Dhaka ০৭:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে ১৫ জেলের জেল জরিমানা

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:০২:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ নভেম্বর ২০২০
  • / ১২৬৮ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ সরকারী নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে নদীতে অবৈধ ভাবে কারেন্ট জাল দিয়ে ইলিশ ধরার অপরাধে ১৫ জেলেকে আটকের পর বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। পদ্মার সদর উপজেলার অন্তারমোড়, গোদার বাজার ,জৌকুড়া ও ধাওয়াপাড়া,গোয়ালন্দ ও পাংশা সহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ১৫ জলেরে ৮ জনকে ৫দিন, ৩ জেলেকে ৭দিন, ১ জেলেকে ৩দিন কারাদন্ড ও ৩ জেলেকে ৬ হাজার টাকা  জরিমানা প্রদান করা হয়। অপর ১ জনকে অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় মুচলেকায় ছাড় দেওয়া হয়। এসময় ৩০ হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও ৫৮ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়। জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয় এবং মাছ গুলো বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিম খানা ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে বিতরন করা হয়। ইলিশের প্রজনন বিস্তারে ইলিশ সংরক্ষন অভিযান চলবে আগামী ৪ নভেম্বর পর্যন্ত।

গত ২৪ ঘন্টায় শনিবার বিকাল থেকে রবিবার সকাল পর্যন্ত সদর উপজেলা ,পাংশা ও গোয়ালন্দ পদ্মার বিভিন্ন অংশে অভিযান চালিয়ে ১৫ জেলেকে আটক করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৮ জেলেকে ৫ দিন, ৩ জনকে ৭দিন, ১ জনকে ৩ দিন কারাদন্ড ও ৩ জেলেকে ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।  এসময় নদীর বিভিন্ন স্থান থেকে মাছ শিকারের অবৈধ  ৩০ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল এবং ৫৮ কেজি ইলিশ জব্দ করা হয়। জাল গুলো পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে এবং মাছ বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিম খানায় ও অসহায়দের মাঝে বিতরন করা হয়েছে। মৎস্য সংরক্ষন আইন ২০১৮ সালের অধ্যাদেশ (১৮৮) ধারায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে এ রায় দিয়েছেন গোয়ালন্দ এসিল্যান্ড মোঃ রফিকুল ইসলাম, এনডিসি মোঃ সাইফুল হুদা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আসাদুজ্জামান।

ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে ইলিশ সংরক্ষন অভিযান পরিচালনায় অংশ নেন রাজবাড়ী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা জয়দেব পাল,সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ রোকনুজ্জামান। সদর থানার পুলিশ সদস্য এবং আনসার ব্যাটালিয়নের সদস্যদের সহযোগীতায় এ অভিযানে পরিচালনা করা হয়।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীতে ১৫ জেলের জেল জরিমানা

প্রকাশের সময় : ০৭:০২:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১ নভেম্বর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ সরকারী নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে নদীতে অবৈধ ভাবে কারেন্ট জাল দিয়ে ইলিশ ধরার অপরাধে ১৫ জেলেকে আটকের পর বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। পদ্মার সদর উপজেলার অন্তারমোড়, গোদার বাজার ,জৌকুড়া ও ধাওয়াপাড়া,গোয়ালন্দ ও পাংশা সহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ১৫ জলেরে ৮ জনকে ৫দিন, ৩ জেলেকে ৭দিন, ১ জেলেকে ৩দিন কারাদন্ড ও ৩ জেলেকে ৬ হাজার টাকা  জরিমানা প্রদান করা হয়। অপর ১ জনকে অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় মুচলেকায় ছাড় দেওয়া হয়। এসময় ৩০ হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও ৫৮ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়। জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয় এবং মাছ গুলো বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিম খানা ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে বিতরন করা হয়। ইলিশের প্রজনন বিস্তারে ইলিশ সংরক্ষন অভিযান চলবে আগামী ৪ নভেম্বর পর্যন্ত।

গত ২৪ ঘন্টায় শনিবার বিকাল থেকে রবিবার সকাল পর্যন্ত সদর উপজেলা ,পাংশা ও গোয়ালন্দ পদ্মার বিভিন্ন অংশে অভিযান চালিয়ে ১৫ জেলেকে আটক করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৮ জেলেকে ৫ দিন, ৩ জনকে ৭দিন, ১ জনকে ৩ দিন কারাদন্ড ও ৩ জেলেকে ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।  এসময় নদীর বিভিন্ন স্থান থেকে মাছ শিকারের অবৈধ  ৩০ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল এবং ৫৮ কেজি ইলিশ জব্দ করা হয়। জাল গুলো পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে এবং মাছ বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিম খানায় ও অসহায়দের মাঝে বিতরন করা হয়েছে। মৎস্য সংরক্ষন আইন ২০১৮ সালের অধ্যাদেশ (১৮৮) ধারায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে এ রায় দিয়েছেন গোয়ালন্দ এসিল্যান্ড মোঃ রফিকুল ইসলাম, এনডিসি মোঃ সাইফুল হুদা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আসাদুজ্জামান।

ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে ইলিশ সংরক্ষন অভিযান পরিচালনায় অংশ নেন রাজবাড়ী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা জয়দেব পাল,সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ রোকনুজ্জামান। সদর থানার পুলিশ সদস্য এবং আনসার ব্যাটালিয়নের সদস্যদের সহযোগীতায় এ অভিযানে পরিচালনা করা হয়।