Dhaka 2:11 am, Friday, 9 December 2022

দেশের সর্ববৃহৎ দেয়াল পত্রিকার প্রদর্শনী রাজবাড়ীতে

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : 05:46:13 pm, Thursday, 23 February 2017
  • / 1465 জন সংবাদটি পড়েছেন

সৌমিত্র শীল চন্দন ॥ দেয়াল পত্রিকার ইতিহাস বেশ পুরনো। ভাবের আদান প্রদান, শিল্প ভাবনা বিনিময়, বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চা ও মনোবিকাশের মাধ্যম মনে করা হয়ে থাকে দেয়াল পত্রিকাকে। কোথাও কোথাও এখনও স্বল্প পরিসরে আয়োজন করা হয়ে থাকে দেয়াল পত্রিকার। কিন্তু বৃহৎ পরিসরে দেয়াল পত্রিকার প্রদর্শনী খুব একটা চোখে পড়েনা। রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন এবার আয়োজন করেছে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ দেয়াল পত্রিকা প্রদর্শনীর।  একুশের বই মেলা উপলক্ষে আয়োজিত এ প্রদর্শনীতে সাতশরও বেশি দেয়াল পত্রিকা রয়েছে। যেখানে অংশ নিয়েছে জেলার প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ের বিভিন্ন দপ্তর ও সংগঠন। চার দিন ব্যাপী এ প্রদর্শনী চলছে রাজবাড়ী শহীদ খুশী রেলওয়ে ময়দানে।
রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, একুশের বই মেলা উপলক্ষে দেয়াল পত্রিকার এ প্রদর্শনীতে ক বিভাগে প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, খ বিভাগে মাধ্যমিক পর্যায়ের ও গ বিভাগে কলেজ পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং ঘ বিভাগে বিভিন্ন দপ্তর ও সংগঠনকে রাখা হয়েছে। এ প্রদর্শনীর সেরা কয়েকটি দেয়াল পত্রিকাকে পুরষ্কৃত করা হবে। এ প্রদর্শনী এখন প্রতিযোগিতায় রূপ নিয়েছে। এর মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম একটি সঠিক দিক নির্দেশনা পাবে।
শহীদ খুশী রেলওয়ে ময়দানে একুশের বই মেলার মঞ্চের ঠিক সামনে পাঁচটি সারিতে সাজানো হয়েছে দেয়াল পত্রিকা গুলো। এসব দেয়াল পত্রিকায় ফুল, পাখি, প্রাকৃতিক দৃশ্য, মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশ, বঙ্গবন্ধুসহ বিখ্যাত  ব্যক্তিদের ছবি। কচি হাতের লেখা নানান স্বাদের গল্প , কবিতা, প্রবন্ধ ইত্যাদি। রাজবাড়ী জেলার  ইতিহাস ঐতিহ্যও তুলে ধরা হয়েছে সেখানে। পত্রিকার নামগুলোও নান্দনিক। যেমন উদয়ন, একুশের চেতনা, শ্রদ্ধা, সোনালী সকাল, আমার বাংলা ইত্যাদি। আজ বৃহস্পতিবার শেষ হবে এ প্রদর্শনীর।
রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মনোয়ার হোসেন মোল্লা বলেন, এটি  বাংলাদেশের তো বটেই বিশে^র সবচেয়ে বড় দেয়াল পত্রিকা প্রদর্শনী। আমরা ইন্টারনেট ঘেঁটে দেখেছি দেয়াল পত্রিকার এতো বড় প্রদর্শনী পৃথিবীর কোথাও হয়নি। তিনি বলেন, সাতশরও বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এখানে অংশ নিয়েছে। জেলা প্রশাসনের উদ্দেশ্য ছিল শিক্ষার্থীদের মধ্যে যেন সৃজনশীল চিন্তা ভাবনার বিকাশ ঘটে। তাদের মধ্যে সৃজনশীল চিন্তার বিকাশ ঘটানোর জন্যই আমাদের এ আয়োজন। বিভিন্ন দেয়াল পত্রিকায় বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, সাহিত্য, নৈতিক শিক্ষার উপরও বেশ কিছু লেখা রয়েছে। এটা ছাত্রÑছাত্রীরা পড়লে তাদের চিন্তার বিকাশ ঘটবে। তাদের মননের উন্নতি হবে। আগামি বছর আরও বৃহৎ পরিসরে এ আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

