Dhaka ০৫:৫৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে শিশু ধর্ষণ মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৬:৪৮:৪৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০২০
  • / ১৩৩০ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীতে শিশু ধর্ষণ মামলায় দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার দুপুরে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতের বিচারক শারমিন নিগার এ রায় দেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হলো রাজবাড়ী সদর উপজেলার চর শিবরামপুর এলাকার আফজাল মোল্লার ছেলে মিলন মোল্লা ও একই এলাকার আয়নাল প্রামানিকের ছেলে রেজাউল প্রামানিক।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালের ১ ফেবুয়ারী তারিখে ওই শিশু বাড়ির পাশে ভুট্টা ক্ষেতে ঘাস কাটতে যায়। এসময় মিলন মোল্লা ও রেজাউল প্রামানিক তাকে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরদিন শিশুটি অসুস্থ হয়ে পরলে তার মায়ের কাছে সব কিছু খুলে বলে। ওইদিনই তার মা বাদী হয়ে রাজবাড়ী সদর থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দেন। মামলার দীর্ঘ শুনানী শেষে আদালতের বিচারক আসামিদের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করেন। বাদীপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতের পিপি অ্যড. উমা সেন।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীতে শিশু ধর্ষণ মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

প্রকাশের সময় : ০৬:৪৮:৪৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীতে শিশু ধর্ষণ মামলায় দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার দুপুরে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতের বিচারক শারমিন নিগার এ রায় দেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হলো রাজবাড়ী সদর উপজেলার চর শিবরামপুর এলাকার আফজাল মোল্লার ছেলে মিলন মোল্লা ও একই এলাকার আয়নাল প্রামানিকের ছেলে রেজাউল প্রামানিক।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালের ১ ফেবুয়ারী তারিখে ওই শিশু বাড়ির পাশে ভুট্টা ক্ষেতে ঘাস কাটতে যায়। এসময় মিলন মোল্লা ও রেজাউল প্রামানিক তাকে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরদিন শিশুটি অসুস্থ হয়ে পরলে তার মায়ের কাছে সব কিছু খুলে বলে। ওইদিনই তার মা বাদী হয়ে রাজবাড়ী সদর থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দেন। মামলার দীর্ঘ শুনানী শেষে আদালতের বিচারক আসামিদের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করেন। বাদীপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতের পিপি অ্যড. উমা সেন।