা রাজবাড়ী শহরের লক্ষীকোল গ্রামের বাসিন্দা। পেশায় তিনি স্থানীয় একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থ্পাক ছিলেন। তার একমাত্র মেয়ে পিউ সাহা রাজবাড়ী সরকারি কলেজের বিএ (সম্মান) শ্রেণির ছাত্রী।
জানা গেছে, ২০১৭ সালের দিকে গোবিন্দ সাহার শরীরে ক্যান্সার ধরা পড়ে। তার রক্তকণিকা অণুচক্রিকা ও লাল রক্ত কণিকা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। চিকিৎসকরা তাকে দ্রæত কেমোথেরাপি দিতে বলেছেন। কেমোথেরাপি কোর্স শেষ হলে বোন ম্যারো ট্যান্সপ্লান্ট করাতে হবে। যা খুবই ব্যয়বহুল। ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পর মেয়ে পিউ সাহা তার বাবাকে সুস্থ করতে দিন রাত ছুটে চলেছেন এখানে ওখানে। দরিদ্র পরিবারে একমাত্র উপার্জনক্ষম ছিলেন গোবিন্দ সাহা। তিনি অসুস্থ হওয়ার পর পিউ এর পড়াশোনা খরচ, সংসার খরচ ও চিকিৎসা খরচ চালানো খুবই দুরূহ পড়েছে পরিবারটির।
মেয়ে পিউ সাহা বলেন, বর্তমানে প্রতিদিন তার বাবাকে এক ব্যাগ করে সাদা রক্ত ডোনার থেকে দেওয়া হচ্ছে। এই এক ব্যাগ রক্তের দাম ১৪ হাজার ৫০০ টাকা। এ পর্যন্ত পাঁচ ব্যাগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রতিদিন বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও হাসপাতালের খরচ ও ওষুধপত্র দিতে অনেক টাকা খরচ হচ্ছে। দীর্ঘ ছয় বছর ধরে বাবার চিকিৎসা করানো হচ্ছে। কিন্তু এখন আমাদের সহায় সম্বল সব শেষ। আমার পক্ষে বাবার চিকিৎসার খরচ যোগানো সম্ভব হচ্ছে না। এখন এমন অবস্থা শুধু টেস্ট করাতেই চলে যাবে ৫০ হাজার টাকার মতো। ডাক্তার বলেছেন, বøাড ক্যান্সার এখন যে অবস্থায় আছে তাতে কেমোতে কাজ হবে না। শরীরের অবস্থা ভালো না। বোন ম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট করাতে হবে। জরুরী ভিত্তিতে ভারত নিয়ে যেতে হবে। এজন্য ২৫ থেকে ৩০ লাখ টাকা দরকার।
কান্নাজড়িত কণ্ঠে পিউ সাহা বলেন, বাবা-মায়ের একমাত্র মেয়ে আমি। আমাদের পাশে দাঁড়ানোর মতো কেউ নেই। বাবার কিছু হলে আমি আর মা কীভাবে বাঁচব? কীভাবে নিজেকে সামলাবো। বাবার পরিস্থিতি ক্রমশঃ খারাপের দিকে চলে যাচ্ছে। এখন এমন একটা পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি সবার সহযোগিতা ছাড়া বাবার চিকিৎসা করা সম্ভব হচ্ছে না। বাবা বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চার তলার আইসিইউয়ের ১০ নম্বর বেডে ভর্তি রয়েছেন। তার বাবার চিকিৎসার জন্য তিনি সমাজের বিত্তবান, হৃদয়বান মানুষের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা: হিসাবের নাম গোবিন্দ কুমার সাহা, পূবালী ব্যাংক, রাজবাড়ী শাখা, হিসাব নং ১৬৩২৯০১০৩৩৪০৫।
বিকাশে সাহায্য পাঠানোর নম্বর: ০১৭১৪-৩৩৮০৯১, ০১৯০৫০০৬০৪৭, ০১৭৫৩-৪৬৪১৪১, ০১৭১০৯৮২৬১৩

