Dhaka ১১:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মোবাইল ফোনে ডেকে এনে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে কথিত প্রেমিক গ্রেফতার

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৯:৩৫:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৬ মে ২০১৮
  • / ১৪৬৬ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ মোবাইল ফোনে প্রেমের সূত্র ধরে চট্টগ্রামের এক তরুণীকে বিয়ের আশ্বাসে ডেকে এনে ধর্ষণের অভিযোগ কথিত প্রেমিক পারভেজ শেখকে রোববার ভোরে মাগুড়ার শ্রীপুর উপজেলার কাদিরপাড়া থেকে গ্রেফতার করেছে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি থানার পুলিশ। সে ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার ঢুমাইন গ্রামের সোবহান শেখের ছেলে।
বালিয়াকান্দি থানা সূত্র জানায়, চট্রগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলা এলাকার এক তরুণীর সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয় পারভেজের। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ১৬ এপ্রিল পারভেজ ওই তরুণীকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ডেকে এনে বালিয়াকান্দি উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের পাঁচপোটরা গ্রামের শ্যামল বিশ্বাসের বাড়িতে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। ১৮ এপ্রিল বিকেলে স্থানীয় লোকজন টের পেয়ে তাকে ওই বাড়ি থেকে উদ্ধার করে। কিন্তু ওই সময় পারভেজ পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এব্যাপারে ওই তরুণী বাদী হয়ে গত ১৯ এপ্রিল বালিয়াকান্দি থানায় মামলা দায়ের করেন।
বালিয়াকান্দি থানার এসআই জাকির হোসেন জানান, মামলা দায়েরের পরপর ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে শ্যামল বিশ্বাসের স্ত্রী গীতা বিশ্বাসকে গ্রেফতার ও তরুণীকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে মেডিকেল পরীক্ষা করানো হয়। কিন্তু পলাতক থাকায় গ্রেফতার করা যায়নি মূল আসামী পারভেজকে। রোববার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে সে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। তাকে রাজবাড়ীর আদালতে চালান করা হয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

মোবাইল ফোনে ডেকে এনে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে কথিত প্রেমিক গ্রেফতার

প্রকাশের সময় : ০৯:৩৫:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৬ মে ২০১৮

জনতার আদালত অনলাইন ॥ মোবাইল ফোনে প্রেমের সূত্র ধরে চট্টগ্রামের এক তরুণীকে বিয়ের আশ্বাসে ডেকে এনে ধর্ষণের অভিযোগ কথিত প্রেমিক পারভেজ শেখকে রোববার ভোরে মাগুড়ার শ্রীপুর উপজেলার কাদিরপাড়া থেকে গ্রেফতার করেছে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি থানার পুলিশ। সে ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার ঢুমাইন গ্রামের সোবহান শেখের ছেলে।
বালিয়াকান্দি থানা সূত্র জানায়, চট্রগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলা এলাকার এক তরুণীর সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয় পারভেজের। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ১৬ এপ্রিল পারভেজ ওই তরুণীকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ডেকে এনে বালিয়াকান্দি উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের পাঁচপোটরা গ্রামের শ্যামল বিশ্বাসের বাড়িতে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। ১৮ এপ্রিল বিকেলে স্থানীয় লোকজন টের পেয়ে তাকে ওই বাড়ি থেকে উদ্ধার করে। কিন্তু ওই সময় পারভেজ পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এব্যাপারে ওই তরুণী বাদী হয়ে গত ১৯ এপ্রিল বালিয়াকান্দি থানায় মামলা দায়ের করেন।
বালিয়াকান্দি থানার এসআই জাকির হোসেন জানান, মামলা দায়েরের পরপর ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে শ্যামল বিশ্বাসের স্ত্রী গীতা বিশ্বাসকে গ্রেফতার ও তরুণীকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে মেডিকেল পরীক্ষা করানো হয়। কিন্তু পলাতক থাকায় গ্রেফতার করা যায়নি মূল আসামী পারভেজকে। রোববার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে সে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। তাকে রাজবাড়ীর আদালতে চালান করা হয়েছে।