Dhaka 4:26 pm, Wednesday, 8 February 2023

জমকালো আয়োজনে দৈনিক জনতার আদালতের ১০ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর পালন

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 11:29:47 am, Monday, 28 December 2020
  • / 1471 জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ দৈনিক জনতার আদালতের দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর জমকালো আয়োজনে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, বাংলাদেশে সংবাদপত্র ও গণমাধ্যমের অবাধ স্বাধীনতা নিশ্চিত করা হয়েছে। তথ্য অধিকার আইনের মাধ্যমে যে কোনো মানুষ যে কোন সময় তথ্য পেতে পারেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করতে সবকিছু করেছেন।

রোববার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে দৈনিক জনতার আদালতের দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভা ও সাংবাদিক সম্মাননা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী দৈনিক জনতার আদালতের দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে  পত্রিকার সম্পাদক,  প্রকাশক সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জনিয়ে বলেন, দৈনিক জনতার আদালত তার চলার পথে আমাকে সাথী করে কৃতজ্ঞতার নাগপাশে আবদ্ধ করেছে। যখন দৈনিক জনতার আদালতের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হচ্ছে তখন স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি যারা জঙ্গীবাদ মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টি করতে চায়, যারা ৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি। সেই অপশক্তি বাংলাদেশে আজও সক্রিয়। এই অপশক্তি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে আঘাত হানার দুঃসাহস দেখিয়েছে। এরা ধর্মীয় লেবাসধারী উগ্র সাম্প্রদায়িকতা ছড়িয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করে তুলতে চায়। দৈনিক জনতার আদালত সহ সকল মিডিয়ার কাছে উদাত্ত আহ্বান, এই অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে তাদের বিষদাঁত ভেঙে দিতে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সংবাদপত্রকে রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ হিসেবে গণ্য করা হয়। গণমাধ্যমের মধ্য দিয়ে একটি দেশের সামগ্রীক চিত্র বিশে^র দরবাওে উপস্থাপন করা যায়।

বাংলাদেশ সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, সকল সূচকে বাংলাদেশ এগিয়েছে। আরও এগিয়ে যাবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ, সাধারণ সম্পাদক অ্যড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক স ম গোলাম কিবরিয়া।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কৃষিবিদ সমীর চন্দ বলেন,জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছাত্রজীবনে সাংবাদিকতা করতেন। যা অনেকেই জানেন না। কলকাতা ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালীন তিনি সাংবাদিকতার মাধ্যমে সমাজের চিত্র তুলে ধরেছেন। দৈনিক জনতার আদালত যেন সত্যের কণ্ঠস্বর হয়।  তাহলেই  জনতার আদালত একদিন সমাজের দর্পণ হয়ে উঠবে। তাহলে বঙ্গবন্ধুর আত্মা শান্তি পাবে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মধ্য দিয়েই একটি পত্রিকা জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।

অ্যড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি দৈনিক জনতার আদালতের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশে এখন দুটি পক্ষ। স্বাধীনতার পক্ষে এবং বিপক্ষে। বিপক্ষ শক্তি আজ গলাবাজি করছে। এমনভাবে তাদের উপস্থাপন করছে যা দুঃখজনক। দৈনিক জনতার আদালত ও মিডিয়ার কাছে আহ্বান ওরা যেন আর ষড়যন্ত্র করতে না পারে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন দৈনিক জনতার আদালতের সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দিকী হক। বক্তৃতায় তিনি বলেন, অনেক প্রতিকূল পরিস্থিতি অতিক্রম করে দৈনিক জনতার আদালত পত্রিকা প্রকাশ করেছিলাম। ২০১০ সালে যখন পত্রিকা প্রকাশের উদ্যোগ নেই তখন অনেকেই বাধা দিয়েছিল বিরোধীতা করেছিল। নানা ঘাত প্রতিঘাত পেরিয়ে পত্রিকাটি প্রকাশে সক্ষম হয়েছিলাম। আমার ইচ্ছে ছিল সামগ্রিক চিত্র ফুটে উঠবে পত্রিকার মাধ্যমে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মধ্য দিয়ে আমরা সে চেষ্টা করে যাচ্ছি। একটি পত্রিকা প্রকাশ অনেক ব্যয়বহুল। যেকারণে ইচ্ছে থাকা সত্বেও জাতীয়ভাবে নিয়ে যেতে পারছিনা। সকলের সহযোগিতা পেলে আমরা এগিয়ে যেতে চাই।

চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক স ম গোলাম কিবরিয়া বলেন, একটি পত্রিকা ও দশ বছর পূর্তি একটি আনন্দময় বিষয়। পত্রিকার সাথে সংশ্লিষ্ঠ সবাইকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।

সভায় অন্যদের  মাঝে বক্তৃতা করেন, দৈনিক বাংলা একাত্তরের সম্পাদক প্রবীর শিকদার, গোপালগঞ্জ কৃষকলীগের সাধারণ স¤পাদক আব্দুর রহমান, অ্যড. শেখ জামাল হোসেন মুন্না, সেলিনা আক্তার মনতাজ, ইসমাইল শিকদার, হাদী নিশান, আসমা জাহান অনিমা, সাইফুল ইসলাম, জিল্লুর রহমান রাজন, এমএ মান্নান, নকীবুজ্জামান, মিজানুর রহমান, মানিক লাল ঘোষ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের নির্বাহী সম্পাদক শহিদুজ্জামান খান ও যমুনা টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার রিমন রহমানকে ক্রেস্ট ও উত্তরীয় পরিয়ে সম্মাননা জানানো হয়।

সভার শুরুতে অতিথিবৃন্দকে ফুল ও ক্রেস্ট উপহার দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। দৈনিক জনতার আদালত পত্রিকার প্রকাশক ফারহানা রশিদ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন দৈনিক জনতার আদালতের নির্বাহী সম্পাদক সৈৗমিত্র শীল ও কৃষকলীগ নেতা নুরুল ইসলাম বাদশা।

পরে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করেন অতিথিবৃন্দসহ সবাই।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

জমকালো আয়োজনে দৈনিক জনতার আদালতের ১০ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর পালন

প্রকাশের সময় : 11:29:47 am, Monday, 28 December 2020

জনতার আদালত অনলাইন ॥ দৈনিক জনতার আদালতের দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর জমকালো আয়োজনে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, বাংলাদেশে সংবাদপত্র ও গণমাধ্যমের অবাধ স্বাধীনতা নিশ্চিত করা হয়েছে। তথ্য অধিকার আইনের মাধ্যমে যে কোনো মানুষ যে কোন সময় তথ্য পেতে পারেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করতে সবকিছু করেছেন।

রোববার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে দৈনিক জনতার আদালতের দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভা ও সাংবাদিক সম্মাননা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী দৈনিক জনতার আদালতের দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে  পত্রিকার সম্পাদক,  প্রকাশক সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জনিয়ে বলেন, দৈনিক জনতার আদালত তার চলার পথে আমাকে সাথী করে কৃতজ্ঞতার নাগপাশে আবদ্ধ করেছে। যখন দৈনিক জনতার আদালতের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হচ্ছে তখন স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি যারা জঙ্গীবাদ মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টি করতে চায়, যারা ৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি। সেই অপশক্তি বাংলাদেশে আজও সক্রিয়। এই অপশক্তি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে আঘাত হানার দুঃসাহস দেখিয়েছে। এরা ধর্মীয় লেবাসধারী উগ্র সাম্প্রদায়িকতা ছড়িয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করে তুলতে চায়। দৈনিক জনতার আদালত সহ সকল মিডিয়ার কাছে উদাত্ত আহ্বান, এই অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে তাদের বিষদাঁত ভেঙে দিতে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সংবাদপত্রকে রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ হিসেবে গণ্য করা হয়। গণমাধ্যমের মধ্য দিয়ে একটি দেশের সামগ্রীক চিত্র বিশে^র দরবাওে উপস্থাপন করা যায়।

বাংলাদেশ সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, সকল সূচকে বাংলাদেশ এগিয়েছে। আরও এগিয়ে যাবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ, সাধারণ সম্পাদক অ্যড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক স ম গোলাম কিবরিয়া।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কৃষিবিদ সমীর চন্দ বলেন,জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছাত্রজীবনে সাংবাদিকতা করতেন। যা অনেকেই জানেন না। কলকাতা ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালীন তিনি সাংবাদিকতার মাধ্যমে সমাজের চিত্র তুলে ধরেছেন। দৈনিক জনতার আদালত যেন সত্যের কণ্ঠস্বর হয়।  তাহলেই  জনতার আদালত একদিন সমাজের দর্পণ হয়ে উঠবে। তাহলে বঙ্গবন্ধুর আত্মা শান্তি পাবে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মধ্য দিয়েই একটি পত্রিকা জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।

অ্যড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি দৈনিক জনতার আদালতের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশে এখন দুটি পক্ষ। স্বাধীনতার পক্ষে এবং বিপক্ষে। বিপক্ষ শক্তি আজ গলাবাজি করছে। এমনভাবে তাদের উপস্থাপন করছে যা দুঃখজনক। দৈনিক জনতার আদালত ও মিডিয়ার কাছে আহ্বান ওরা যেন আর ষড়যন্ত্র করতে না পারে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন দৈনিক জনতার আদালতের সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দিকী হক। বক্তৃতায় তিনি বলেন, অনেক প্রতিকূল পরিস্থিতি অতিক্রম করে দৈনিক জনতার আদালত পত্রিকা প্রকাশ করেছিলাম। ২০১০ সালে যখন পত্রিকা প্রকাশের উদ্যোগ নেই তখন অনেকেই বাধা দিয়েছিল বিরোধীতা করেছিল। নানা ঘাত প্রতিঘাত পেরিয়ে পত্রিকাটি প্রকাশে সক্ষম হয়েছিলাম। আমার ইচ্ছে ছিল সামগ্রিক চিত্র ফুটে উঠবে পত্রিকার মাধ্যমে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মধ্য দিয়ে আমরা সে চেষ্টা করে যাচ্ছি। একটি পত্রিকা প্রকাশ অনেক ব্যয়বহুল। যেকারণে ইচ্ছে থাকা সত্বেও জাতীয়ভাবে নিয়ে যেতে পারছিনা। সকলের সহযোগিতা পেলে আমরা এগিয়ে যেতে চাই।

চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক স ম গোলাম কিবরিয়া বলেন, একটি পত্রিকা ও দশ বছর পূর্তি একটি আনন্দময় বিষয়। পত্রিকার সাথে সংশ্লিষ্ঠ সবাইকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।

সভায় অন্যদের  মাঝে বক্তৃতা করেন, দৈনিক বাংলা একাত্তরের সম্পাদক প্রবীর শিকদার, গোপালগঞ্জ কৃষকলীগের সাধারণ স¤পাদক আব্দুর রহমান, অ্যড. শেখ জামাল হোসেন মুন্না, সেলিনা আক্তার মনতাজ, ইসমাইল শিকদার, হাদী নিশান, আসমা জাহান অনিমা, সাইফুল ইসলাম, জিল্লুর রহমান রাজন, এমএ মান্নান, নকীবুজ্জামান, মিজানুর রহমান, মানিক লাল ঘোষ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের নির্বাহী সম্পাদক শহিদুজ্জামান খান ও যমুনা টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার রিমন রহমানকে ক্রেস্ট ও উত্তরীয় পরিয়ে সম্মাননা জানানো হয়।

সভার শুরুতে অতিথিবৃন্দকে ফুল ও ক্রেস্ট উপহার দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। দৈনিক জনতার আদালত পত্রিকার প্রকাশক ফারহানা রশিদ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন দৈনিক জনতার আদালতের নির্বাহী সম্পাদক সৈৗমিত্র শীল ও কৃষকলীগ নেতা নুরুল ইসলাম বাদশা।

পরে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করেন অতিথিবৃন্দসহ সবাই।