Dhaka ০৯:৪৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে পদ্মার পানি কমলেও দুর্ভোগ কমেনি বানভাসি মানুষের

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৯:০৩:৪৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ জুলাই ২০২০
  • / ১৮০৯ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীতে পদ্মা নদীর পানি কমায় বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে  কমেনি বন্যার্ত মানুষের দুর্ভোগ। বন্যা কবলিত এলাকায় খাদ্য, পানীয় জল ও গোখাদ্যের সংকট রয়েছে। পানিবন্দী অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছে জেলার চার উপজেলার ৬৫  হাজার মানুষ। কেউ কেউ আশ্রয় নিয়েছে  বিভিন্ন স্কুল, মাদ্রাসা ও উঁচু বেরি বাঁধে। বন্যার্ত এলাকায় দেখা দিয়েছে চর্মরোগসহ নানান অসুসখ বিসুখ।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের সূত্রমতে, রাজবাড়ী সদর উপজেলার মহেন্দ্রপুর পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি ছয় সে.মি কমলেও এখনও বিপদসীমার  ৪৪ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পাংশার সেনগ্রাম পয়েন্টে এক সে.মি কমে বিপদসীমার  ৯৪ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া দৌলতদিয়া পয়েন্টে কমেছে চার সে.মি। এখানে পদ্মা নদীর পানি এখনও বিপদসীমার ১১৫ সে.মি উপরে রয়েছে। রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, বন্যার্ত মানুষের জন্য ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীতে পদ্মার পানি কমলেও দুর্ভোগ কমেনি বানভাসি মানুষের

প্রকাশের সময় : ০৯:০৩:৪৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ জুলাই ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীতে পদ্মা নদীর পানি কমায় বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে  কমেনি বন্যার্ত মানুষের দুর্ভোগ। বন্যা কবলিত এলাকায় খাদ্য, পানীয় জল ও গোখাদ্যের সংকট রয়েছে। পানিবন্দী অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছে জেলার চার উপজেলার ৬৫  হাজার মানুষ। কেউ কেউ আশ্রয় নিয়েছে  বিভিন্ন স্কুল, মাদ্রাসা ও উঁচু বেরি বাঁধে। বন্যার্ত এলাকায় দেখা দিয়েছে চর্মরোগসহ নানান অসুসখ বিসুখ।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের সূত্রমতে, রাজবাড়ী সদর উপজেলার মহেন্দ্রপুর পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি ছয় সে.মি কমলেও এখনও বিপদসীমার  ৪৪ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পাংশার সেনগ্রাম পয়েন্টে এক সে.মি কমে বিপদসীমার  ৯৪ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া দৌলতদিয়া পয়েন্টে কমেছে চার সে.মি। এখানে পদ্মা নদীর পানি এখনও বিপদসীমার ১১৫ সে.মি উপরে রয়েছে। রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, বন্যার্ত মানুষের জন্য ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।