Dhaka 7:44 am, Sunday, 5 February 2023

ভাজনচালা শীতলা কালী মন্দির কমিটি বিষয়ক প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 10:27:51 pm, Saturday, 28 December 2019
  • / 1977 জন সংবাদটি পড়েছেন

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ
গত ২৭/১২/২০১৯ ইং তারিখে দৈনিক জনতার আদালতের অনলাইন ভার্সনে ভাজনচালা শীতলা কালী মন্দিরের কমিটি গঠন॥ বিপ্লব সভাপতি, রঞ্জন সম্পাদক শিরোনামে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তার প্রতিবাদ জানিয়েছেন রনজিত সরকার টিটু।
লিখিত প্রতিবাদে তিনি উল্লেখ করেছেন, ভাজনচালা শীতলা কালী মন্দিরের কমিটিতে সভাপতি রনজিত সরকার টিটু এবং সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব কুমার সাহা বিদ্যমান। কমিটির ২ বছরের মেয়াদ এখনও শেষ হয়নি। বিপ্লব কুমার সাহা ৫ বছরেরও বেশি সময় সাধারণ সম্পাদক পদে আছেন। গত ১৩/১২/১৯ ইং তারিখে মন্দির কমিটি এবং স্থানীয় মন্দির সংশ্লিষ্টদের নিয়ে মন্দির প্রাঙ্গনে সন্ধ্যা ৭টায় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ৮০ জনের বেশি গন্যমান্য ব্যক্তির উপস্থিতিতে সিদ্ধান্ত হয়, যেহেতু সাধারণ সম্পাদক এবং কোষাধ্যক্ষ উপস্থিত নেই এবং তারা নোটিশেও স্বাক্ষর করেনি, সেহেতু তাদের ৭ দিনের মধ্যে ডাকযোগে নোটিশের মাধ্যমে জানানো হোক এবং বিষয়টি মীমাংসা না হওয়া পর্যন্ত সাধারণ সম্পাদক এবং কোষাধ্যক্ষের দায়িত্ব থেকে সাময়িক বিরত রাখা হোক। গত ১৭/১২/১৯ ইং তারিখে তাদেরকে নোটিশ পাঠানো হয়। যথাক্রমে ১৮ ও ১৯ ডিসেম্বর তারিখে তারা নোটিশ গ্রহণ করেছেন। সে মোতাবেক তাদের জবাব বা হিসাব দাখিলের শেষ দিন ছিল ২৬ ডিসেম্বর।
বিপ্লব সাহা ও কোষাধ্যক্ষ নোটিশের জবাব না দিয়ে কিছু মুষ্টিমেয় স্থানীয় এবং কিছু বহিরাগত লোক নিয়ে বর্তমান কমিটির সভাপতিসহ অন্যদের না জানিয়ে ২৭/১২/২০১৯ ইং তারিখে একটি মন্দির কমিটি গঠন করে। যা জনতার আদালত অনলাইনে প্রকাশিত হয়েছে।
আমি এর প্রতিবাদ করছি।
রনজিত সরকার টিটু, সভাপতি, শীতলা কালী মন্দির কমিটি, রাজবাড়ী।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

ভাজনচালা শীতলা কালী মন্দির কমিটি বিষয়ক প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

প্রকাশের সময় : 10:27:51 pm, Saturday, 28 December 2019

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ
গত ২৭/১২/২০১৯ ইং তারিখে দৈনিক জনতার আদালতের অনলাইন ভার্সনে ভাজনচালা শীতলা কালী মন্দিরের কমিটি গঠন॥ বিপ্লব সভাপতি, রঞ্জন সম্পাদক শিরোনামে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তার প্রতিবাদ জানিয়েছেন রনজিত সরকার টিটু।
লিখিত প্রতিবাদে তিনি উল্লেখ করেছেন, ভাজনচালা শীতলা কালী মন্দিরের কমিটিতে সভাপতি রনজিত সরকার টিটু এবং সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব কুমার সাহা বিদ্যমান। কমিটির ২ বছরের মেয়াদ এখনও শেষ হয়নি। বিপ্লব কুমার সাহা ৫ বছরেরও বেশি সময় সাধারণ সম্পাদক পদে আছেন। গত ১৩/১২/১৯ ইং তারিখে মন্দির কমিটি এবং স্থানীয় মন্দির সংশ্লিষ্টদের নিয়ে মন্দির প্রাঙ্গনে সন্ধ্যা ৭টায় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ৮০ জনের বেশি গন্যমান্য ব্যক্তির উপস্থিতিতে সিদ্ধান্ত হয়, যেহেতু সাধারণ সম্পাদক এবং কোষাধ্যক্ষ উপস্থিত নেই এবং তারা নোটিশেও স্বাক্ষর করেনি, সেহেতু তাদের ৭ দিনের মধ্যে ডাকযোগে নোটিশের মাধ্যমে জানানো হোক এবং বিষয়টি মীমাংসা না হওয়া পর্যন্ত সাধারণ সম্পাদক এবং কোষাধ্যক্ষের দায়িত্ব থেকে সাময়িক বিরত রাখা হোক। গত ১৭/১২/১৯ ইং তারিখে তাদেরকে নোটিশ পাঠানো হয়। যথাক্রমে ১৮ ও ১৯ ডিসেম্বর তারিখে তারা নোটিশ গ্রহণ করেছেন। সে মোতাবেক তাদের জবাব বা হিসাব দাখিলের শেষ দিন ছিল ২৬ ডিসেম্বর।
বিপ্লব সাহা ও কোষাধ্যক্ষ নোটিশের জবাব না দিয়ে কিছু মুষ্টিমেয় স্থানীয় এবং কিছু বহিরাগত লোক নিয়ে বর্তমান কমিটির সভাপতিসহ অন্যদের না জানিয়ে ২৭/১২/২০১৯ ইং তারিখে একটি মন্দির কমিটি গঠন করে। যা জনতার আদালত অনলাইনে প্রকাশিত হয়েছে।
আমি এর প্রতিবাদ করছি।
রনজিত সরকার টিটু, সভাপতি, শীতলা কালী মন্দির কমিটি, রাজবাড়ী।