Dhaka 6:38 am, Tuesday, 29 November 2022

বালিয়াকান্দি চত্রা নদী খননের মাটি অপসারণ না করায় চরম দুর্ভোগে মানুষ

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 07:27:08 pm, Saturday, 25 May 2019
  • / 1662 জন সংবাদটি পড়েছেন


জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে চত্রা নদী খনন কাজের মাটি পাকা সড়কের উপর রাখায় জনসাধারণের চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ফলে সাধারন মানুষ ক্ষোভে ফুঁসে উঠছে। সড়ক থেকে মাটি অপসারণ না করায় যে কোন সময় বড় ধরনের দুঘর্টনার আশঙ্কা রয়েছে। কাদা-পানিতে এখন পায়ে হেটে চলাচল করা দুষ্কর হয়ে পড়েছে। রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে চত্রা নদী পুনঃখনন কাজে অপরিকল্পিত ভাবে কর্তন ও বিক্রির ফলে পাকা সড়ক ধ্বসে যায়। মাটি বিক্রির জন্য সড়কের উপর মাটি জমিয়ে রাখায় দু,টি গুরুত্বপুর্ণ সড়কে চলাচলে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে যানবাহন ও সাধারন লোকজন। পাউবোর বেধে দেওয়া ২৪ ঘন্টার পরিবর্তে ৭দিন অতিবাহিত হলেও গুরুত্বপুর্ণ দু,টি সড়কের মাটি অপসারণের নির্দেশ কার্যকর হয়নি। সমস্ত সড়কে পড়ে রয়েছে মাটির স্তর। সামান্য বৃষ্টি হলেই দু,টি সড়কে চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।
এলাকাবাসী জানান, উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের খাটিয়াগাড়া, চরঘিকমলা, বাকসাডাঙ্গী, বিলটাকাপোড়া এলাকায় অপরিকল্পিত ভাবে সড়কের পাশ খুচে মাটি উত্তোলন করায় সড়কে ধ্বসের সৃষ্টি হয়। ৫-৬জন লেবার দিয়ে বাঁশ ও মাটি দিয়ে ধ্বস ঠেকানোর চেষ্টা করে মাত্র। তবে পরিকল্পিত ভাবে ধ্বস ঠেকানোর কাজ হচ্ছে না। এ ঘটনার পরও বেশ কিছু ট্রাক লাগিয়ে মাটি বিক্রি অব্যাহত রেখেছে।
এদিকে সামান্য বৃষ্টিতেই নারুয়া বাজার থেকে লাঙ্গলবাঁধ ঘাট পর্যন্ত সড়কের বাকসাডাঙ্গী এলাকায় ওই সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। শুধু তাই নয় সামান্য বৃষ্টিতে কাদা-পানিতে যানবাহন চলাচলতো দুরের কথা পায়ে হেটে চলা দুষ্কর হয়ে পড়েছে। বালিয়াকান্দি-পাংশা সড়কের উপর অবৈধ ভাবে খননকৃত মাটি বিক্রির জন্য মাটির স্তুপ করে রাখা হয়। সড়কের মাটি পড়ে থাকায় বৃষ্টিতে কাদায় একাকার হয়েছে। এতে সাধারন মানুষসহ যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
সরেজমিন পরিদর্শন করেন, রাজবাড়ী পওর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এস,এম নুরুন্নবী, এসও মাহমুদুল হাসান, মুরাদ হোসেন। রাজবাড়ী পওর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এস,এম নুরুন্নবী ঠিকাদারকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রকাশ্যে দু,টি সড়ক থেকে মাটি অপসারণের নির্দেশ প্রদান করেন। ৭দিন অতিবাহিত হলেও একমুঠো মাটি অপসারণ হয়নি।
রাজবাড়ী পওর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এস,এম নুরুন্নবী বলেন, ভাঙন রোধ ও সড়কের মাটি সরানোর জন্য ২৪ ঘন্টার মধ্যে নির্দেশ প্রদান করা হয়।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

