Dhaka ০৩:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোয়ালন্দে অগ্নিকান্ডে বসতঘর ছাই ॥ দগ্ধ গবাদি পশু

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৬:৫৯:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯
  • / ১৫০৮ জন সংবাদটি পড়েছেন

 

জনতার আদালত অনলাইন ॥
রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার চর আন্ধর মানিক গ্রামের মৃত আহম্মেদ মুন্সির ছেলে আলম মুন্সির বাড়িতে আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে বসত ঘর। সেই সাথে তার পালিত গরুটিও পুড়ে গেছে।
গরুটির বাজার মূল্য প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা হবে বলে জানান। টিনের বসত ঘর ও ঘরের ভেতরে থাকা ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকার আসবাব পত্র সহ অন্যান্য মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। প্রতিবেশিরা আগুন নেভাতে চেস্টা করলের শেষ পর্যন্ত প্রয়োজনীয় মালামাল সড়াতে পারেনি। এতে আলমের পারিবার বড় ক্ষতির মধ্যে পরেছে বলে জানান তারা।
সোমবার দিবাগত রাত ৮ টার দিকে রান্নাঘরে জ্বালানো মশার কয়েল থেকে আগুন লেগেছে বলে জানান পরিবার।
এত দরিদ্র কৃষক আলমের পরিবারটি অসহায় এখন হয়ে পড়েছে। গরু ও ঘর পুরে এখন তার থাকার মত আর কোন স্থান নেই। বড় দুটি মেয়ে ,একটি ছেলে ও স্ত্রী নিয়ে ৫ জনের পরিবার আলম মুন্সির।
স্থানীয় আব্দুর রশিদ জানান ,আলম মুন্সির তিন সন্তান ও স্ত্রী নিয়ে বসবাস করেন ,বড় দুটি মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। আলম চর আন্ধার মানিক গ্রামের মৃত আহম্মেদ আলীর ছেলে। তিনি কৃষি কাজ করে তার অসহায় পরিবারটি নিয়ে কোন মতে জীবিকা নির্বাাহ করে বেঁচে আছেন। বসত ঘর ও গরুটি পুড়ে তার বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। শেষ সম্বল হাড়িয়ে এখন রাত যাপন করার মত আর কোন অবস্থান নেই পুড়ে যাওয়া এই পরিবারটির।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

গোয়ালন্দে অগ্নিকান্ডে বসতঘর ছাই ॥ দগ্ধ গবাদি পশু

প্রকাশের সময় : ০৬:৫৯:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯

 

জনতার আদালত অনলাইন ॥
রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার চর আন্ধর মানিক গ্রামের মৃত আহম্মেদ মুন্সির ছেলে আলম মুন্সির বাড়িতে আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে বসত ঘর। সেই সাথে তার পালিত গরুটিও পুড়ে গেছে।
গরুটির বাজার মূল্য প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা হবে বলে জানান। টিনের বসত ঘর ও ঘরের ভেতরে থাকা ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকার আসবাব পত্র সহ অন্যান্য মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। প্রতিবেশিরা আগুন নেভাতে চেস্টা করলের শেষ পর্যন্ত প্রয়োজনীয় মালামাল সড়াতে পারেনি। এতে আলমের পারিবার বড় ক্ষতির মধ্যে পরেছে বলে জানান তারা।
সোমবার দিবাগত রাত ৮ টার দিকে রান্নাঘরে জ্বালানো মশার কয়েল থেকে আগুন লেগেছে বলে জানান পরিবার।
এত দরিদ্র কৃষক আলমের পরিবারটি অসহায় এখন হয়ে পড়েছে। গরু ও ঘর পুরে এখন তার থাকার মত আর কোন স্থান নেই। বড় দুটি মেয়ে ,একটি ছেলে ও স্ত্রী নিয়ে ৫ জনের পরিবার আলম মুন্সির।
স্থানীয় আব্দুর রশিদ জানান ,আলম মুন্সির তিন সন্তান ও স্ত্রী নিয়ে বসবাস করেন ,বড় দুটি মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। আলম চর আন্ধার মানিক গ্রামের মৃত আহম্মেদ আলীর ছেলে। তিনি কৃষি কাজ করে তার অসহায় পরিবারটি নিয়ে কোন মতে জীবিকা নির্বাাহ করে বেঁচে আছেন। বসত ঘর ও গরুটি পুড়ে তার বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। শেষ সম্বল হাড়িয়ে এখন রাত যাপন করার মত আর কোন অবস্থান নেই পুড়ে যাওয়া এই পরিবারটির।