Dhaka ১২:৪৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বালিয়াকান্দির আদিবাসী পল্লীতে দফায় দফায় হামলা, আহত ৭॥ আটক ১

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ১০:৩৫:৪৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২০ মে ২০১৮
  • / ১৫৯৬ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের মেছুয়াঘাটা আদিবাসী পল¯œীতে শনিবার দফায় দফায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে সাত আদিবাসী নারী পুর¤œষ আহত হয়েছে। আদিবাসীদের জ্বালিয়ে পুড়িয়ে উচ্ছেদের হুমকিও দেয়া হয়েছে।
পুলিশ ঘটনার মূল হোতা মুন্নু ফকিরকে আটক করেছে। তার বাড়ি একই গ্রামে। হামলায় আহতরা হলেন প্রিয়šিত্ম বিশ্বাস (৪৫), সবিতা বিশ্বাস (২৫), বিজলী বিশ্বাস (২৫), বৃষ্ণ বিশ্বাস (২২), কালিদাসী বিশ্বাস (৬৫), বিনা বিশ্বাস (৫০) ও সুনীল বিশ্বাস(৫০)। আহতদের বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¯œক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।
আদিবাসীরা অভিযোগ করেন, নবাবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মতিয়ার রহমানের নিকটাত্মীয় মুন্নু ফকীর আদিবাসী পল¯œীর কয়েক শতাংশ জমি দখলে রেখেছে। শনিবার সকালে সে আরও জমি দখল করতে গেলে আদিবাসীরা বাধা দেয়। ওই সময় মুন্নু ফকীরের নেতৃত্বে শতাধিক লোক তাদের উপর হামলা চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মুন্নুকে আটক করে নিয়ে যায়। বিকেলে দ্বিতীয় দফায় হামলা চালানো হয় তাদের উপর। এ হামলার সময় তাদেরকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে উচ্ছেদেরও হুমকি দেয়া হয়।
ইবাবপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেন আলী জানান, ওই আদিবাসী পল¯œীটি ২৭ শতাংশ জমির উপর। পুরো জমিই আদিবাসীদের নামে রেকর্ডভুক্ত। এর মধ্যে ১১ শতাংশ জমি মুন্নু ফকীর দখলে রেখেছে। সে ডিসিআর এর মাধ্যমে ভোগদখল করছে। শনিবার সেখানে ঘর উত্তোলন করতে গেলে এ ঘটনা ঘটে। চেয়ারম্যান বলেন, বিষয়টি আমাদের জানানো হলে এই অনাকাক্সি—গত ঘটনা হয়তো ঘটতো না।
বালিয়াকান্দি থানার ওসি হাসিনা বেগম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে একজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি স্থানীয় ভাবে আপোস মীমাংসার চেষ্টা চলছে। সেটি না হলে আমরা আমাদের মত করে ব্যবস্থা নেব।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

বালিয়াকান্দির আদিবাসী পল্লীতে দফায় দফায় হামলা, আহত ৭॥ আটক ১

প্রকাশের সময় : ১০:৩৫:৪৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২০ মে ২০১৮

জনতার আদালত অনলাইন ॥রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের মেছুয়াঘাটা আদিবাসী পল¯œীতে শনিবার দফায় দফায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে সাত আদিবাসী নারী পুর¤œষ আহত হয়েছে। আদিবাসীদের জ্বালিয়ে পুড়িয়ে উচ্ছেদের হুমকিও দেয়া হয়েছে।
পুলিশ ঘটনার মূল হোতা মুন্নু ফকিরকে আটক করেছে। তার বাড়ি একই গ্রামে। হামলায় আহতরা হলেন প্রিয়šিত্ম বিশ্বাস (৪৫), সবিতা বিশ্বাস (২৫), বিজলী বিশ্বাস (২৫), বৃষ্ণ বিশ্বাস (২২), কালিদাসী বিশ্বাস (৬৫), বিনা বিশ্বাস (৫০) ও সুনীল বিশ্বাস(৫০)। আহতদের বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¯œক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।
আদিবাসীরা অভিযোগ করেন, নবাবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মতিয়ার রহমানের নিকটাত্মীয় মুন্নু ফকীর আদিবাসী পল¯œীর কয়েক শতাংশ জমি দখলে রেখেছে। শনিবার সকালে সে আরও জমি দখল করতে গেলে আদিবাসীরা বাধা দেয়। ওই সময় মুন্নু ফকীরের নেতৃত্বে শতাধিক লোক তাদের উপর হামলা চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মুন্নুকে আটক করে নিয়ে যায়। বিকেলে দ্বিতীয় দফায় হামলা চালানো হয় তাদের উপর। এ হামলার সময় তাদেরকে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে উচ্ছেদেরও হুমকি দেয়া হয়।
ইবাবপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেন আলী জানান, ওই আদিবাসী পল¯œীটি ২৭ শতাংশ জমির উপর। পুরো জমিই আদিবাসীদের নামে রেকর্ডভুক্ত। এর মধ্যে ১১ শতাংশ জমি মুন্নু ফকীর দখলে রেখেছে। সে ডিসিআর এর মাধ্যমে ভোগদখল করছে। শনিবার সেখানে ঘর উত্তোলন করতে গেলে এ ঘটনা ঘটে। চেয়ারম্যান বলেন, বিষয়টি আমাদের জানানো হলে এই অনাকাক্সি—গত ঘটনা হয়তো ঘটতো না।
বালিয়াকান্দি থানার ওসি হাসিনা বেগম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে একজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি স্থানীয় ভাবে আপোস মীমাংসার চেষ্টা চলছে। সেটি না হলে আমরা আমাদের মত করে ব্যবস্থা নেব।