Dhaka ০১:৫৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে বন্ধ হয়নি বালুবাহী ট্রাক চলাচল ॥ ধূলাবালুতে রোগ জীবাণু ছড়ানোর আশঙ্কা

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৬:১৮:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল ২০২০
  • / ১৬৪৫ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ করোনা ভাইরাস সংক্রমণে রাজবাড়ীতে প্রায় সবকিছু বন্ধ থাকলেও বন্ধ হয়নি বালুবাহী ট্রাক চলাচল। এতে করে রোগ জীবাণু ছড়ানোর আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
সরকারি নির্দেশনা অনুসরণ করে গত ২৬ মার্চ থেকে গণপরিবহন, দোকানপাটসহ সবকিছু বন্ধ। গত ১১ এপ্রিল রাজবাড়ীতে পাঁচজনের করোনা পজিটিভ হওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। সেদিন রাত ১২টা থেকে রাজবাড়ী জেলা লকডাউন কার্যকর করা হয়। কাঁচাবাজার ও নিত্য প্রয়োজনীয় যে দোকান গুলো খোলা থাকে তা বিকেল ৩টার মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশ দেয়া হয়। জনসাধারণের চলাচল সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত নির্দিষ্ট করে দেয়া হয়। জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার নির্দেশনা রয়েছে। শহরের ১ নং রেলগেটটি বেরিয়ার দিয়ে আটকানো আছে। যাতে পরিবহন চলাচল করতে না পারে। তবে খোলা আছে ২ নং রেলগেটটি।
সরকারি নির্দেশনার সব কিছুই মানুষ মেনে চলছে। তবে বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ হয়নি। রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের গোদারবাজার এলাকায় পদ্মা নদী থেকে বালু নিয়ে শহরের বিভিন্ন রাস্তা দিয়ে তারা হরদম চলাচল করছে। বালুবাহী ট্রাকের ধূলায় রোগজীবাণু ছড়ানোর আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী। তারা বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধের দাবি জানিয়েছে।
রাজবাড়ী ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি আক্তারুজ্জামান হাসানের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি প্রথমে পাল্টা প্রশ্ন করেন, বালুবাহী ট্রাক কোথায় যায়? পদ্মা নদী থেকে বালু নিয়ে শহরের উপর দিয়ে যায়। এরপর বলেন, গণপরিবহন বন্ধ পণ্যবাহী ট্রাক বন্ধ হয়। কেউ চালালে না করবো কীভাবে? আর কোথা থেকে ট্রাক আসছে সেটা তো জানিনা।
রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, এমন পরিস্থিতিতে বালুবাহী ট্রাক চলাচল মোটেও ঠিক নয়। তাদেরকে বারংবার নিষেধ করেছি। বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ করার ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীতে বন্ধ হয়নি বালুবাহী ট্রাক চলাচল ॥ ধূলাবালুতে রোগ জীবাণু ছড়ানোর আশঙ্কা

প্রকাশের সময় : ০৬:১৮:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ করোনা ভাইরাস সংক্রমণে রাজবাড়ীতে প্রায় সবকিছু বন্ধ থাকলেও বন্ধ হয়নি বালুবাহী ট্রাক চলাচল। এতে করে রোগ জীবাণু ছড়ানোর আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
সরকারি নির্দেশনা অনুসরণ করে গত ২৬ মার্চ থেকে গণপরিবহন, দোকানপাটসহ সবকিছু বন্ধ। গত ১১ এপ্রিল রাজবাড়ীতে পাঁচজনের করোনা পজিটিভ হওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। সেদিন রাত ১২টা থেকে রাজবাড়ী জেলা লকডাউন কার্যকর করা হয়। কাঁচাবাজার ও নিত্য প্রয়োজনীয় যে দোকান গুলো খোলা থাকে তা বিকেল ৩টার মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশ দেয়া হয়। জনসাধারণের চলাচল সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত নির্দিষ্ট করে দেয়া হয়। জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার নির্দেশনা রয়েছে। শহরের ১ নং রেলগেটটি বেরিয়ার দিয়ে আটকানো আছে। যাতে পরিবহন চলাচল করতে না পারে। তবে খোলা আছে ২ নং রেলগেটটি।
সরকারি নির্দেশনার সব কিছুই মানুষ মেনে চলছে। তবে বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ হয়নি। রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের গোদারবাজার এলাকায় পদ্মা নদী থেকে বালু নিয়ে শহরের বিভিন্ন রাস্তা দিয়ে তারা হরদম চলাচল করছে। বালুবাহী ট্রাকের ধূলায় রোগজীবাণু ছড়ানোর আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী। তারা বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধের দাবি জানিয়েছে।
রাজবাড়ী ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি আক্তারুজ্জামান হাসানের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি প্রথমে পাল্টা প্রশ্ন করেন, বালুবাহী ট্রাক কোথায় যায়? পদ্মা নদী থেকে বালু নিয়ে শহরের উপর দিয়ে যায়। এরপর বলেন, গণপরিবহন বন্ধ পণ্যবাহী ট্রাক বন্ধ হয়। কেউ চালালে না করবো কীভাবে? আর কোথা থেকে ট্রাক আসছে সেটা তো জানিনা।
রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, এমন পরিস্থিতিতে বালুবাহী ট্রাক চলাচল মোটেও ঠিক নয়। তাদেরকে বারংবার নিষেধ করেছি। বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ করার ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে।