Dhaka ০২:৩৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চলন্ত বাস থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৭ সদস্য আটক

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৬:১৭:১৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১
  • / ১২১৬ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের একটি দল শনিবার সকালে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার পদ্মারমোড় নামক এলাকা থেকে ডাকাত দলের ৭ সদস্যকে আটক করেছে। আটকরা হলো মোঃ আব্দুল জলিল(৪০), পিতা-মৃত মুন্নাফ, সাং- কাউটিয়া, থানা- ঘেউর, মোঃ লিটন(২০), পিতা-মোঃ আহম্মদ আলী, সাং-কালই, মোঃ শেখ জুয়েল(২০), পিতা-শেখ গফুর, সাং-কুকুর হাটি, উভয় থানা-হরিরামপুর, জেলা-মানিকগঞ্জ, মোঃ মিলন মিয়া(২০), পিতা-মোঃ আতিয়ার রহমান, মোঃ পাপুল ইসলাম(২০), পিতা-মৃত মুকুল রহমান, উভয় সাং-কেশরগাড়ি, থানা-পলাশবাড়ি, জেলা-গাইবান্ধা, মোঃ শহিদুল ইসলাম(২০), পিতা-মোঃ আমিনুল ইসলাম, সাং-চতরা অনন্তপুর ও শ্রী উজ্জল চন্দ্র মহন্ত(২৪), পিতা-বিপীন চন্দ্র মহন্ত, সাং-চতরা অনন্তপুর, উভয় থানা-পীরগঞ্জ, জেলা-রংপুর। এসময় ২টি চাপাতি, ৪টি চাকু উদ্ধার করা হয়।
র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মো. রবিউল ইসলাম এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, গোয়ালন্দঘাট থানাধীন পদ্মার মোড় নামক ঢাকা মহাসড়কের উপর হতে চলন্ত বাসে ডাকাতি গ্রহনের প্রস্তুতের সময় ডাকাত দলের ০৭ জন সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৮এর ফরিদপুর ক্যাম্প। রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দঘাট থানাধীন ঢাকা মহাসড়কের উপর দীর্ঘদিন যাবৎ ডাকাত দলের সদস্যরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের পরিবহন বাসে ডাকাতি কার্যক্রম করে আসছে। এ বিষয়ে ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্প গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য গভীর অনুসন্ধান করে ১৩/০২/২০২১ইং তারিখ গভীর রাতে রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দঘাট থানাধীন ঢাকা মহাসড়কের উপর একে ট্রাভেলস নামক পরিবহন বাসে ডাকাতি করার প্রস্তুতের সময় ডাকাত দলের ৭ সদস্যকে আটক করে।
আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদ ও আসামীদের সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ করে জানা যায় যে, আসামীরা পেশাদার ডাকাত এবং ইতিপূর্বে তারা দেশের বিভিন্ন এলাকায় একাধিক ডাকাতি করেছে বলে স্বীকার করে। উল্লেখ্য যে, এই ডাকাত দলের সদস্য থাকে ৭-৮ জন, এদের মধ্যে অন্তর্ভূক্ত থাকে একজন প্রশিক্ষিত গাড়ী চালক সে প্রথমে ড্রাইভারকে অস্ত্রের মুখে রেখে গাড়ী নিজ নিয়ন্ত্রনে নেয় তারপর অস্ত্রের মুখে গাড়ীর যাত্রীদের নিকট হতে বিভিন্ন ধরনের মূল্যবান জিনিসপত্র যেমন, স্বর্ণ-অলংকার, টাকা-পয়সা, মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। এক্ষেত্রে যাত্রীরা কোন প্রতিরোধ করার চেষ্টা করলে অস্ত্র দিয়ে তাদেরকে আঘাত করতে দিধাবোধ করে না। তাদের জবানবন্দী থেকে আরো জানা যায় যে, তারা গত ১.৫ মাসে দেশের বিভিন্ন স্থানে ০৫ টি ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে। উদ্ধারকৃত আলামতসহ গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দঘাট থানায় ডাকাতি প্রস্তুত আইনে মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন আছে ও উক্ত চক্রের অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