বালিয়াকান্দি চত্রা নদী খননের মাটি অপসারণ না করায় চরম দুর্ভোগে মানুষ

প্রকাশের সময় : 07:27:08 pm, Saturday, 25 May 2019


জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে চত্রা নদী খনন কাজের মাটি পাকা সড়কের উপর রাখায় জনসাধারণের চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ফলে সাধারন মানুষ ক্ষোভে ফুঁসে উঠছে। সড়ক থেকে মাটি অপসারণ না করায় যে কোন সময় বড় ধরনের দুঘর্টনার আশঙ্কা রয়েছে। কাদা-পানিতে এখন পায়ে হেটে চলাচল করা দুষ্কর হয়ে পড়েছে। রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে চত্রা নদী পুনঃখনন কাজে অপরিকল্পিত ভাবে কর্তন ও বিক্রির ফলে পাকা সড়ক ধ্বসে যায়। মাটি বিক্রির জন্য সড়কের উপর মাটি জমিয়ে রাখায় দু,টি গুরুত্বপুর্ণ সড়কে চলাচলে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে যানবাহন ও সাধারন লোকজন। পাউবোর বেধে দেওয়া ২৪ ঘন্টার পরিবর্তে ৭দিন অতিবাহিত হলেও গুরুত্বপুর্ণ দু,টি সড়কের মাটি অপসারণের নির্দেশ কার্যকর হয়নি। সমস্ত সড়কে পড়ে রয়েছে মাটির স্তর। সামান্য বৃষ্টি হলেই দু,টি সড়কে চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।
এলাকাবাসী জানান, উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের খাটিয়াগাড়া, চরঘিকমলা, বাকসাডাঙ্গী, বিলটাকাপোড়া এলাকায় অপরিকল্পিত ভাবে সড়কের পাশ খুচে মাটি উত্তোলন করায় সড়কে ধ্বসের সৃষ্টি হয়। ৫-৬জন লেবার দিয়ে বাঁশ ও মাটি দিয়ে ধ্বস ঠেকানোর চেষ্টা করে মাত্র। তবে পরিকল্পিত ভাবে ধ্বস ঠেকানোর কাজ হচ্ছে না। এ ঘটনার পরও বেশ কিছু ট্রাক লাগিয়ে মাটি বিক্রি অব্যাহত রেখেছে।
এদিকে সামান্য বৃষ্টিতেই নারুয়া বাজার থেকে লাঙ্গলবাঁধ ঘাট পর্যন্ত সড়কের বাকসাডাঙ্গী এলাকায় ওই সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। শুধু তাই নয় সামান্য বৃষ্টিতে কাদা-পানিতে যানবাহন চলাচলতো দুরের কথা পায়ে হেটে চলা দুষ্কর হয়ে পড়েছে। বালিয়াকান্দি-পাংশা সড়কের উপর অবৈধ ভাবে খননকৃত মাটি বিক্রির জন্য মাটির স্তুপ করে রাখা হয়। সড়কের মাটি পড়ে থাকায় বৃষ্টিতে কাদায় একাকার হয়েছে। এতে সাধারন মানুষসহ যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
সরেজমিন পরিদর্শন করেন, রাজবাড়ী পওর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এস,এম নুরুন্নবী, এসও মাহমুদুল হাসান, মুরাদ হোসেন। রাজবাড়ী পওর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এস,এম নুরুন্নবী ঠিকাদারকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রকাশ্যে দু,টি সড়ক থেকে মাটি অপসারণের নির্দেশ প্রদান করেন। ৭দিন অতিবাহিত হলেও একমুঠো মাটি অপসারণ হয়নি।
রাজবাড়ী পওর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এস,এম নুরুন্নবী বলেন, ভাঙন রোধ ও সড়কের মাটি সরানোর জন্য ২৪ ঘন্টার মধ্যে নির্দেশ প্রদান করা হয়।