দেশের সর্ববৃহৎ দেয়াল পত্রিকার প্রদর্শনী রাজবাড়ীতে

প্রকাশের সময় : 05:46:13 pm, Thursday, 23 February 2017

সৌমিত্র শীল চন্দন ॥ দেয়াল পত্রিকার ইতিহাস বেশ পুরনো। ভাবের আদান প্রদান, শিল্প ভাবনা বিনিময়, বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চা ও মনোবিকাশের মাধ্যম মনে করা হয়ে থাকে দেয়াল পত্রিকাকে। কোথাও কোথাও এখনও স্বল্প পরিসরে আয়োজন করা হয়ে থাকে দেয়াল পত্রিকার। কিন্তু বৃহৎ পরিসরে দেয়াল পত্রিকার প্রদর্শনী খুব একটা চোখে পড়েনা। রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন এবার আয়োজন করেছে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ দেয়াল পত্রিকা প্রদর্শনীর।  একুশের বই মেলা উপলক্ষে আয়োজিত এ প্রদর্শনীতে সাতশরও বেশি দেয়াল পত্রিকা রয়েছে। যেখানে অংশ নিয়েছে জেলার প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ের বিভিন্ন দপ্তর ও সংগঠন। চার দিন ব্যাপী এ প্রদর্শনী চলছে রাজবাড়ী শহীদ খুশী রেলওয়ে ময়দানে।
রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, একুশের বই মেলা উপলক্ষে দেয়াল পত্রিকার এ প্রদর্শনীতে ক বিভাগে প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, খ বিভাগে মাধ্যমিক পর্যায়ের ও গ বিভাগে কলেজ পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং ঘ বিভাগে বিভিন্ন দপ্তর ও সংগঠনকে রাখা হয়েছে। এ প্রদর্শনীর সেরা কয়েকটি দেয়াল পত্রিকাকে পুরষ্কৃত করা হবে। এ প্রদর্শনী এখন প্রতিযোগিতায় রূপ নিয়েছে। এর মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম একটি সঠিক দিক নির্দেশনা পাবে।
শহীদ খুশী রেলওয়ে ময়দানে একুশের বই মেলার মঞ্চের ঠিক সামনে পাঁচটি সারিতে সাজানো হয়েছে দেয়াল পত্রিকা গুলো। এসব দেয়াল পত্রিকায় ফুল, পাখি, প্রাকৃতিক দৃশ্য, মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশ, বঙ্গবন্ধুসহ বিখ্যাত  ব্যক্তিদের ছবি। কচি হাতের লেখা নানান স্বাদের গল্প , কবিতা, প্রবন্ধ ইত্যাদি। রাজবাড়ী জেলার  ইতিহাস ঐতিহ্যও তুলে ধরা হয়েছে সেখানে। পত্রিকার নামগুলোও নান্দনিক। যেমন উদয়ন, একুশের চেতনা, শ্রদ্ধা, সোনালী সকাল, আমার বাংলা ইত্যাদি। আজ বৃহস্পতিবার শেষ হবে এ প্রদর্শনীর।
রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মনোয়ার হোসেন মোল্লা বলেন, এটি  বাংলাদেশের তো বটেই বিশে^র সবচেয়ে বড় দেয়াল পত্রিকা প্রদর্শনী। আমরা ইন্টারনেট ঘেঁটে দেখেছি দেয়াল পত্রিকার এতো বড় প্রদর্শনী পৃথিবীর কোথাও হয়নি। তিনি বলেন, সাতশরও বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এখানে অংশ নিয়েছে। জেলা প্রশাসনের উদ্দেশ্য ছিল শিক্ষার্থীদের মধ্যে যেন সৃজনশীল চিন্তা ভাবনার বিকাশ ঘটে। তাদের মধ্যে সৃজনশীল চিন্তার বিকাশ ঘটানোর জন্যই আমাদের এ আয়োজন। বিভিন্ন দেয়াল পত্রিকায় বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, সাহিত্য, নৈতিক শিক্ষার উপরও বেশ কিছু লেখা রয়েছে। এটা ছাত্রÑছাত্রীরা পড়লে তাদের চিন্তার বিকাশ ঘটবে। তাদের মননের উন্নতি হবে। আগামি বছর আরও বৃহৎ পরিসরে এ আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে।