Dhaka ০৮:৪৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কালুখালী উপজেলা নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু হবে—জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৮:৫৮:০২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০১৯
  • / ১৩৯২ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর জেলা প্রশ্সাক মো. শওকত আলী বলেছেন, রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলা নির্বাচন অবাদ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে। এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নাই। নির্বাচন সুষ্ঠ করতে তারা সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে।
কালুখালী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আগামী ১৮ জুন ৫ম ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে চেয়ারম্যান, পুরুষ ও ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থীদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।
এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী। সভায় চেয়ারম্যান প্রার্থীরা অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠ নির্বাচন উপহার দিতে প্রশাসনকে অনুরোধ করেন। সভায় চেয়ারম্যান, পুরুষ ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যানসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
প্রার্থীরা বলেন, একটি মহল ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানো, মারধোর করে ভোটের পরিবেশ নষ্ট করছে । এখন পর্যন্ত পুলিশ নিরপেক্ষ নয়, তাই সুষ্ঠ নির্বাচনের লক্ষে আজ থেকে পুলিশের নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করতে হবে। আনারসের সমর্থক মজনু, ইউসূফ মেম্বর সহ অনেকে নির্বাচনী এলাকায় রাতে সাধারন ভোটারসহ হিন্দু বাড়ীতে গিয়ে ভয় দেখিয়ে ভোটের পরিবেশ নষ্ট করছে এবং আনারস প্রতীকে ভোট না দিলে ভোট কেন্দ্রে না আসতে হুমকি দিচ্ছেন। এ বিষয়টি প্রশাসনকে খতিয়ে দেখতে প্রার্থীরা অনুরোধ করেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুন নাহার বলেন, প্রার্থীদের থেকে অভিযোগ পেয়ে সেখানে গিয়ে যাছাই-বাছাই করে ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন এবং ভোট শতভাগ সুষ্ঠ করতে তারা সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছেন। ভোটারদের কোন ভয় নাই, তারা নিশ্চিন্তে তাদের ভোট দিতে পারবেন।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলুল করিম বলেন, রাজবাড়ীর ৪ টি উপজেলার নির্বাচন সুষ্ঠ হয়েছে, কালুখালী উপজেলা নির্বাচনও সুষ্ঠ হবে। কেউ কিছু ভেবে থাকলে ভুল করবে। কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রয়োজনে গুলি করা হবে। এ নির্বাচনে সাধারন ভোট কেন্দ্রে ৬ জন ও গুরুত্বপূর্ন কেন্দ্রে ৭ জন পুলিশ থাকবে। এছাড়া ১২ জন আনসার, সাদা পোশাকে পুলিশ, স্ট্রাইকিং ফোর্সসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নির্বাচনে মাঠে থাকবে। পুলিশ কারও পক্ষে নয়, পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে লিখিতকারে দেন। পর্যাপ্ত পরিমান পুলিশ থাকবে নির্বাচন সুষ্ঠ করতে এবং নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠ হবে। এ বিষয়ে আপনাদের চিন্তার কোন কারণ নাই। তবে আপনাদের সহযোগীতা নির্বাচন সুষ্ঠ করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।
জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান বলেন, আপনারা ১৬ জুন মধ্যে রাত পর্যন্ত প্রচারনা চালাতে পারবেন। ৪৬টি ভোট কেন্দ্রে ও ২৯৮টি বুথে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে। এ নির্বাচনের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ৫ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। কালুখালী উপজেলা নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠ হবে এ বিষয়ে কোন সংশয় নাই। ভোট গ্রহন সকাল ৯টায় শুরু হয়ে বিরতিহীন ভাবে চলবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। চেয়ারম্যান প্রার্থীদের থেকে অভিযোগ পেয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে জনোনো হয়েছে এবং ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। ভোটের দিন যানবাহন চলাচলে বিধি নিশেধ মেনে চলবেন আপনারা।
জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী বলেন, কালুখালীতে ভোট সুষ্ঠ হবে এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নাই। ভোটারদের ভয়ভীতি কাটাতে রাতে র‌্যাব ও পুলিশ প্রতিরাতে নির্বাচনী এলাকায় টহলের ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া ভোটের দিন পর্যাপ্ত পরিমান আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ভোট কেন্দ্রে থাকবে। নির্বাচনের দিন যদি কেউ পরিবেশ বিন্ষ্ট করতে আসে তাহলে কঠোর হস্তে তা দমন করা হবে। জেলার অন্য উপজেলার মতই কালুখালীতেও সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কোন রকম প্রভাব প্রতিপত্তী দিয়ে বাঁধা সৃষ্টি করার সুযোগ নাই। আর নির্বাচনের দিন তারা সবাই মাঠে থাকবে এবং অভিযােগ পেলে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহন করবেন । এ নির্বাচনে প্রশাসনের সকলকে দ্বায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করাসহ নিরপেক্ষ থাকতে অনুরোধ করেন। আগামী ১৮ জুনের নির্বাচন সুষ্ঠ ও অবাধ হবে। কেউ কোন রকম প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করবেন না। প্রভাব বিস্তার বা ক্ষমতা দেখিয়ে ভোটের পরিবেশ নষ্ট করা হলে সাথে সাথে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কাজেই আপনারা ভোটারদের কাছে যান এবং ভোট চান ,অযথা সময় নষ্ট না করে সময়কে কাজে লাগিয়ে নির্বাচনের পরিবেশ ভালো রাখারচেষ্ট করেন। ভোটের মাধ্যমেই আপনারা শেষ হাসি হাসবেনঅন্য পন্থায় নয়। নির্বাচন কমিশনও নির্বাচন সুষ্ঠ করতে নির্দেশ দিয়েছেন।
অন্যদের মাঝে বক্তৃতা করেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার হাবিবুর রহমান, কালুখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন্নাহার, রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলুল করিম, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাদিয়া ইসলাম লুনা, আনসার ভিডিপি কমান্ড্যান্ট আহসানউল্লাহ, আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরে আলম সিদ্দিকী হক, আলিউজ্জামান চৌধুরী প্রমুখ।
উল্লেখ্য, কালুখালী উপজেলায় ৪ জন চেয়ারম্যান, ৭ জন পুরুষ ও ৪ জন মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করছেন।
এর আগে উপজেলার রতনদিয়া রজনীকান্ত উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোটগ্রহণকারী কর্মকর্তাদের কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে কর্মশালার উদ্বোধন করেন রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মো. শওকত আলী।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

কালুখালী উপজেলা নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু হবে—জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী

প্রকাশের সময় : ০৮:৫৮:০২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০১৯

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর জেলা প্রশ্সাক মো. শওকত আলী বলেছেন, রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলা নির্বাচন অবাদ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে। এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নাই। নির্বাচন সুষ্ঠ করতে তারা সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে।
কালুখালী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আগামী ১৮ জুন ৫ম ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে চেয়ারম্যান, পুরুষ ও ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থীদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।
এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী। সভায় চেয়ারম্যান প্রার্থীরা অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠ নির্বাচন উপহার দিতে প্রশাসনকে অনুরোধ করেন। সভায় চেয়ারম্যান, পুরুষ ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যানসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
প্রার্থীরা বলেন, একটি মহল ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানো, মারধোর করে ভোটের পরিবেশ নষ্ট করছে । এখন পর্যন্ত পুলিশ নিরপেক্ষ নয়, তাই সুষ্ঠ নির্বাচনের লক্ষে আজ থেকে পুলিশের নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করতে হবে। আনারসের সমর্থক মজনু, ইউসূফ মেম্বর সহ অনেকে নির্বাচনী এলাকায় রাতে সাধারন ভোটারসহ হিন্দু বাড়ীতে গিয়ে ভয় দেখিয়ে ভোটের পরিবেশ নষ্ট করছে এবং আনারস প্রতীকে ভোট না দিলে ভোট কেন্দ্রে না আসতে হুমকি দিচ্ছেন। এ বিষয়টি প্রশাসনকে খতিয়ে দেখতে প্রার্থীরা অনুরোধ করেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুন নাহার বলেন, প্রার্থীদের থেকে অভিযোগ পেয়ে সেখানে গিয়ে যাছাই-বাছাই করে ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন এবং ভোট শতভাগ সুষ্ঠ করতে তারা সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছেন। ভোটারদের কোন ভয় নাই, তারা নিশ্চিন্তে তাদের ভোট দিতে পারবেন।