Dhaka ০৪:২০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত রিন্টু বাবার কবরে চিরনিদ্রায় শায়িত

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ১০:১০:০২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০
  • / ২৩৯২ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ কোথায় তিনি ছিলেন না। পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষরোপণে, সামাজিক সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে। অন্যায়ের প্রতিবাদেও ছিলেন সোচ্চার। রাজবাড়ী শহরের বড়পুল বকুলতলার বাসিন্দা মেজবাহ উল করিম রিন্টু দুরারোগ্য ক্যান্সারের কাছে হেরে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। রোববার সকাল ১০টার দিকে তার নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নালিল্লাহি..রাউজন)। তার বয়স হয়েছিল মাত্র ৪৭ বছর। রাজবাড়ী শহরের সকলেরই প্রিয় মানুষ ছিলেন রিন্টু। মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছেন রিন্টু।
মেজবাহ উল করিম রিন্টু মৃত্যুর আগ পর্যন্ত রাজবাড়ী ডিবেট এসোসিয়েশনের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। জড়িত ছিলেন সচেতন নাগরিক কমিটি, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠির সাথেও। এছাড়া সামাজিক সংগঠন সহযাত্রারও আহ্বায়ক ছিলেন তিনি। তিনি চিরকুমার ছিলেন। তার বড় ভাই একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্র শিল্পী মনসুর উল করিম।
রোববার বিকেল পাঁচটায় রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে রাজবাড়ী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফকীর আব্দুল জব্বার, পৌর মেয়র মহম্মদদ আলী চৌধুরী, সভাপতি অধ্যক্ষ শংকর চন্দ্র সিনহা, রাজবাড়ী একাডেমির সভাপতি সৈয়দ সিদ্দিকুর রহমান, বিজ্ঞান চেতনার আহ্বায়ক মহিতুজ্জামান বেলাল, রাজবাড়ী সুহৃদ সমাবেশের সভাপতি মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক নাসির খান, আরডিএর সহ সভাপতি ফারুক উদ্দিনসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশগ্রহণ করেন।
শেষে পারিবারিক কবরস্থানে বাবার কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত রিন্টু বাবার কবরে চিরনিদ্রায় শায়িত

প্রকাশের সময় : ১০:১০:০২ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০

জনতার আদালত অনলাইন ॥ কোথায় তিনি ছিলেন না। পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষরোপণে, সামাজিক সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে। অন্যায়ের প্রতিবাদেও ছিলেন সোচ্চার। রাজবাড়ী শহরের বড়পুল বকুলতলার বাসিন্দা মেজবাহ উল করিম রিন্টু দুরারোগ্য ক্যান্সারের কাছে হেরে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। রোববার সকাল ১০টার দিকে তার নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নালিল্লাহি..রাউজন)। তার বয়স হয়েছিল মাত্র ৪৭ বছর। রাজবাড়ী শহরের সকলেরই প্রিয় মানুষ ছিলেন রিন্টু। মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছেন রিন্টু।
মেজবাহ উল করিম রিন্টু মৃত্যুর আগ পর্যন্ত রাজবাড়ী ডিবেট এসোসিয়েশনের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। জড়িত ছিলেন সচেতন নাগরিক কমিটি, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠির সাথেও। এছাড়া সামাজিক সংগঠন সহযাত্রারও আহ্বায়ক ছিলেন তিনি। তিনি চিরকুমার ছিলেন। তার বড় ভাই একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্র শিল্পী মনসুর উল করিম।
রোববার বিকেল পাঁচটায় রাজবাড়ী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে রাজবাড়ী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফকীর আব্দুল জব্বার, পৌর মেয়র মহম্মদদ আলী চৌধুরী, সভাপতি অধ্যক্ষ শংকর চন্দ্র সিনহা, রাজবাড়ী একাডেমির সভাপতি সৈয়দ সিদ্দিকুর রহমান, বিজ্ঞান চেতনার আহ্বায়ক মহিতুজ্জামান বেলাল, রাজবাড়ী সুহৃদ সমাবেশের সভাপতি মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক নাসির খান, আরডিএর সহ সভাপতি ফারুক উদ্দিনসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশগ্রহণ করেন।
শেষে পারিবারিক কবরস্থানে বাবার কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।