Dhaka 1:12 am, Friday, 9 December 2022

পাংশায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে এক সন্তানের জননী

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 07:45:06 pm, Tuesday, 13 June 2017
  • / 1519 জন সংবাদটি পড়েছেন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিয়ের দাবিতে স্বামী সন্তান ফেলে প্রেমিক রাসেলের বাড়িতে অনশন শুরু করেছেন আঁখি খাতুন (২২)। এরপর থেকেই পলাতক প্রেমিক রাসেল। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মৌরাট ইউনিয়নের ধুলিয়াট গ্রামে। রাসেল একই গ্রামের ইসমাইল মিয়ার ছেলে। আঁখি পাংশা পৌর এলাকার আছির উদ্দিন শেখের মেয়ে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। উৎসুক লোকজন অনশনরত প্রেমিকাকেব দেখতে ভীড় জমিয়েছে রাসেলের বাড়িতে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, স্কুলে লেখাপড়ার সময় রাসেল ও আঁখির মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি আঁখির পরিবারের লোকেরা জানতে পেরে তাকে অন্যত্র বিয়ে দিয়ে দেয়। কিন্তু বিয়ের পরেও তারা দুজনে সম্পর্ক চালিয়ে যেতে থাকে। মঙ্গলবার হঠাৎ করেই বিয়ের দাবি নিয়ে রাসেলের বাড়িতে গিয়ে ওঠে আঁখি। আঁখির অবস্থান টের পেয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় রাসেল।
আঁিখ খাতুন জানান, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে রাসেল কার সঙ্গে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করেছে। সর্বশেষে গত সপ্তাহে আমাকে বিয়ে করবে বলে ঢাকায় নিয়ে এক সপ্তাহ তার সঙ্গে রেখেছিল। এখন স্বামী সন্তান ফেলে বিয়ের জন্য রাসেলের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন। বিয়ে না হওয়া পর্যন্ত এখান থেকে যাবেন না।
রাসেলের মা শাহনাজ বেগম জানান, তার ছেলে যদি এ ধরণের ঘটনা ঘটিয়ে থাকে তাহলে বিয়ের ব্যবস্থা করা হবে। রাসেলের খালা খাদিজা জানান, রাসেল বাড়িতে নেই। এখনই বলা যাচ্ছে না কী হবে।
রাসেলের মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।
এব্যাপারে মৌরাট ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান প্রামানিক বলেন, বিষয়টি তার জানা নেই। তবে তিনি খোঁজ খবর নিচ্ছেন।
পাংশা থানার ওসি মোফাজ্জেল হোসেন জানান, এ ব্যাপারে থানায় কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

পাংশায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে এক সন্তানের জননী

প্রকাশের সময় : 07:45:06 pm, Tuesday, 13 June 2017

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিয়ের দাবিতে স্বামী সন্তান ফেলে প্রেমিক রাসেলের বাড়িতে অনশন শুরু করেছেন আঁখি খাতুন (২২)। এরপর থেকেই পলাতক প্রেমিক রাসেল। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মৌরাট ইউনিয়নের ধুলিয়াট গ্রামে। রাসেল একই গ্রামের ইসমাইল মিয়ার ছেলে। আঁখি পাংশা পৌর এলাকার আছির উদ্দিন শেখের মেয়ে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। উৎসুক লোকজন অনশনরত প্রেমিকাকেব দেখতে ভীড় জমিয়েছে রাসেলের বাড়িতে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, স্কুলে লেখাপড়ার সময় রাসেল ও আঁখির মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি আঁখির পরিবারের লোকেরা জানতে পেরে তাকে অন্যত্র বিয়ে দিয়ে দেয়। কিন্তু বিয়ের পরেও তারা দুজনে সম্পর্ক চালিয়ে যেতে থাকে। মঙ্গলবার হঠাৎ করেই বিয়ের দাবি নিয়ে রাসেলের বাড়িতে গিয়ে ওঠে আঁখি। আঁখির অবস্থান টের পেয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় রাসেল।
আঁিখ খাতুন জানান, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে রাসেল কার সঙ্গে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করেছে। সর্বশেষে গত সপ্তাহে আমাকে বিয়ে করবে বলে ঢাকায় নিয়ে এক সপ্তাহ তার সঙ্গে রেখেছিল। এখন স্বামী সন্তান ফেলে বিয়ের জন্য রাসেলের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন। বিয়ে না হওয়া পর্যন্ত এখান থেকে যাবেন না।
রাসেলের মা শাহনাজ বেগম জানান, তার ছেলে যদি এ ধরণের ঘটনা ঘটিয়ে থাকে তাহলে বিয়ের ব্যবস্থা করা হবে। রাসেলের খালা খাদিজা জানান, রাসেল বাড়িতে নেই। এখনই বলা যাচ্ছে না কী হবে।
রাসেলের মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।
এব্যাপারে মৌরাট ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান প্রামানিক বলেন, বিষয়টি তার জানা নেই। তবে তিনি খোঁজ খবর নিচ্ছেন।
পাংশা থানার ওসি মোফাজ্জেল হোসেন জানান, এ ব্যাপারে থানায় কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।