Dhaka ০৮:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বালিয়াকান্দিতে চুরির অভিযোগে ৫ যুবককে নির্যাতনের অভিযোগ

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:১৬:৫৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১
  • / ১২৯৮ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের বারাদী গ্রামে চুরির অভিযোগে পাঁচ যুবককে নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার আটক পাঁচ যুবককে বালিয়াকান্দি থানার পুলিশ থানা হেফাজতে নেয়। তারা হলো মিজানুর রহমান, সবুজ খান, আলেক সরদার, রেজাউল ইসলাম ও আরজু মন্ডল। এদের সবার বাড়ি একই গ্রামে। ওই গ্রামের আফসার মন্ডল তাদেরকে রাতভর নির্যাতন করেছে বলে জানা গেছে।

আফসার মন্ডলের দাবি, বুধবার রাতে কোরআন মাহফিলে শরিক হতে বাড়ির সবাই পাশর্^বর্তী মসজিদে  যায়। রাত ১০টার দিকে তার ছেলে সাগর বাড়ি ফেরার সময় মিজানের সন্দেহজনক গতিবিধি দেখে তাকে ধরে ফেলে। পরে মিজান তার সহযোগী চারজনের নাম বলে দেওয়ায় তাদেরকে বাড়ি থেকে ধরে আনা হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে পাঁচজনকেই পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ওরা তার বাড়ি থেকে টাকা ও স্বর্ণালংকার চুরি করেছে বলে জানান তিনি।

তবে অভিযুক্ত মিজানুর রহমানের দাবি, সে ওই বাড়ির পেছনে বসে মাদক সেবন করছিলো। এজন্য তাকে ধরে মারধর করায় ভয়ে অপর চারজনের নাম বলেছে।

আলেক সরদার জানায়, সে মিষ্টির কাজ করে। অথচ বাড়ি থেকে ডেকে এনে চুরির অভিযোগে তাকে মারধর করেছে। সবুজ খানের বাবা বরকত আলী খান অভিযোগ করে বলেন, রাত দুইটার দিকে আমার বাড়ি থেকে ছেলেকে ডেকে নিয়ে চোর অপবাদ দিয়ে রশি দিয়ে বেঁধে রেখে নির্যাতন চালিয়েছে।

বালিয়াকান্দি থানার ওসি তারেকজ্জামান জানান, চুরির অভিযোগে এলাকাবাসী পাঁচজনকে আটক করে। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদেরকে থানায় আনা হয়েছে। এব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে। পাঁচজনের মধ্যে একজন চুরির সাথে জড়িত নাও থাকতে পারে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

বালিয়াকান্দিতে চুরির অভিযোগে ৫ যুবককে নির্যাতনের অভিযোগ

প্রকাশের সময় : ০৭:১৬:৫৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের বারাদী গ্রামে চুরির অভিযোগে পাঁচ যুবককে নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার আটক পাঁচ যুবককে বালিয়াকান্দি থানার পুলিশ থানা হেফাজতে নেয়। তারা হলো মিজানুর রহমান, সবুজ খান, আলেক সরদার, রেজাউল ইসলাম ও আরজু মন্ডল। এদের সবার বাড়ি একই গ্রামে। ওই গ্রামের আফসার মন্ডল তাদেরকে রাতভর নির্যাতন করেছে বলে জানা গেছে।

আফসার মন্ডলের দাবি, বুধবার রাতে কোরআন মাহফিলে শরিক হতে বাড়ির সবাই পাশর্^বর্তী মসজিদে  যায়। রাত ১০টার দিকে তার ছেলে সাগর বাড়ি ফেরার সময় মিজানের সন্দেহজনক গতিবিধি দেখে তাকে ধরে ফেলে। পরে মিজান তার সহযোগী চারজনের নাম বলে দেওয়ায় তাদেরকে বাড়ি থেকে ধরে আনা হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে পাঁচজনকেই পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ওরা তার বাড়ি থেকে টাকা ও স্বর্ণালংকার চুরি করেছে বলে জানান তিনি।

তবে অভিযুক্ত মিজানুর রহমানের দাবি, সে ওই বাড়ির পেছনে বসে মাদক সেবন করছিলো। এজন্য তাকে ধরে মারধর করায় ভয়ে অপর চারজনের নাম বলেছে।

আলেক সরদার জানায়, সে মিষ্টির কাজ করে। অথচ বাড়ি থেকে ডেকে এনে চুরির অভিযোগে তাকে মারধর করেছে। সবুজ খানের বাবা বরকত আলী খান অভিযোগ করে বলেন, রাত দুইটার দিকে আমার বাড়ি থেকে ছেলেকে ডেকে নিয়ে চোর অপবাদ দিয়ে রশি দিয়ে বেঁধে রেখে নির্যাতন চালিয়েছে।

বালিয়াকান্দি থানার ওসি তারেকজ্জামান জানান, চুরির অভিযোগে এলাকাবাসী পাঁচজনকে আটক করে। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদেরকে থানায় আনা হয়েছে। এব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে। পাঁচজনের মধ্যে একজন চুরির সাথে জড়িত নাও থাকতে পারে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।