Dhaka ০৩:১৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

১৮ বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলোনা, স্বামী হত্যায় যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্ত স্ত্রী গ্রেপ্তার

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৮:১৯:১৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ মার্চ ২০২১
  • / ১৩৪৮ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ ১৮ বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলোনা মমতাজ বেগমের(৪০)। স্বামী হত্যার দায়ে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি মমতাজ বেগম রাজবাড়ী সদর থানা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে কুষ্টিয়া  জেলার দৌলতপুর উপজেলার মাজদিয়ার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সে রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামনগর গ্রামের আব্দুল হাকিমের মেয়ে।

রাজবাড়ী সদর থানা সূত্র জানায়, চুয়াডাঙ্গা জেলার বেগমপুর গ্রামের ভাঙ্গারী ব্যবসায়ী আহম্মেদ আলী মোল্লার সাথে বিয়ে হয়েছিল মমতাজ বেগমের। বিয়ের পর মমতাজ বেগম স্বামীকে নিয়ে তার বাবার বাড়ি রামনগর গ্রামেই বসবাস করছিলেন। ২০০২ সালের ১১ ডিসেম্বর তারিখে মমতাজ বেগমের স্বামী আহম্মেদ আলীর অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই মোহাম্মদ আলী ওই বছরের ১৯ ডিসেম্বর তারিখে মমতাজ বেগমসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে রাজবাড়ীর ১ নং আমলী আদালতে মামলা করেন। মামলাটি পরে রাজবাড়ী সদর থানায় রেকর্ড হয়। মামলার পর থেকেই  মমতাজ বেগম পলাতক ছিল। ২০০৮ সালের ১০ আগস্ট তারিখে রাজবাড়ী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক বেলায়েত হোসেন আসামি মমতাজকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদন্ড প্রদান করেন।

রাজবাড়ী সদর থানার এসআই হিরন কুমার বিশ^াস জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে মমতাজ বেগমকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে রাজবাড়ীর আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

১৮ বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলোনা, স্বামী হত্যায় যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্ত স্ত্রী গ্রেপ্তার

প্রকাশের সময় : ০৮:১৯:১৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ মার্চ ২০২১

জনতার আদালত অনলাইন ॥ ১৮ বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলোনা মমতাজ বেগমের(৪০)। স্বামী হত্যার দায়ে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি মমতাজ বেগম রাজবাড়ী সদর থানা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে কুষ্টিয়া  জেলার দৌলতপুর উপজেলার মাজদিয়ার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সে রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামনগর গ্রামের আব্দুল হাকিমের মেয়ে।

রাজবাড়ী সদর থানা সূত্র জানায়, চুয়াডাঙ্গা জেলার বেগমপুর গ্রামের ভাঙ্গারী ব্যবসায়ী আহম্মেদ আলী মোল্লার সাথে বিয়ে হয়েছিল মমতাজ বেগমের। বিয়ের পর মমতাজ বেগম স্বামীকে নিয়ে তার বাবার বাড়ি রামনগর গ্রামেই বসবাস করছিলেন। ২০০২ সালের ১১ ডিসেম্বর তারিখে মমতাজ বেগমের স্বামী আহম্মেদ আলীর অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই মোহাম্মদ আলী ওই বছরের ১৯ ডিসেম্বর তারিখে মমতাজ বেগমসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে রাজবাড়ীর ১ নং আমলী আদালতে মামলা করেন। মামলাটি পরে রাজবাড়ী সদর থানায় রেকর্ড হয়। মামলার পর থেকেই  মমতাজ বেগম পলাতক ছিল। ২০০৮ সালের ১০ আগস্ট তারিখে রাজবাড়ী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক বেলায়েত হোসেন আসামি মমতাজকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদন্ড প্রদান করেন।

রাজবাড়ী সদর থানার এসআই হিরন কুমার বিশ^াস জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে মমতাজ বেগমকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে রাজবাড়ীর আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।