Dhaka ০৮:৫০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে আড়াই মাস ধরে নিখোঁজ এক গৃহবধূ ॥ স্বামীসহ ২ জনের বিরুদ্ধে মামলা

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৬:৩৮:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
  • / ১৩৪২ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীতে আড়াই মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে রেজাবুন্নেছা খুকু মনি  নামে এক গৃহবধূ। এঘটনায় তার বড় বোন জাহানারা বেগম বাদী হয়ে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে গৃহবধূর স্বামী রিয়াজুল ইসলাম মিল্টন ও  ভাবি  রীপা বেগমকে আসামি করে গত ১৭ আগস্ট তারিখে মামলা করেছেন। আদালত মামলাটি রেকর্ডের জন্য রাজবাড়ী সদর থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন। আসামিদের বাড়ি রাজবাড়ী পৌর এলাকার কলেজপাড়ায়। গত ২৪ জুন থেকে নিখোঁজ রয়েছেন গৃহবধূ খুকুমনি।

জানা গেছে, প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে ২০০৬ সালের ১৯ জুন তারিখে সজ্জনকান্দা গ্রামের জয়নাল আবেদিনের মেয়ে  খুকুমনির বিয়ে হয় কলেজপাড়া গ্রামের আদিল মিয়ার ছেলে রিয়াজুল ইসলাম মিল্টনের সাথে। তাদের সংসারে তুবা নামে ১১ বছর বয়সী এক মেয়ে রয়েছে।

বাদী মামলায় অভিযোগ করেছেন, বিয়ের পরপরই মিল্টন তাদের কাছে পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। যৌতুক না দেয়ায় তার বোনকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। গত ২৪ জুন তারিখ রাত ১২টার দিকে অজ্ঞাত একটি নাম্বার থেকে মোবাইল ফোনে তাকে জানানো হয়, আসামিরা যৌতুকের দাবিতে খুকুমনিকে নির্যাতন করছে। একথা বলেই পরে সেই নাম্বারটি বন্ধ হয়ে যায়। পরে অনেক চেষ্টা করেও বোনের সাথে ফোনে কথা বলতে পারেননি। পরদিন সকালে গ্রামের কয়েকজনকে সাথে নিয়ে খুকুমনির শ্বশুর বাড়ি গিয়ে তার বোনকে পাননি। তার বোন কোথায় – খুকুমনির স্বামী বা ভাবি কেউই এ কথার কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি। তার ধারণা, আসামিরা তার বোনকে হত্যার পর লাশ গুম করে ফেলেছে।

বাদী জাহানারা বেগম জানান, তার বোন খুকুমনি এমবিএ পাশ। তার বোনের কারণেই মিল্টন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আজ ৭৯ দিন বোনের কোনো খোঁজ নেই। বেঁচে আছে না মারা গেছে তাও জানিনা। তার বোনের স্বামী এখন আমার বোনের চরিত্র নিয়ে অপবাদ দিচ্ছে। তিনি জানান, তার বোন নিখোঁজ হওয়ার পর সব জায়গায় খুঁজেছেন। কোথাও না পেয়ে ২৯ জুলাই তারিখে রাজবাড়ী সদর থানায় জিডি করেন।

অভিযুক্ত রিয়াজুল ইসলাম মিল্টন তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তার স্ত্রী জীবীত আছে। তবে কোথায় আছে তা তিনি জানেন না। মাঝে একদিন এসে তার মেয়েকে দেখে গেছে।

রাজবাড়ী সদর থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার জানান, আদালতের নির্দেশে মামলাটি রেকর্ডের প্রত্রিয়াধীন। পুলিশ গুরুত্ব সহকারে মামলাটি তদন্ত করছে। একই সাথে নিখোঁজ গৃহবধূকে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীতে আড়াই মাস ধরে নিখোঁজ এক গৃহবধূ ॥ স্বামীসহ ২ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশের সময় : ০৬:৩৮:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীতে আড়াই মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে রেজাবুন্নেছা খুকু মনি  নামে এক গৃহবধূ। এঘটনায় তার বড় বোন জাহানারা বেগম বাদী হয়ে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে গৃহবধূর স্বামী রিয়াজুল ইসলাম মিল্টন ও  ভাবি  রীপা বেগমকে আসামি করে গত ১৭ আগস্ট তারিখে মামলা করেছেন। আদালত মামলাটি রেকর্ডের জন্য রাজবাড়ী সদর থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন। আসামিদের বাড়ি রাজবাড়ী পৌর এলাকার কলেজপাড়ায়। গত ২৪ জুন থেকে নিখোঁজ রয়েছেন গৃহবধূ খুকুমনি।

জানা গেছে, প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে ২০০৬ সালের ১৯ জুন তারিখে সজ্জনকান্দা গ্রামের জয়নাল আবেদিনের মেয়ে  খুকুমনির বিয়ে হয় কলেজপাড়া গ্রামের আদিল মিয়ার ছেলে রিয়াজুল ইসলাম মিল্টনের সাথে। তাদের সংসারে তুবা নামে ১১ বছর বয়সী এক মেয়ে রয়েছে।

বাদী মামলায় অভিযোগ করেছেন, বিয়ের পরপরই মিল্টন তাদের কাছে পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। যৌতুক না দেয়ায় তার বোনকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। গত ২৪ জুন তারিখ রাত ১২টার দিকে অজ্ঞাত একটি নাম্বার থেকে মোবাইল ফোনে তাকে জানানো হয়, আসামিরা যৌতুকের দাবিতে খুকুমনিকে নির্যাতন করছে। একথা বলেই পরে সেই নাম্বারটি বন্ধ হয়ে যায়। পরে অনেক চেষ্টা করেও বোনের সাথে ফোনে কথা বলতে পারেননি। পরদিন সকালে গ্রামের কয়েকজনকে সাথে নিয়ে খুকুমনির শ্বশুর বাড়ি গিয়ে তার বোনকে পাননি। তার বোন কোথায় – খুকুমনির স্বামী বা ভাবি কেউই এ কথার কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি। তার ধারণা, আসামিরা তার বোনকে হত্যার পর লাশ গুম করে ফেলেছে।

বাদী জাহানারা বেগম জানান, তার বোন খুকুমনি এমবিএ পাশ। তার বোনের কারণেই মিল্টন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আজ ৭৯ দিন বোনের কোনো খোঁজ নেই। বেঁচে আছে না মারা গেছে তাও জানিনা। তার বোনের স্বামী এখন আমার বোনের চরিত্র নিয়ে অপবাদ দিচ্ছে। তিনি জানান, তার বোন নিখোঁজ হওয়ার পর সব জায়গায় খুঁজেছেন। কোথাও না পেয়ে ২৯ জুলাই তারিখে রাজবাড়ী সদর থানায় জিডি করেন।

অভিযুক্ত রিয়াজুল ইসলাম মিল্টন তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তার স্ত্রী জীবীত আছে। তবে কোথায় আছে তা তিনি জানেন না। মাঝে একদিন এসে তার মেয়েকে দেখে গেছে।

রাজবাড়ী সদর থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার জানান, আদালতের নির্দেশে মামলাটি রেকর্ডের প্রত্রিয়াধীন। পুলিশ গুরুত্ব সহকারে মামলাটি তদন্ত করছে। একই সাথে নিখোঁজ গৃহবধূকে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।