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

একটি মানবিক আবেদন

ক্যান্সার আক্রান্ত বাবাকে বাঁচাতে ক্লান্তিহীন ছুটছেন মেয়ে

প্রকাশের সময় : 11:59:59 am, Monday, 3 October 2022

ব্লাড  ক্যান্সার আক্রান্ত গোবিন্দ সাহাকে বাঁচাতে গত ছয় বছর ধরে ক্লান্তিহীন ছুটে চলেছেন মেয়ে পিউ সাহা। তার বাবার চিকিৎসার সাহায্যের জন্য মানুষের কাছে জানাচ্ছেন আকুল আবেদন। বর্তমানে গোবিন্দ সাহা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। উন্নত চিকিৎসার জন্য জরুরী ভিত্তিতে গোবিন্দ সাহাকে ভারত নিয়ে যাওয়া প্রয়োজন। যে জন্য লাগবে অন্ততঃ ২৫ লাখ টাকা। গোবিন্দ সাহা রাজবাড়ী শহরের লক্ষীকোল গ্রামের বাসিন্দা। পেশায় তিনি স্থানীয় একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থ্পাক ছিলেন। তার একমাত্র মেয়ে পিউ সাহা রাজবাড়ী সরকারি কলেজের বিএ (সম্মান) শ্রেণির ছাত্রী।
জানা গেছে, ২০১৭ সালের দিকে গোবিন্দ সাহার শরীরে ক্যান্সার ধরা পড়ে। তার রক্তকণিকা অণুচক্রিকা ও লাল রক্ত কণিকা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। চিকিৎসকরা তাকে দ্রæত কেমোথেরাপি দিতে বলেছেন। কেমোথেরাপি কোর্স শেষ হলে বোন ম্যারো ট্যান্সপ্লান্ট করাতে হবে। যা খুবই ব্যয়বহুল। ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পর মেয়ে পিউ সাহা তার বাবাকে সুস্থ করতে দিন রাত ছুটে চলেছেন এখানে ওখানে। দরিদ্র পরিবারে একমাত্র উপার্জনক্ষম ছিলেন গোবিন্দ সাহা। তিনি অসুস্থ হওয়ার পর পিউ এর পড়াশোনা খরচ, সংসার খরচ ও চিকিৎসা খরচ চালানো খুবই দুরূহ পড়েছে পরিবারটির।
মেয়ে পিউ সাহা বলেন, বর্তমানে প্রতিদিন তার বাবাকে এক ব্যাগ করে সাদা রক্ত ডোনার থেকে দেওয়া হচ্ছে। এই এক ব্যাগ রক্তের দাম ১৪ হাজার ৫০০ টাকা। এ পর্যন্ত পাঁচ ব্যাগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রতিদিন বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও হাসপাতালের খরচ ও ওষুধপত্র দিতে অনেক টাকা খরচ হচ্ছে। দীর্ঘ ছয় বছর ধরে বাবার চিকিৎসা করানো হচ্ছে। কিন্তু এখন আমাদের সহায় সম্বল সব শেষ। আমার পক্ষে বাবার চিকিৎসার খরচ যোগানো সম্ভব হচ্ছে না। এখন এমন অবস্থা শুধু টেস্ট করাতেই চলে যাবে ৫০ হাজার টাকার মতো। ডাক্তার বলেছেন, বøাড ক্যান্সার এখন যে অবস্থায় আছে তাতে কেমোতে কাজ হবে না। শরীরের অবস্থা ভালো না। বোন ম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট করাতে হবে। জরুরী ভিত্তিতে ভারত নিয়ে যেতে হবে। এজন্য ২৫ থেকে ৩০ লাখ টাকা দরকার।
কান্নাজড়িত কণ্ঠে পিউ সাহা বলেন, বাবা-মায়ের একমাত্র মেয়ে আমি। আমাদের পাশে দাঁড়ানোর মতো কেউ নেই। বাবার কিছু হলে আমি আর মা কীভাবে বাঁচব? কীভাবে নিজেকে সামলাবো। বাবার পরিস্থিতি ক্রমশঃ খারাপের দিকে চলে যাচ্ছে। এখন এমন একটা পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি সবার সহযোগিতা ছাড়া বাবার চিকিৎসা করা সম্ভব হচ্ছে না। বাবা বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চার তলার আইসিইউয়ের ১০ নম্বর বেডে ভর্তি রয়েছেন। তার বাবার চিকিৎসার জন্য তিনি সমাজের বিত্তবান, হৃদয়বান মানুষের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা: হিসাবের নাম গোবিন্দ কুমার সাহা, পূবালী ব্যাংক, রাজবাড়ী শাখা, হিসাব নং ১৬৩২৯০১০৩৩৪০৫।
বিকাশে সাহায্য পাঠানোর নম্বর: ০১৭১৪-৩৩৮০৯১, ০১৯০৫০০৬০৪৭, ০১৭৫৩-৪৬৪১৪১, ০১৭১০৯৮২৬১৩