Dhaka ০৮:৫৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১৫ আশ্বিন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কালুখালীতে কোনো পক্ষকেই মানববন্ধনের অনুমতি দেয়নি প্রশাসন

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:১৯:০৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২০
  • / ১২৬১ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর কালুখালীতে কোনো পক্ষকেই মানববন্ধনের অনুমতি দেয়নি জেলা প্রশাসন। তবে কালুখালী উপজেলা আওয়ামী  লীগ কালুখালীর রতনদিয়া বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে পৃথক পৃথক মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে।

রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, কালুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতিউর রহমান নবাব সোমবার সকাল ১০টায় কালুখালী উপজেলায় মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী মানববন্ধন কর্মসূচীর জন্য অনুমতি চেয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেন।

অপরদিকে উপজেলার মাজবাড়ি ইউনিয়নের বেতবাড়িয়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধার সন্তান রবিউল বিশ্বাস হত্যার বিচার ও হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু চত্ত্বর থেকে বোয়ালিয়া মোড় পর্যন্ত একই সময়ে মানববন্ধনের জন্য আবেদন করেন মাজবাড়ি ইউনিয়নের সংরক্ষিত নারী সদস্য আমেনা খাতুন।

রাতে রাজবাড়ী জেলা প্রশসান কাউকেই অনুমতি দেয়া হয়নি বলে দুপক্ষকেই চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেয়।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সরকার আব্দুল্লাহ আল মামুন বাবু স্বাক্ষরিত চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, আতিউর রহমান নবাব, সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, কালুখালী উপজেলা শাখা মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গঠনের লক্ষে সোমবার সকাল ১০টায় কালুখালী উপজেলায় মানববন্ধনের জন্য আবেদন করেছেন। পক্ষান্তরে মাজবাড়ি ইউনিয়নের নারী সদস্য আমেনা খাতুন মুক্তিযোদ্ধার পুত্র রবিউল বিশ্বাস হত্যার বিচার দাবিতে একই সময়ে মানববন্ধনের অনুমতি চেয়েছেন। এবিষয়ে পুলিশ সুপার বিশেষ শাখার মতামতের প্রেক্ষিতে একই স্থান ও সময়ে দুটি বিবাদমান পক্ষ মানববন্ধন কর্মসূচী আহ্বান করায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকায় এবং রাজবাড়ী জেলার করোনা ভাইরাস সংক্রমণ জনিত পরিস্থিতির কারণে মানববন্ধন আয়োজনের অনুমতি দেয়া গেলনা।

সোমবার সকালে কালুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ উপজেলার প্রাণকেন্দ্র রতনদিয়া বাজারসহ বিভিন্ন হাট ও বাজারে অবস্থান নিয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশ  করেছে।

এবিষয়ে রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, আবেদন দেয়ার পর মৌখিকভাবে জানিয়েছিল মহাসড়কের দুপাশে তারা মানববন্ধন করবে। আমরা মহাসড়কে মানববন্ধনের অনুমতি দেইনি। সেখানে তারা করেওনি। অন্য কোথাও করেছে।

কালুখালী উপজেলা  আওয়ামী লীগের সভাপতি আতিউর রহমান নবাবের কাছে এব্যাপারে জানতে চাইলে বলেন, বঙ্গবন্ধু চত্ত্বর এলাকায় মানববন্ধনের অনুমতি দেয়নি জেলা প্রশাসন। একারণে আমরা প্রতিটি ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণভাবে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছি।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

কালুখালীতে কোনো পক্ষকেই মানববন্ধনের অনুমতি দেয়নি প্রশাসন

প্রকাশের সময় : ০৭:১৯:০৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর কালুখালীতে কোনো পক্ষকেই মানববন্ধনের অনুমতি দেয়নি জেলা প্রশাসন। তবে কালুখালী উপজেলা আওয়ামী  লীগ কালুখালীর রতনদিয়া বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে পৃথক পৃথক মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে।

রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, কালুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতিউর রহমান নবাব সোমবার সকাল ১০টায় কালুখালী উপজেলায় মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী মানববন্ধন কর্মসূচীর জন্য অনুমতি চেয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেন।

অপরদিকে উপজেলার মাজবাড়ি ইউনিয়নের বেতবাড়িয়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধার সন্তান রবিউল বিশ্বাস হত্যার বিচার ও হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু চত্ত্বর থেকে বোয়ালিয়া মোড় পর্যন্ত একই সময়ে মানববন্ধনের জন্য আবেদন করেন মাজবাড়ি ইউনিয়নের সংরক্ষিত নারী সদস্য আমেনা খাতুন।

রাতে রাজবাড়ী জেলা প্রশসান কাউকেই অনুমতি দেয়া হয়নি বলে দুপক্ষকেই চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেয়।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সরকার আব্দুল্লাহ আল মামুন বাবু স্বাক্ষরিত চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, আতিউর রহমান নবাব, সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, কালুখালী উপজেলা শাখা মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গঠনের লক্ষে সোমবার সকাল ১০টায় কালুখালী উপজেলায় মানববন্ধনের জন্য আবেদন করেছেন। পক্ষান্তরে মাজবাড়ি ইউনিয়নের নারী সদস্য আমেনা খাতুন মুক্তিযোদ্ধার পুত্র রবিউল বিশ্বাস হত্যার বিচার দাবিতে একই সময়ে মানববন্ধনের অনুমতি চেয়েছেন। এবিষয়ে পুলিশ সুপার বিশেষ শাখার মতামতের প্রেক্ষিতে একই স্থান ও সময়ে দুটি বিবাদমান পক্ষ মানববন্ধন কর্মসূচী আহ্বান করায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকায় এবং রাজবাড়ী জেলার করোনা ভাইরাস সংক্রমণ জনিত পরিস্থিতির কারণে মানববন্ধন আয়োজনের অনুমতি দেয়া গেলনা।

সোমবার সকালে কালুখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ উপজেলার প্রাণকেন্দ্র রতনদিয়া বাজারসহ বিভিন্ন হাট ও বাজারে অবস্থান নিয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশ  করেছে।

এবিষয়ে রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, আবেদন দেয়ার পর মৌখিকভাবে জানিয়েছিল মহাসড়কের দুপাশে তারা মানববন্ধন করবে। আমরা মহাসড়কে মানববন্ধনের অনুমতি দেইনি। সেখানে তারা করেওনি। অন্য কোথাও করেছে।

কালুখালী উপজেলা  আওয়ামী লীগের সভাপতি আতিউর রহমান নবাবের কাছে এব্যাপারে জানতে চাইলে বলেন, বঙ্গবন্ধু চত্ত্বর এলাকায় মানববন্ধনের অনুমতি দেয়নি জেলা প্রশাসন। একারণে আমরা প্রতিটি ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণভাবে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছি।