Dhaka ১০:৫৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাংশায় ভুয়া ডাক্তারের এক লাখ টাকা জরিমানা

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:৪২:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ অক্টোবর ২০২০
  • / ১৩৪৯ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর পাংশায় ডাক্তার না হয়েও নামের পাশে ‘ডাক্তার’ লিখে দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে রোগী দেখে ব্যবস্থাপত্র দিয়ে আসছিলেন দীপেন্দ্রনাথ দাস নামে এক ব্যক্তি। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের একটি দল ও র‌্যাবÑ৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের সদস্যরা অভিযান চালিয়ে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করে। এসময় ব্যবস্থাপত্রের সকল  প্যাড জব্দ করা হয়। রাজবাড়ীর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আরিফুজ্জামান ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

জানা গেছে, চিকিৎসা বিষয়ে দীপেন্দ্র নাথ দাসের প্রাতিষ্ঠানিক কোনো ডিগ্রী না থাকলেও পাংশার রেলস্টেশন সংলগ্ন মৌসুমী মেডিকেল হলে চেম্বার খুলে নিয়মিত রোগী দেখতেন তিনি। প্রতিদিন ৭০ থেকে ৮০ জন রোগী দেখে ব্যবস্থাপত্রও দিতেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে তিনি স্বীকার করেছেন শুধুমাত্র পল্লী চিকিৎসকের নয় মাসের একটি  কোর্স করেছেন তিনি।

র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার দেবাশীষ কর্মকার জানান, এ অভিযানে তারা সহযোগিতা করেছেন।

রাজবাড়ীর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার মোহাম্মদ আরিফুজ্জামান জানান, সম্পূর্ণ অবৈধভাবে ওই ব্যক্তি রোগী দেখে ব্যবস্থাপত্র দিচ্ছিলেন। যেসব ওষুধ সাধারণত বড়দের দেয়া  হয়না। তিনি সেসব এন্টিবায়োটিক  ওষুধ শিশুদের  প্রেসক্রাইব করতেন। নামের আগে ডাক্তার শব্দটিও ব্যবহার করতেন। এসব কারণে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

পাংশায় ভুয়া ডাক্তারের এক লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশের সময় : ০৭:৪২:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ অক্টোবর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর পাংশায় ডাক্তার না হয়েও নামের পাশে ‘ডাক্তার’ লিখে দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে রোগী দেখে ব্যবস্থাপত্র দিয়ে আসছিলেন দীপেন্দ্রনাথ দাস নামে এক ব্যক্তি। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের একটি দল ও র‌্যাবÑ৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের সদস্যরা অভিযান চালিয়ে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করে। এসময় ব্যবস্থাপত্রের সকল  প্যাড জব্দ করা হয়। রাজবাড়ীর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আরিফুজ্জামান ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

জানা গেছে, চিকিৎসা বিষয়ে দীপেন্দ্র নাথ দাসের প্রাতিষ্ঠানিক কোনো ডিগ্রী না থাকলেও পাংশার রেলস্টেশন সংলগ্ন মৌসুমী মেডিকেল হলে চেম্বার খুলে নিয়মিত রোগী দেখতেন তিনি। প্রতিদিন ৭০ থেকে ৮০ জন রোগী দেখে ব্যবস্থাপত্রও দিতেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে তিনি স্বীকার করেছেন শুধুমাত্র পল্লী চিকিৎসকের নয় মাসের একটি  কোর্স করেছেন তিনি।

র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার দেবাশীষ কর্মকার জানান, এ অভিযানে তারা সহযোগিতা করেছেন।

রাজবাড়ীর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার মোহাম্মদ আরিফুজ্জামান জানান, সম্পূর্ণ অবৈধভাবে ওই ব্যক্তি রোগী দেখে ব্যবস্থাপত্র দিচ্ছিলেন। যেসব ওষুধ সাধারণত বড়দের দেয়া  হয়না। তিনি সেসব এন্টিবায়োটিক  ওষুধ শিশুদের  প্রেসক্রাইব করতেন। নামের আগে ডাক্তার শব্দটিও ব্যবহার করতেন। এসব কারণে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।