Dhaka ০৮:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে আ’লীগ নেতাকে অপহরণ করে চাঁদা দাবি, ছাত্রলীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ২

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৮:১১:৩৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১২ নভেম্বর ২০২০
  • / ১৪৯০ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বজলুর রশিদ মিলনকে অপহরণ করে চাঁদা দাবির ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি নাহিদুল আলম রাজু সহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে রাজবাড়ীর ডিবি পুলিশ। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজবাড়ী  রেলওয়ে  ময়দান সংলগ্ন একটি ক্লাব ঘর থেকে ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার ও  দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার রাজু রাজবাড়ী শহরের বেড়াডাঙ্গা গ্রামের শামসুল আলমের ছেলে। গ্রেপ্তার অপরজন হলো রাজবাড়ী সদর উপজেলার আহ্লাদিপুর গ্রামের সালাম মোল্লার ছেলে মিজানুর রহমান। অপহরণ করে চাঁদা দাবির ঘটনায় ব্যবসায়ী মিলন চারজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও সাতজনের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা করেছেন। মামলার অন্য দুই আাসামি মোহাম্মদ সোহাগ ও  মো. জাহাঙ্গীর। তাদের বাড়ি রাজবাড়ী সদর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে।

 পেশায় ব্যবসায়ী বজলুর রশিদ মিলন রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলিপুর ইউনিয়নের কোমরাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। মামলায় তিনি অভিযোগ  করেছেন, বৃহস্পতিবার দুপুর একটার দিকে ব্যবসায়ীক কাজ শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে রাজবাড়ী জেলা স্কুলের সামনে এলে রাজুর নেতৃত্বে অপর আসামিরা তার পথরোধ করে। পূর্ব বিরোধের জের ধরে তার কাছে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। তিনি চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাকে টেনে হিচড়ে মোটরসাইকেলে তুলে রাজবাড়ী রেলওয়ে ময়দান সংলগ্ন ক্লাব ঘরে নিয়ে আটকে রাখে। এসময় দাবি কৃত চাঁদা না দিলে তাকে হত্যা করা হবে বলে জানায় অপহরণকারীরা। কিছুক্ষণ পরে তিনি কৌশলে বিষয়টি মোবাইল ফোনে স্থানীয় একজনকে জানান। তার মাধ্যমে খবর পেয়ে ডিবি পুলিশ তাকে উদ্ধার করে।

রাজবাড়ীর ডিবি ওসি ওমর শরীফ জানান, অপহরণের খবর পেয়ে পুলিশ ত্বরিৎ অভিযান চালিয়ে ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার ও দুজনকে গ্রেপ্তার করে। অভিযানকালে অন্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। রাজবাড়ীর আদালতে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীর জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত. একটি হত্যাচেষ্টা মামলায় নাহিদুল আলম রাজু গত ২৭ অক্টোবর তারিখে রাজবাড়ী ডিবি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছিল। পরে আদালত থেকে তিনি জামিন নেন।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীতে আ’লীগ নেতাকে অপহরণ করে চাঁদা দাবি, ছাত্রলীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ২

প্রকাশের সময় : ০৮:১১:৩৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১২ নভেম্বর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বজলুর রশিদ মিলনকে অপহরণ করে চাঁদা দাবির ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি নাহিদুল আলম রাজু সহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে রাজবাড়ীর ডিবি পুলিশ। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজবাড়ী  রেলওয়ে  ময়দান সংলগ্ন একটি ক্লাব ঘর থেকে ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার ও  দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার রাজু রাজবাড়ী শহরের বেড়াডাঙ্গা গ্রামের শামসুল আলমের ছেলে। গ্রেপ্তার অপরজন হলো রাজবাড়ী সদর উপজেলার আহ্লাদিপুর গ্রামের সালাম মোল্লার ছেলে মিজানুর রহমান। অপহরণ করে চাঁদা দাবির ঘটনায় ব্যবসায়ী মিলন চারজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও সাতজনের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা করেছেন। মামলার অন্য দুই আাসামি মোহাম্মদ সোহাগ ও  মো. জাহাঙ্গীর। তাদের বাড়ি রাজবাড়ী সদর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে।

 পেশায় ব্যবসায়ী বজলুর রশিদ মিলন রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলিপুর ইউনিয়নের কোমরাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। মামলায় তিনি অভিযোগ  করেছেন, বৃহস্পতিবার দুপুর একটার দিকে ব্যবসায়ীক কাজ শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে রাজবাড়ী জেলা স্কুলের সামনে এলে রাজুর নেতৃত্বে অপর আসামিরা তার পথরোধ করে। পূর্ব বিরোধের জের ধরে তার কাছে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। তিনি চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাকে টেনে হিচড়ে মোটরসাইকেলে তুলে রাজবাড়ী রেলওয়ে ময়দান সংলগ্ন ক্লাব ঘরে নিয়ে আটকে রাখে। এসময় দাবি কৃত চাঁদা না দিলে তাকে হত্যা করা হবে বলে জানায় অপহরণকারীরা। কিছুক্ষণ পরে তিনি কৌশলে বিষয়টি মোবাইল ফোনে স্থানীয় একজনকে জানান। তার মাধ্যমে খবর পেয়ে ডিবি পুলিশ তাকে উদ্ধার করে।

রাজবাড়ীর ডিবি ওসি ওমর শরীফ জানান, অপহরণের খবর পেয়ে পুলিশ ত্বরিৎ অভিযান চালিয়ে ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার ও দুজনকে গ্রেপ্তার করে। অভিযানকালে অন্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। রাজবাড়ীর আদালতে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীর জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত. একটি হত্যাচেষ্টা মামলায় নাহিদুল আলম রাজু গত ২৭ অক্টোবর তারিখে রাজবাড়ী ডিবি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছিল। পরে আদালত থেকে তিনি জামিন নেন।