Dhaka ১০:১৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কাদের সিদ্দিকীর বক্তব্য প্রত্যাহার দাবিতে মহিলা পরিষদের স্মারকলিপি

স্টাফ রিপোর্টার \
  • প্রকাশের সময় : ০৭:০৪:১২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ মে ২০২৩
  • / ১১১৮ জন সংবাদটি পড়েছেন

টাঙ্গাইলের সখীপুরে নারী ইউএনওকে গার্ড অব অনার দিতে বাধা দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানানোর পাশাপাশি কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকীর বক্তব প্রত্যাহারের দাবিতে মঙ্গলবার জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজবাড়ী জেলা শাখা।

সংগঠনের সভাপতি ডা. পূর্ণিমা রানী দত্ত,  সাধারণ সম্পাদক ক্রিস্টিয়া মারিও রেখা দাস ও আন্দোলন সম্পাদক শায়লা তাবাসসুম নেওয়াজ সাক্ষরিত স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে, টাঙ্গাইলের সখীপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ খানের মৃত্যুর পর রাষ্ট্রীয় সম্মাননা (গার্ড অব অনার) দিতে নারী ইউএনওকে বাধা দেন কাদের সিদ্দিকী। তিনি একজন পুরুষ কর্মকর্তাকে গার্ড অব অনার দেওয়ার প্রস্তাব করেন। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজবাড়ী জেলা শাখা একজন প্রবীণ রাজনৈতিক নেতার এমন অগ্রহণযোগ্য, সংবিধান পরিপন্থী, নারীর মানবাধিকার পরিপন্থী অবস্থানের তীব্র প্রতিবাদ ও ক্ষোভ জানাচ্ছে। এ ধরনের আচরণ নারীর জন্য অবমাননাকর। ঠিক একইভাবে একজন মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধও জাতির জন্যও তঅপমানজনক। একটি স্বাধীন সার্বভৌম নারী পুরুষের সমতাপূর্ণ প্রগতিশীল সমাজ ও রাষ্ট্র গঠনের জন্যই মুক্তিযোদ্ধারা তাদের জীবন বাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। নারী পুরুষ নির্বিশেষে পদাধিকারবলে যাদের ওপর বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গার্ড অব অনার দেওয়ার দায়িত্ব অর্পিত হয়েছে তারা সেই রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করবেন এটাই প্রত্যাশিত।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

কাদের সিদ্দিকীর বক্তব্য প্রত্যাহার দাবিতে মহিলা পরিষদের স্মারকলিপি

প্রকাশের সময় : ০৭:০৪:১২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ মে ২০২৩

টাঙ্গাইলের সখীপুরে নারী ইউএনওকে গার্ড অব অনার দিতে বাধা দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানানোর পাশাপাশি কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকীর বক্তব প্রত্যাহারের দাবিতে মঙ্গলবার জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজবাড়ী জেলা শাখা।

সংগঠনের সভাপতি ডা. পূর্ণিমা রানী দত্ত,  সাধারণ সম্পাদক ক্রিস্টিয়া মারিও রেখা দাস ও আন্দোলন সম্পাদক শায়লা তাবাসসুম নেওয়াজ সাক্ষরিত স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে, টাঙ্গাইলের সখীপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ খানের মৃত্যুর পর রাষ্ট্রীয় সম্মাননা (গার্ড অব অনার) দিতে নারী ইউএনওকে বাধা দেন কাদের সিদ্দিকী। তিনি একজন পুরুষ কর্মকর্তাকে গার্ড অব অনার দেওয়ার প্রস্তাব করেন। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজবাড়ী জেলা শাখা একজন প্রবীণ রাজনৈতিক নেতার এমন অগ্রহণযোগ্য, সংবিধান পরিপন্থী, নারীর মানবাধিকার পরিপন্থী অবস্থানের তীব্র প্রতিবাদ ও ক্ষোভ জানাচ্ছে। এ ধরনের আচরণ নারীর জন্য অবমাননাকর। ঠিক একইভাবে একজন মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধও জাতির জন্যও তঅপমানজনক। একটি স্বাধীন সার্বভৌম নারী পুরুষের সমতাপূর্ণ প্রগতিশীল সমাজ ও রাষ্ট্র গঠনের জন্যই মুক্তিযোদ্ধারা তাদের জীবন বাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। নারী পুরুষ নির্বিশেষে পদাধিকারবলে যাদের ওপর বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গার্ড অব অনার দেওয়ার দায়িত্ব অর্পিত হয়েছে তারা সেই রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করবেন এটাই প্রত্যাশিত।