Dhaka ০৩:৪৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বালিয়াকান্দিতে শতবর্ষীরা পেলেন ওসির উপহার

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৮:২৬:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ মার্চ ২০২১
  • / ৩৭৭৯ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥  বয়সের ভারে ন্যুজ ১১৩ বছর আফসার বিশ^াস। যিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে দেখেছিলেন খুব কাছ থেকে। বালিয়াকান্দি থানার ওসির কাছ থেকে উপহার পেয়ে আপ্লুত তিনি। উপজেলার নারুয়া গ্রামের বাসিন্দা আফসার বিশ^াস বলেন, জীবনের শেষ সময়ে এসে এ সম্মাননা পেয়ে আমি খুব খুশী।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার বালিয়াকান্দি থানার ওসি তারেকুজ্জামানের ব্যক্তিগত উদ্যোগে এমন পাঁচজন শতবর্ষী ব্যক্তির বাড়িতে গিয়ে তাদের ফুল, ফল ও ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননাা জানানো হয়।

সম্মাননাপ্রাপ্ত অপর চারজন হলেন উপজেলার মধুপুর গ্রামের ১২০ বছর বয়সী জন জোয়াদ্দার, নবাবপুর ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের ১০২ বছর বয়সী অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আমিনুল হক, বহরপুর ইউনিয়নের ইলিশকোল গ্রামের ১০২ বছর বয়সী কালিপদ সোম এবং কুবদী গ্রামের ১০৮ বছর বয়সী ছকিনা বেগম।

সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ওসি তারেকুজ্জামান প্রত্যেকের বাড়িতে গিয়ে তিনি এসব উপহার পৌছে দেন। এসময় শতবর্ষী ব্যক্তিরা ওসিকে জড়িয়ে ধরে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। প্রাণভরে দোয়া করেন তাকে। উপহার প্রদানকালে অন্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল কালাম আজাদ, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন কুমার আদিত্য, নবাবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল হাসান আলী, নারুয়া বাজার বণিক সমিতির সাবেক সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গণি শেখ, সোনাপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আজিজ ইকবাল প্রমুখ।

শতবর্ষী অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আমিনুল হক বলেন, আমি একজন পুলিশ সদস্য হিসেবে আজ নিজেকে গর্বিত মনে পারছি। জীবনের শেষ সময়ে থানার ওসি সাহেব আজ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে আমাকে সম্মানিত করলেন এটাই আমার কাছে অনেক বড় পাওয়ার।

বালিয়াকান্দি থানার ওসি তারিকুজ্জামান বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী। আমরা এসকল শতবর্ষী মানুষদের মাঝে বঙ্গবন্ধুকে খুঁজে ফিরি। বঙ্গবন্ধুকে স্বচোখে দেখা ব্যক্তিদের বালিয়াকান্দি থানা পুলিশের পক্ষ থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে সম্মাননা দিয়েছি। সেই সাথে তাদের খোঁজ খবর নিয়েছি। আমি তাদের পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করবো।

বালিয়াকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ওসি তারেকুজ্জামান মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন তা প্রশংসার দাবিদার। সমাজে ভালো কিছু করার যে অনুপ্রেরণা সৃষ্টি করেছে তা বিরল দৃষ্টান্ত। তার এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

বালিয়াকান্দিতে শতবর্ষীরা পেলেন ওসির উপহার

প্রকাশের সময় : ০৮:২৬:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ মার্চ ২০২১

জনতার আদালত অনলাইন ॥  বয়সের ভারে ন্যুজ ১১৩ বছর আফসার বিশ^াস। যিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে দেখেছিলেন খুব কাছ থেকে। বালিয়াকান্দি থানার ওসির কাছ থেকে উপহার পেয়ে আপ্লুত তিনি। উপজেলার নারুয়া গ্রামের বাসিন্দা আফসার বিশ^াস বলেন, জীবনের শেষ সময়ে এসে এ সম্মাননা পেয়ে আমি খুব খুশী।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার বালিয়াকান্দি থানার ওসি তারেকুজ্জামানের ব্যক্তিগত উদ্যোগে এমন পাঁচজন শতবর্ষী ব্যক্তির বাড়িতে গিয়ে তাদের ফুল, ফল ও ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননাা জানানো হয়।

সম্মাননাপ্রাপ্ত অপর চারজন হলেন উপজেলার মধুপুর গ্রামের ১২০ বছর বয়সী জন জোয়াদ্দার, নবাবপুর ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের ১০২ বছর বয়সী অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আমিনুল হক, বহরপুর ইউনিয়নের ইলিশকোল গ্রামের ১০২ বছর বয়সী কালিপদ সোম এবং কুবদী গ্রামের ১০৮ বছর বয়সী ছকিনা বেগম।

সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ওসি তারেকুজ্জামান প্রত্যেকের বাড়িতে গিয়ে তিনি এসব উপহার পৌছে দেন। এসময় শতবর্ষী ব্যক্তিরা ওসিকে জড়িয়ে ধরে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। প্রাণভরে দোয়া করেন তাকে। উপহার প্রদানকালে অন্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল কালাম আজাদ, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন কুমার আদিত্য, নবাবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল হাসান আলী, নারুয়া বাজার বণিক সমিতির সাবেক সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গণি শেখ, সোনাপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আজিজ ইকবাল প্রমুখ।

শতবর্ষী অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আমিনুল হক বলেন, আমি একজন পুলিশ সদস্য হিসেবে আজ নিজেকে গর্বিত মনে পারছি। জীবনের শেষ সময়ে থানার ওসি সাহেব আজ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে আমাকে সম্মানিত করলেন এটাই আমার কাছে অনেক বড় পাওয়ার।

বালিয়াকান্দি থানার ওসি তারিকুজ্জামান বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী। আমরা এসকল শতবর্ষী মানুষদের মাঝে বঙ্গবন্ধুকে খুঁজে ফিরি। বঙ্গবন্ধুকে স্বচোখে দেখা ব্যক্তিদের বালিয়াকান্দি থানা পুলিশের পক্ষ থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে সম্মাননা দিয়েছি। সেই সাথে তাদের খোঁজ খবর নিয়েছি। আমি তাদের পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করবো।

বালিয়াকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ওসি তারেকুজ্জামান মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন তা প্রশংসার দাবিদার। সমাজে ভালো কিছু করার যে অনুপ্রেরণা সৃষ্টি করেছে তা বিরল দৃষ্টান্ত। তার এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।