Dhaka ০৫:৩০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৬ মাস ধরে শিশুটিকে বলাৎকার করতেন মাদ্রাসা শিক্ষক

স্টাফ রিপোর্টার \
  • প্রকাশের সময় : ০৯:০৬:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৩
  • / ১০৮৫ জন সংবাদটি পড়েছেন

দীর্ঘ ছয় মাস ধরে আট বছরের শিশুকে বলাৎকার করতেন মাদ্রাসা শিক্ষক মো. ইমদাদুল্লাহ। রাজবাড়ী সদর থানার পুলিশ সোমবার গভীর রাতে বাণিবহ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেছে। তিনি নড়াইল জেলার নড়াগাতি থানার চান্দেরচর গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস মোল্লার ছেলে।

রাজবাড়ী সদর থানা সূত্র জানায়, রাজবাড়ী সদর উপজেলার পাঁচুরিয়া ইউনিয়ন এলাকার একটি আবাসিক মাদ্রাসার শিক্ষক ইমদাদুল্লাহ। মাদ্রাসায় তিনি রাত্রিযাপন করেন। একই মাদ্রাসায় পড়াশোনা করে আট বছরের শিশুটি। গত ছয় মাস ধরে ইমদাদুল্লাহ ওই ছাত্রকে বলাৎকার করে আসছেন। গত রোববার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে একইভাবে ওই ছাত্রকে বলাৎকার করার সময় শিশুটি চিৎকার দেয়। এসময় মাদ্রাসায় থাকা অন্য ছাত্র শিক্ষক এগিয়ে গেলে ইমদাদুল্লাহ পালিয়ে যান। এ ঘটনায় শিশুর মা বাদী হয়ে সোমবার ইমদাদুল্লাহকে একমাত্র ্আসামি করে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও রাজবাড়ী সদর থানার এসআই মো. কামরুজ্জামান শিকদার জানান, মামলা দায়েরের পর পুলিশ সোমবার গভীর রাতে সদর উপজেলার বাণিবহ থেকে শিক্ষক ইমদাদুল্লাহকে গ্রেপ্তার করে। মঙ্গলবার তাকে রাজবাড়ীর ্আদালতে চালান করা হয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

৬ মাস ধরে শিশুটিকে বলাৎকার করতেন মাদ্রাসা শিক্ষক

প্রকাশের সময় : ০৯:০৬:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৩

দীর্ঘ ছয় মাস ধরে আট বছরের শিশুকে বলাৎকার করতেন মাদ্রাসা শিক্ষক মো. ইমদাদুল্লাহ। রাজবাড়ী সদর থানার পুলিশ সোমবার গভীর রাতে বাণিবহ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেছে। তিনি নড়াইল জেলার নড়াগাতি থানার চান্দেরচর গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস মোল্লার ছেলে।

রাজবাড়ী সদর থানা সূত্র জানায়, রাজবাড়ী সদর উপজেলার পাঁচুরিয়া ইউনিয়ন এলাকার একটি আবাসিক মাদ্রাসার শিক্ষক ইমদাদুল্লাহ। মাদ্রাসায় তিনি রাত্রিযাপন করেন। একই মাদ্রাসায় পড়াশোনা করে আট বছরের শিশুটি। গত ছয় মাস ধরে ইমদাদুল্লাহ ওই ছাত্রকে বলাৎকার করে আসছেন। গত রোববার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে একইভাবে ওই ছাত্রকে বলাৎকার করার সময় শিশুটি চিৎকার দেয়। এসময় মাদ্রাসায় থাকা অন্য ছাত্র শিক্ষক এগিয়ে গেলে ইমদাদুল্লাহ পালিয়ে যান। এ ঘটনায় শিশুর মা বাদী হয়ে সোমবার ইমদাদুল্লাহকে একমাত্র ্আসামি করে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও রাজবাড়ী সদর থানার এসআই মো. কামরুজ্জামান শিকদার জানান, মামলা দায়েরের পর পুলিশ সোমবার গভীর রাতে সদর উপজেলার বাণিবহ থেকে শিক্ষক ইমদাদুল্লাহকে গ্রেপ্তার করে। মঙ্গলবার তাকে রাজবাড়ীর ্আদালতে চালান করা হয়েছে।