Dhaka ০৫:৪৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

 ‘নো মাক্স-নো মুভমেন্ট’

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:২৮:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুন ২০২০
  • / ১৩৫৪ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ ‘নো মাক্স-নো মুভমেন্ট’। মাক্স ছাড়া কেউ বাইরে বের হলেই তাকে জেল-জরিমানার আওতায় আনা হবে। কোন ব্যবসায়ী মাক্স ছাড়া ক্রেতার কাছে পণ্য বিক্রি করতে পারবে না। ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে যদি মাক্স ব্যতীত পণ্য বিক্রির অভিযোগ প্রমাণিত হয়, তাকে জরিমানা গুনতে হবে। মাক্স পড়া বাধ্যতামুলক। আপনার পরিবার, প্রতিবেশীদের কথা চিন্তা করেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে বের হতে হবে। প্রতিটি বাজারে বসানো হবে হাত ধোয়ার জন্য বেসিং। এসব বলেছেন, রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম হেদায়েতুল ইসলাম।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বালিয়াকান্দি সদর ইউনিয়নকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। সরকারি অফিস, হাসপাতাল, ব্যাংক সীমিত আকারে চলছে। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির দোকান দুপুর দুইটা পর্যন্ত খোলা রয়েছে। উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে চা দোকান ও হোটেল-রেস্টুরেন্ট।

এদিকে মঙ্গলবার সকাল থেকেই উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম হেদায়েতুল ইসলাম বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রমের তদারকির পাশাপাশি সচেতনতামুলক স্টিকার লাগানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

 ‘নো মাক্স-নো মুভমেন্ট’

প্রকাশের সময় : ০৭:২৮:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুন ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ ‘নো মাক্স-নো মুভমেন্ট’। মাক্স ছাড়া কেউ বাইরে বের হলেই তাকে জেল-জরিমানার আওতায় আনা হবে। কোন ব্যবসায়ী মাক্স ছাড়া ক্রেতার কাছে পণ্য বিক্রি করতে পারবে না। ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে যদি মাক্স ব্যতীত পণ্য বিক্রির অভিযোগ প্রমাণিত হয়, তাকে জরিমানা গুনতে হবে। মাক্স পড়া বাধ্যতামুলক। আপনার পরিবার, প্রতিবেশীদের কথা চিন্তা করেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে বের হতে হবে। প্রতিটি বাজারে বসানো হবে হাত ধোয়ার জন্য বেসিং। এসব বলেছেন, রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম হেদায়েতুল ইসলাম।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বালিয়াকান্দি সদর ইউনিয়নকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। সরকারি অফিস, হাসপাতাল, ব্যাংক সীমিত আকারে চলছে। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির দোকান দুপুর দুইটা পর্যন্ত খোলা রয়েছে। উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে চা দোকান ও হোটেল-রেস্টুরেন্ট।

এদিকে মঙ্গলবার সকাল থেকেই উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম হেদায়েতুল ইসলাম বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রমের তদারকির পাশাপাশি সচেতনতামুলক স্টিকার লাগানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।