Dhaka ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ফলোআপ : ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে হত্যা

টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্য থাকলেও রক্ত দেখে পেয়ে পালিয়ে যায় তরিকুল – ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তীমূলক জবানবন্দী

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময় : ০৭:০৬:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ১০৪২ জন সংবাদটি পড়েছেন

টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে ব্যবসায়ী শরীফ খানকে হত্যার উদ্দেশ্য থাকলেও রক্ত দেখে ভয় পেয়ে পালিয়ে যায় তরিকুল শেখ। শুক্রবার বিকেলে রাজবাড়ীর আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দীতে একথা জানিয়েছে সে। তরিকুল অনলাইন জুয়ায় আসক্ত বলে জানিয়েছে পুলিশ। সে রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার রতনদিয়া ইউনিয়নের রূপসা গ্রামের চাঁদ আলী শেখের ছেলে।

কালুখালী থানার ওসি আলমগীর হোসাইন জানান, ব্যবসায়ী শরীফ খান হত্যাকান্ডের পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে তরিকুলকে আটক করে। পুলিশের ব্যাপক জিজ্ঞসাবাদের পর সে স্বীকার করেছে, সে অনলাইন জুয়া খেলায় আসক্ত ছিল। জুয়া খেলে সে নিস্ব হয়ে গেছে। জুয়া খেলার লেনদেন সে বিকাশ এজেন্ট শরীফ খানের কাছ থেকেই করতো। সে সূত্রে শরীফের সাথে তরিকুলের ঘনিষ্ঠতাও ছিল। ঘটনার দিন গত বুধবার রাতে বিকাশে টাকা পাঠানোর কথা বলে তরিকুল শরিফ খানকে মোবাইলে ডেকে নেয়। এরপর বাজারের মধ্যে একটি নির্জন স্থানে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে শরীফের ঘাড়ে ও গলায় কোপ দেয়। টাকা ছিনিয়ে নিতে শরীফের জামার পকেটে হাতও দিয়েছিল। কিন্তু মোবাইল ফোন হাতে পড়ে। ওই সময় শরীফের দেহ থেকে অঝোরে রক্ত পড়ছিল। এই দেখে সে ভয় পেয়ে দৌড়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

ওসি আরও জানান, হত্যার ঘটনায় নিহতের স্ত্রী আছমা বেগম বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেছেন। হত্যায় ব্যবহৃত ধারালো একটি দা উদ্ধার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার রাতে ওয়াজ মাহফিল থেকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয় ব্যবসায়ী শরীফ খানকে। তার বাড়ি কালুখালী উপজেলার রতনদিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম ধানবাড়িয়া গ্রামের হাকিম খানের ছেলে। রূপসা বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

ফলোআপ : ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে হত্যা

টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্য থাকলেও রক্ত দেখে পেয়ে পালিয়ে যায় তরিকুল – ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তীমূলক জবানবন্দী

প্রকাশের সময় : ০৭:০৬:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে ব্যবসায়ী শরীফ খানকে হত্যার উদ্দেশ্য থাকলেও রক্ত দেখে ভয় পেয়ে পালিয়ে যায় তরিকুল শেখ। শুক্রবার বিকেলে রাজবাড়ীর আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দীতে একথা জানিয়েছে সে। তরিকুল অনলাইন জুয়ায় আসক্ত বলে জানিয়েছে পুলিশ। সে রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার রতনদিয়া ইউনিয়নের রূপসা গ্রামের চাঁদ আলী শেখের ছেলে।

কালুখালী থানার ওসি আলমগীর হোসাইন জানান, ব্যবসায়ী শরীফ খান হত্যাকান্ডের পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে তরিকুলকে আটক করে। পুলিশের ব্যাপক জিজ্ঞসাবাদের পর সে স্বীকার করেছে, সে অনলাইন জুয়া খেলায় আসক্ত ছিল। জুয়া খেলে সে নিস্ব হয়ে গেছে। জুয়া খেলার লেনদেন সে বিকাশ এজেন্ট শরীফ খানের কাছ থেকেই করতো। সে সূত্রে শরীফের সাথে তরিকুলের ঘনিষ্ঠতাও ছিল। ঘটনার দিন গত বুধবার রাতে বিকাশে টাকা পাঠানোর কথা বলে তরিকুল শরিফ খানকে মোবাইলে ডেকে নেয়। এরপর বাজারের মধ্যে একটি নির্জন স্থানে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে শরীফের ঘাড়ে ও গলায় কোপ দেয়। টাকা ছিনিয়ে নিতে শরীফের জামার পকেটে হাতও দিয়েছিল। কিন্তু মোবাইল ফোন হাতে পড়ে। ওই সময় শরীফের দেহ থেকে অঝোরে রক্ত পড়ছিল। এই দেখে সে ভয় পেয়ে দৌড়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

ওসি আরও জানান, হত্যার ঘটনায় নিহতের স্ত্রী আছমা বেগম বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেছেন। হত্যায় ব্যবহৃত ধারালো একটি দা উদ্ধার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার রাতে ওয়াজ মাহফিল থেকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয় ব্যবসায়ী শরীফ খানকে। তার বাড়ি কালুখালী উপজেলার রতনদিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম ধানবাড়িয়া গ্রামের হাকিম খানের ছেলে। রূপসা বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।