Dhaka ০৮:৩৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটিi অ্যড. লিয়াকত আহ্বায়ক, অধ্যক্ষ মঞ্জুরুল সদস্য সচিব

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ১২:১৭:৪০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ নভেম্বর ২০১৯
  • / ১৫৯১ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ অবশেষে সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে রাজবাড়ী জেলা বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি বিলুপ্ত করে আহ্বায়ক কমিটি দিয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটি। নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক অ্যড. লিয়াকত আলী ও সদস্য সচিব অধ্যক্ষ মঞ্জুরুল আলম দুলাল। বিগত কমিটিতে দুজনেই জেলা বিএনপির সহ সভাপতি পদে ছিলেন। সোমবার বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ৪৭ সদস্য বিশিষ্ট এ আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।
সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সভাপতি ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন হারুন অর রশীদ।
দীর্ঘদিন ধরেই রাজবাড়ী জেলা বিএনপিতে খৈয়ম ও খালেক গ্র“পে বিভক্তি ছিল। দলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচীও পালিত হতো পৃথক পৃথকভাবে। খৈয়ম গ্র“প জেলা বিএনপির কার্যালয়ে এবং খালেক গ্র“প স্টেশন রোডে অবস্থিত অ্যড. এমএ খালেকের অফিসে পালন করতো কর্মসূচী।
জেলা বিএনপির দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দ্বন্দ্ব কোন্দল এতোটাই প্রকট ছিল যে, ২০১৭ সালের ১০ জুলাই তারিখে কেন্দ্র থেকে সদ্য বিলুপ্ত পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর জেলা বিএনপির কোনো সভা অনুষ্ঠিত হয়নি।
দ্বন্দ্ব কোন্দলে জর্জরিত বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা অনেকটাই হতাশ। আহ্বায়ক কমিটি গঠনের মধ্যে দিয়ে সকল বিভেদ, দ্বন্দ্ব, কোন্দল দূর হবে বলে আশা তাদের।
নবগঠিত কমিটির আহ্বায়ক অ্যড. লিয়াকত আলী বলেন, জেলার তৃণমূল নেতাকর্মীদের সমর্থন এবং কেন্দ্রীয় কমিটির তদন্ত বিবেচনায় আমার উপর যে গুরুদায়িত্ব অর্পণ করা হয়েছে। তা আমি যথাযথভাবে পালন করতে পারব বলে বিশ্বাস করি। জেলা বিএনপিতে যে দ্বন্দ্ব বিভেদ রয়েছে তার অবসান ঘটিয়ে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নিয়মতান্ত্রিকভাবে সম্মেলনের মাধ্যমে একটি সুন্দর পূর্ণাঙ্গ কমিটি উপহার দিতে চাই। কারও উপর রাগ, বিরাগ বা অভিমান না করে সামনে এগিয়ে যেতে সবার সহযোগিতা কামনা করছি।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটিi অ্যড. লিয়াকত আহ্বায়ক, অধ্যক্ষ মঞ্জুরুল সদস্য সচিব

প্রকাশের সময় : ১২:১৭:৪০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ নভেম্বর ২০১৯

জনতার আদালত অনলাইন ॥ অবশেষে সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে রাজবাড়ী জেলা বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি বিলুপ্ত করে আহ্বায়ক কমিটি দিয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটি। নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক অ্যড. লিয়াকত আলী ও সদস্য সচিব অধ্যক্ষ মঞ্জুরুল আলম দুলাল। বিগত কমিটিতে দুজনেই জেলা বিএনপির সহ সভাপতি পদে ছিলেন। সোমবার বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ৪৭ সদস্য বিশিষ্ট এ আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।
সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সভাপতি ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন হারুন অর রশীদ।
দীর্ঘদিন ধরেই রাজবাড়ী জেলা বিএনপিতে খৈয়ম ও খালেক গ্র“পে বিভক্তি ছিল। দলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচীও পালিত হতো পৃথক পৃথকভাবে। খৈয়ম গ্র“প জেলা বিএনপির কার্যালয়ে এবং খালেক গ্র“প স্টেশন রোডে অবস্থিত অ্যড. এমএ খালেকের অফিসে পালন করতো কর্মসূচী।
জেলা বিএনপির দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দ্বন্দ্ব কোন্দল এতোটাই প্রকট ছিল যে, ২০১৭ সালের ১০ জুলাই তারিখে কেন্দ্র থেকে সদ্য বিলুপ্ত পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর জেলা বিএনপির কোনো সভা অনুষ্ঠিত হয়নি।
দ্বন্দ্ব কোন্দলে জর্জরিত বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা অনেকটাই হতাশ। আহ্বায়ক কমিটি গঠনের মধ্যে দিয়ে সকল বিভেদ, দ্বন্দ্ব, কোন্দল দূর হবে বলে আশা তাদের।
নবগঠিত কমিটির আহ্বায়ক অ্যড. লিয়াকত আলী বলেন, জেলার তৃণমূল নেতাকর্মীদের সমর্থন এবং কেন্দ্রীয় কমিটির তদন্ত বিবেচনায় আমার উপর যে গুরুদায়িত্ব অর্পণ করা হয়েছে। তা আমি যথাযথভাবে পালন করতে পারব বলে বিশ্বাস করি। জেলা বিএনপিতে যে দ্বন্দ্ব বিভেদ রয়েছে তার অবসান ঘটিয়ে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নিয়মতান্ত্রিকভাবে সম্মেলনের মাধ্যমে একটি সুন্দর পূর্ণাঙ্গ কমিটি উপহার দিতে চাই। কারও উপর রাগ, বিরাগ বা অভিমান না করে সামনে এগিয়ে যেতে সবার সহযোগিতা কামনা করছি।