Dhaka ০৭:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
- প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী

বিচারক নিয়োগ হলে মামলার জট কমবে

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময় : ০৯:২৯:৪২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ এপ্রিল ২০২৩
  • / ১০৯৫ জন সংবাদটি পড়েছেন

প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেছেন, দেশে জুডিশিয়াল মামলার সংখ্যা আছে ৩৫ লাখ। সেখানে বিচারকের সংখ্যা ২ হাজার। মামলার জট ছাড়াতে আমরা আরো বিচারক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ প্রক্রিয়া এগিয়ে যাচ্ছে। বিচারকের সংখ্যা বেড়ে গেলে ধীরে ধীরে মামলার জট কমে আসবে। রোববার দুপুরে রাজবাড়ী আদালতে ন্যায়কুঞ্জ উদ্বোধন শেষে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, এ রাষ্ট্রের মালিক জনগণ। আমরা যারা সরকারের কাজ করি তারা তাদের সেবক ভাববো, যে যত বড় পদে আছেন সে তত বড় সেবক। অনেক বিচার প্রার্থী দূর দুরান্ত থেকে আসেন। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত থাকতে হয়। তাদের সাথে অনেক সময় নারীরাও থাকেন। বসার জায়গার অভাবে তাদের অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এসব কথা ভেবে আদালত চত্ত¡রে ন্যায়কুঞ্জ স্থাপন করা হচ্ছে। এখানে নারী ও পুরুষের জন্য আলাদা দুটি শৌচাগার থাকবে। বসার জায়গা থাকবে। সেই সাথে থাকবে একটি ফাস্ট ফুডের দোকানও। ফাস্টফুডের দোকান থেকে যে লভ্যাংশ আসবে, সে টাকা ওই ন্যায়কুঞ্জ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কাজে ব্যবহৃত হবে। এছাড়া এটি দেখভালের জন্য একজন কর্মকর্তা দায়িত্বে থাকবেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী জেলা ও দায়রা জজ রুহুল আমিন, রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান, রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এমএম শাকিলুজ্জামান, রাজবাড়ীর অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সূবর্ণা রাণী সাহা প্রমুখ।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

- প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী

বিচারক নিয়োগ হলে মামলার জট কমবে

প্রকাশের সময় : ০৯:২৯:৪২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ এপ্রিল ২০২৩

প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেছেন, দেশে জুডিশিয়াল মামলার সংখ্যা আছে ৩৫ লাখ। সেখানে বিচারকের সংখ্যা ২ হাজার। মামলার জট ছাড়াতে আমরা আরো বিচারক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ প্রক্রিয়া এগিয়ে যাচ্ছে। বিচারকের সংখ্যা বেড়ে গেলে ধীরে ধীরে মামলার জট কমে আসবে। রোববার দুপুরে রাজবাড়ী আদালতে ন্যায়কুঞ্জ উদ্বোধন শেষে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, এ রাষ্ট্রের মালিক জনগণ। আমরা যারা সরকারের কাজ করি তারা তাদের সেবক ভাববো, যে যত বড় পদে আছেন সে তত বড় সেবক। অনেক বিচার প্রার্থী দূর দুরান্ত থেকে আসেন। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত থাকতে হয়। তাদের সাথে অনেক সময় নারীরাও থাকেন। বসার জায়গার অভাবে তাদের অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এসব কথা ভেবে আদালত চত্ত¡রে ন্যায়কুঞ্জ স্থাপন করা হচ্ছে। এখানে নারী ও পুরুষের জন্য আলাদা দুটি শৌচাগার থাকবে। বসার জায়গা থাকবে। সেই সাথে থাকবে একটি ফাস্ট ফুডের দোকানও। ফাস্টফুডের দোকান থেকে যে লভ্যাংশ আসবে, সে টাকা ওই ন্যায়কুঞ্জ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কাজে ব্যবহৃত হবে। এছাড়া এটি দেখভালের জন্য একজন কর্মকর্তা দায়িত্বে থাকবেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী জেলা ও দায়রা জজ রুহুল আমিন, রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান, রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এমএম শাকিলুজ্জামান, রাজবাড়ীর অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সূবর্ণা রাণী সাহা প্রমুখ।