চলন্ত বাস থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৭ সদস্য আটক

প্রকাশের সময় : ০৬:১৭:১৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১

জনতার আদালত অনলাইন ॥ র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের একটি দল শনিবার সকালে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার পদ্মারমোড় নামক এলাকা থেকে ডাকাত দলের ৭ সদস্যকে আটক করেছে। আটকরা হলো মোঃ আব্দুল জলিল(৪০), পিতা-মৃত মুন্নাফ, সাং- কাউটিয়া, থানা- ঘেউর, মোঃ লিটন(২০), পিতা-মোঃ আহম্মদ আলী, সাং-কালই, মোঃ শেখ জুয়েল(২০), পিতা-শেখ গফুর, সাং-কুকুর হাটি, উভয় থানা-হরিরামপুর, জেলা-মানিকগঞ্জ, মোঃ মিলন মিয়া(২০), পিতা-মোঃ আতিয়ার রহমান, মোঃ পাপুল ইসলাম(২০), পিতা-মৃত মুকুল রহমান, উভয় সাং-কেশরগাড়ি, থানা-পলাশবাড়ি, জেলা-গাইবান্ধা, মোঃ শহিদুল ইসলাম(২০), পিতা-মোঃ আমিনুল ইসলাম, সাং-চতরা অনন্তপুর ও শ্রী উজ্জল চন্দ্র মহন্ত(২৪), পিতা-বিপীন চন্দ্র মহন্ত, সাং-চতরা অনন্তপুর, উভয় থানা-পীরগঞ্জ, জেলা-রংপুর। এসময় ২টি চাপাতি, ৪টি চাকু উদ্ধার করা হয়।
র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মো. রবিউল ইসলাম এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, গোয়ালন্দঘাট থানাধীন পদ্মার মোড় নামক ঢাকা মহাসড়কের উপর হতে চলন্ত বাসে ডাকাতি গ্রহনের প্রস্তুতের সময় ডাকাত দলের ০৭ জন সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৮এর ফরিদপুর ক্যাম্প। রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দঘাট থানাধীন ঢাকা মহাসড়কের উপর দীর্ঘদিন যাবৎ ডাকাত দলের সদস্যরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের পরিবহন বাসে ডাকাতি কার্যক্রম করে আসছে। এ বিষয়ে ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্প গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য গভীর অনুসন্ধান করে ১৩/০২/২০২১ইং তারিখ গভীর রাতে রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দঘাট থানাধীন ঢাকা মহাসড়কের উপর একে ট্রাভেলস নামক পরিবহন বাসে ডাকাতি করার প্রস্তুতের সময় ডাকাত দলের ৭ সদস্যকে আটক করে।
আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদ ও আসামীদের সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ করে জানা যায় যে, আসামীরা পেশাদার ডাকাত এবং ইতিপূর্বে তারা দেশের বিভিন্ন এলাকায় একাধিক ডাকাতি করেছে বলে স্বীকার করে। উল্লেখ্য যে, এই ডাকাত দলের সদস্য থাকে ৭-৮ জন, এদের মধ্যে অন্তর্ভূক্ত থাকে একজন প্রশিক্ষিত গাড়ী চালক সে প্রথমে ড্রাইভারকে অস্ত্রের মুখে রেখে গাড়ী নিজ নিয়ন্ত্রনে নেয় তারপর অস্ত্রের মুখে গাড়ীর যাত্রীদের নিকট হতে বিভিন্ন ধরনের মূল্যবান জিনিসপত্র যেমন, স্বর্ণ-অলংকার, টাকা-পয়সা, মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। এক্ষেত্রে যাত্রীরা কোন প্রতিরোধ করার চেষ্টা করলে অস্ত্র দিয়ে তাদেরকে আঘাত করতে দিধাবোধ করে না। তাদের জবানবন্দী থেকে আরো জানা যায় যে, তারা গত ১.৫ মাসে দেশের বিভিন্ন স্থানে ০৫ টি ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে। উদ্ধারকৃত আলামতসহ গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দঘাট থানায় ডাকাতি প্রস্তুত আইনে মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন আছে ও উক্ত চক্রের অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।