Dhaka ০৪:৪৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারায়ণপুর মহাশ্মশানের জায়গা দখলমুক্ত করার দাবী

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:১০:৩০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২০
  • / ১২৩২ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ঃ রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামে অবস্থিত সনাতন ধর্মাবল¤ী^দের মরদেহ সৎকারের জন্য ব্যবহৃত স্থান নারায়ণপুর মহাশ্মশানের জায়গা পূনরায় দখলকারীর হাত থেকে উদ্ধার করতে গত ২ ডিসেম্বর জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেছেন মহাশ্মশান কমিটির সভাপতি সুনীল কুমার ঘোষ।

অভিযোগে প্রকাশ, উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের নারায়ণপুর মহাশ্মশানের জায়গা ইতিপূর্বে জবর দখল করে পাকা কংক্রিটের স্থাপনা তৈরী করতে গেলে তৎকালিন জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় উপজেলা প্রশাসন উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে স্থাপনা উচ্ছেদ করে। দীর্ঘদিন যাবৎ জায়গাটি খালি থাকার পর  আব্দুল মালেক শেখ পূনরায় জায়গাটি দখল করতে যায়। সেদিনও উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় ইসলামপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিস সরেজমিনে গিয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়। কিন্তু মালেক শেখ শ্মশানের সামনে বাঁশের কুঞ্চি দিয়ে বেড়া দিয়ে ভিতরে একচালা ঘর নির্মাণ করেছে।

অভিযোগকারী আরও বলেন, কংক্রিটের স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে কংক্রিটের স্থাপনা গুড়িয়ে দেয় উপজেলা প্রশাসন। সে কারনে উপজেলা প্রশাসনকে কিছু দায় না রেখে স্থাণীয় চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ বেশ কয়েকজন সাধারন মানুষদের বিরুদ্ধে ভাংচুর ও লুটপাটের মামলা করে। মামলার বিবিদী প্রত্যেকেই সমাজে প্রতিষ্ঠিত। লুটপাটের যে মামলা দিয়েছে তা অযৌক্তিক। মামলা দিয়েই ক্ষ্যান্ত নয় শুধু আব্দুল মালেক নারায়ণপুর মহাশ্মশানের জায়গা পূনরায় জবর দখল করেছে। এব্যাপারে জেলা প্রশাসকের নিকট আবেদন দিয়েছেন মহাশ্মশান কমিটির সভাপতি সুনীল কুমার ঘোষ।

বালিয়াকান্দি উপজেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের এস,ও মাহমুদুল হাসান বলেন, ওই জমিটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের। তবে কাউকে লীজ প্রদান করা হয়নি। কেউ দখল করলে বিষয়টি খোজ নিয়ে দেখছি।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

নারায়ণপুর মহাশ্মশানের জায়গা দখলমুক্ত করার দাবী

প্রকাশের সময় : ০৭:১০:৩০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ঃ রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামে অবস্থিত সনাতন ধর্মাবল¤ী^দের মরদেহ সৎকারের জন্য ব্যবহৃত স্থান নারায়ণপুর মহাশ্মশানের জায়গা পূনরায় দখলকারীর হাত থেকে উদ্ধার করতে গত ২ ডিসেম্বর জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেছেন মহাশ্মশান কমিটির সভাপতি সুনীল কুমার ঘোষ।

অভিযোগে প্রকাশ, উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের নারায়ণপুর মহাশ্মশানের জায়গা ইতিপূর্বে জবর দখল করে পাকা কংক্রিটের স্থাপনা তৈরী করতে গেলে তৎকালিন জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় উপজেলা প্রশাসন উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে স্থাপনা উচ্ছেদ করে। দীর্ঘদিন যাবৎ জায়গাটি খালি থাকার পর  আব্দুল মালেক শেখ পূনরায় জায়গাটি দখল করতে যায়। সেদিনও উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় ইসলামপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিস সরেজমিনে গিয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়। কিন্তু মালেক শেখ শ্মশানের সামনে বাঁশের কুঞ্চি দিয়ে বেড়া দিয়ে ভিতরে একচালা ঘর নির্মাণ করেছে।

অভিযোগকারী আরও বলেন, কংক্রিটের স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে কংক্রিটের স্থাপনা গুড়িয়ে দেয় উপজেলা প্রশাসন। সে কারনে উপজেলা প্রশাসনকে কিছু দায় না রেখে স্থাণীয় চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ বেশ কয়েকজন সাধারন মানুষদের বিরুদ্ধে ভাংচুর ও লুটপাটের মামলা করে। মামলার বিবিদী প্রত্যেকেই সমাজে প্রতিষ্ঠিত। লুটপাটের যে মামলা দিয়েছে তা অযৌক্তিক। মামলা দিয়েই ক্ষ্যান্ত নয় শুধু আব্দুল মালেক নারায়ণপুর মহাশ্মশানের জায়গা পূনরায় জবর দখল করেছে। এব্যাপারে জেলা প্রশাসকের নিকট আবেদন দিয়েছেন মহাশ্মশান কমিটির সভাপতি সুনীল কুমার ঘোষ।

বালিয়াকান্দি উপজেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের এস,ও মাহমুদুল হাসান বলেন, ওই জমিটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের। তবে কাউকে লীজ প্রদান করা হয়নি। কেউ দখল করলে বিষয়টি খোজ নিয়ে দেখছি।