Dhaka 1:29 am, Friday, 9 December 2022

সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 07:49:37 pm, Sunday, 5 February 2017
  • / 1132 জন সংবাদটি পড়েছেন

দশম জাতীয় সংসদের  ২২৫ সুনামগঞ্জ -২ আসনের সংসদ সদস্য, বিশিষ্ট পার্লামেন্টারিয়ান, মুক্তিযুদ্ধের  অন্যতম সংগঠক, সাব সেক্টর কমান্ডার সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত- এর মরদেহে আজ বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে।
তিনি ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ভোরে ল্যাব এইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল প্রায় ৭১ বছর। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রাক্তন প্রেসিডিয়াম সদস্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংসদ বিষয়ক উপদেষ্টা এবং উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রেলপথ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ,  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,জাতীয় সংসদের স্পীকার ও সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও দলীয় নেতৃবৃন্দ, ডেপুটি স্পীকার  মোঃ ফজলে রাব্বী মিয়া, চীফ হুইপ আ.স.ম ফিরোজ ও হুইপবৃন্দ, ১৪ দলের পক্ষ থেকে এবং  বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে মরদেহে পুস্পমাল্য অর্পন করেন। এ সময় মন্ত্রী পরিষদের সদস্যবর্গ,  দলীয় নেতা কর্মী, শুভানুধ্যায়ী, সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, নিকটাতœীয়সহ  নানা শ্রেণী ও পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে প্রবীন ও অভিজ্ঞ এই পার্লামেন্টারিয়ানকে  রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গার্ড অব অনার প্রদান, এক মিনিট নীরবতা পালন এবং তাঁর কর্মময়  জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে  আলোচনা করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী ও পুত্রসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি

প্রকাশের সময় : 07:49:37 pm, Sunday, 5 February 2017

দশম জাতীয় সংসদের  ২২৫ সুনামগঞ্জ -২ আসনের সংসদ সদস্য, বিশিষ্ট পার্লামেন্টারিয়ান, মুক্তিযুদ্ধের  অন্যতম সংগঠক, সাব সেক্টর কমান্ডার সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত- এর মরদেহে আজ বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে।
তিনি ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ভোরে ল্যাব এইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল প্রায় ৭১ বছর। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রাক্তন প্রেসিডিয়াম সদস্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংসদ বিষয়ক উপদেষ্টা এবং উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রেলপথ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ,  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,জাতীয় সংসদের স্পীকার ও সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও দলীয় নেতৃবৃন্দ, ডেপুটি স্পীকার  মোঃ ফজলে রাব্বী মিয়া, চীফ হুইপ আ.স.ম ফিরোজ ও হুইপবৃন্দ, ১৪ দলের পক্ষ থেকে এবং  বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে মরদেহে পুস্পমাল্য অর্পন করেন। এ সময় মন্ত্রী পরিষদের সদস্যবর্গ,  দলীয় নেতা কর্মী, শুভানুধ্যায়ী, সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, নিকটাতœীয়সহ  নানা শ্রেণী ও পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে প্রবীন ও অভিজ্ঞ এই পার্লামেন্টারিয়ানকে  রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গার্ড অব অনার প্রদান, এক মিনিট নীরবতা পালন এবং তাঁর কর্মময়  জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে  আলোচনা করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী ও পুত্রসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি