Dhaka ০৭:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীর মডেল মসজিদ নির্মাণের জায়গা পরিদর্শনে এমপি ডিসি

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:২৬:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ নভেম্বর ২০১৯
  • / ১৬৪৪ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ী জেলা শহরে মডেল মসজিদ নির্মাণের স্থান নির্বাচনের জন্য রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী, জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী, স্থানীয় নেতৃবৃন্দসহ সোমবার বড়পুল সরকারি স্টাফ কোয়াঁটারের অব্যবহৃত অংশ সরেজমিনে পরিদর্শন করেন।
রাজবাড়ী গণপূর্ত বিভাগ কার্যালয় সূত্র জানায়, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় মসজিদগুলো নির্মাণ করবে গণপূর্ত বিভাগ। প্রতিটি মসজিদ নির্মাণে লাগবে ৪৩ শতাংশ জমি। বর্তমানে মসজিদ নির্মাণের জন্য নতুন জমি খোঁজ করা হচ্ছে। সরকারিভাবে নতুন জমি নির্ধারণ হলে জেলা মসজিদ নির্মাণের কাজ শুরু হবে। মসজিদটি হবে ৪ তলা। সেখানে কয়েক হাজার হাজার মানুষ একসাথে নামাজ আদায় করতে পারবে। পাশাপাশি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম চলবে। এটি নির্মাণ হলে সৃষ্টি হবে একটি দৃষ্টি নান্দনিক স্থাপনা। এর আগে রাজবাড়ী জেলা মসজিদের স্থান নির্ধারণ করা হয় কেন্দ্রীয় ঈদগাহ থেকে একশ মিটার দূরে রেলওয়ে কলোনী জামে মসজিদের পাশে। কিন্তু পরে নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে যায়।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীর মডেল মসজিদ নির্মাণের জায়গা পরিদর্শনে এমপি ডিসি

প্রকাশের সময় : ০৭:২৬:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ নভেম্বর ২০১৯

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ী জেলা শহরে মডেল মসজিদ নির্মাণের স্থান নির্বাচনের জন্য রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী, জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী, স্থানীয় নেতৃবৃন্দসহ সোমবার বড়পুল সরকারি স্টাফ কোয়াঁটারের অব্যবহৃত অংশ সরেজমিনে পরিদর্শন করেন।
রাজবাড়ী গণপূর্ত বিভাগ কার্যালয় সূত্র জানায়, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় মসজিদগুলো নির্মাণ করবে গণপূর্ত বিভাগ। প্রতিটি মসজিদ নির্মাণে লাগবে ৪৩ শতাংশ জমি। বর্তমানে মসজিদ নির্মাণের জন্য নতুন জমি খোঁজ করা হচ্ছে। সরকারিভাবে নতুন জমি নির্ধারণ হলে জেলা মসজিদ নির্মাণের কাজ শুরু হবে। মসজিদটি হবে ৪ তলা। সেখানে কয়েক হাজার হাজার মানুষ একসাথে নামাজ আদায় করতে পারবে। পাশাপাশি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম চলবে। এটি নির্মাণ হলে সৃষ্টি হবে একটি দৃষ্টি নান্দনিক স্থাপনা। এর আগে রাজবাড়ী জেলা মসজিদের স্থান নির্ধারণ করা হয় কেন্দ্রীয় ঈদগাহ থেকে একশ মিটার দূরে রেলওয়ে কলোনী জামে মসজিদের পাশে। কিন্তু পরে নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে যায়।