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলুল করিম বলেন, রাজবাড়ীর ৪ টি উপজেলার নির্বাচন সুষ্ঠ হয়েছে, কালুখালী উপজেলা নির্বাচনও সুষ্ঠ হবে। কেউ কিছু ভেবে থাকলে ভুল করবে। কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রয়োজনে গুলি করা হবে। এ নির্বাচনে সাধারন ভোট কেন্দ্রে ৬ জন ও গুরুত্বপূর্ন কেন্দ্রে ৭ জন পুলিশ থাকবে। এছাড়া ১২ জন আনসার, সাদা পোশাকে পুলিশ, স্ট্রাইকিং ফোর্সসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নির্বাচনে মাঠে থাকবে। পুলিশ কারও পক্ষে নয়, পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে লিখিতকারে দেন। পর্যাপ্ত পরিমান পুলিশ থাকবে নির্বাচন সুষ্ঠ করতে এবং নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠ হবে। এ বিষয়ে আপনাদের চিন্তার কোন কারণ নাই। তবে আপনাদের সহযোগীতা নির্বাচন সুষ্ঠ করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।
জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান বলেন, আপনারা ১৬ জুন মধ্যে রাত পর্যন্ত প্রচারনা চালাতে পারবেন। ৪৬টি ভোট কেন্দ্রে ও ২৯৮টি বুথে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে। এ নির্বাচনের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ৫ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। কালুখালী উপজেলা নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠ হবে এ বিষয়ে কোন সংশয় নাই। ভোট গ্রহন সকাল ৯টায় শুরু হয়ে বিরতিহীন ভাবে চলবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। চেয়ারম্যান প্রার্থীদের থেকে অভিযোগ পেয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে জনোনো হয়েছে এবং ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। ভোটের দিন যানবাহন চলাচলে বিধি নিশেধ মেনে চলবেন আপনারা।
জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী বলেন, কালুখালীতে ভোট সুষ্ঠ হবে এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নাই। ভোটারদের ভয়ভীতি কাটাতে রাতে র‌্যাব ও পুলিশ প্রতিরাতে নির্বাচনী এলাকায় টহলের ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া ভোটের দিন পর্যাপ্ত পরিমান আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ভোট কেন্দ্রে থাকবে। নির্বাচনের দিন যদি কেউ পরিবেশ বিন্ষ্ট করতে আসে তাহলে কঠোর হস্তে তা দমন করা হবে। জেলার অন্য উপজেলার মতই কালুখালীতেও সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কোন রকম প্রভাব প্রতিপত্তী দিয়ে বাঁধা সৃষ্টি করার সুযোগ নাই। আর নির্বাচনের দিন তারা সবাই মাঠে থাকবে এবং অভিযােগ পেলে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহন করবেন । এ নির্বাচনে প্রশাসনের সকলকে দ্বায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করাসহ নিরপেক্ষ থাকতে অনুরোধ করেন। আগামী ১৮ জুনের নির্বাচন সুষ্ঠ ও অবাধ হবে। কেউ কোন রকম প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করবেন না। প্রভাব বিস্তার বা ক্ষমতা দেখিয়ে ভোটের পরিবেশ নষ্ট করা হলে সাথে সাথে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কাজেই আপনারা ভোটারদের কাছে যান এবং ভোট চান ,অযথা সময় নষ্ট না করে সময়কে কাজে লাগিয়ে নির্বাচনের পরিবেশ ভালো রাখারচেষ্ট করেন। ভোটের মাধ্যমেই আপনারা শেষ হাসি হাসবেনঅন্য পন্থায় নয়। নির্বাচন কমিশনও নির্বাচন সুষ্ঠ করতে নির্দেশ দিয়েছেন।
অন্যদের মাঝে বক্তৃতা করেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার হাবিবুর রহমান, কালুখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন্নাহার, রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলুল করিম, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাদিয়া ইসলাম লুনা, আনসার ভিডিপি কমান্ড্যান্ট আহসানউল্লাহ, আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরে আলম সিদ্দিকী হক, আলিউজ্জামান চৌধুরী প্রমুখ।
উল্লেখ্য, কালুখালী উপজেলায় ৪ জন চেয়ারম্যান, ৭ জন পুরুষ ও ৪ জন মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করছেন।
এর আগে উপজেলার রতনদিয়া রজনীকান্ত উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোটগ্রহণকারী কর্মকর্তাদের কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে কর্মশালার উদ্বোধন করেন রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মো. শওকত আলী।