Dhaka ০৬:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাটক্ষেতে নারীর ছিন্নভিন্ন মরদেহ

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময় : ০৬:৫০:৪২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪
  • / ১০৩৭ জন সংবাদটি পড়েছেন

 রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মদাপুর ইউনিয়নের শিবানন্দপুর মহাশ্মশানের পাশে একটি পাটক্ষেত থেকে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে এক নারীর পাঁচ টুকরা মরদেহ উদ্ধার করেছে কালুখালী থানার পুলিশ। মুখমন্ডল পুড়িয়ে দেওয়ায় তাকে চেনার কোনো উপায় নেই। রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার জিএম আবুল কালাম আজাদ পিপিএম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

কালুখালী থানার এসআই প্রদীপ কুমার সরকার জানান, সন্ধ্যার দিকে এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। মরদেহটি অর্ধগলিত। তার মাথা, পা, শরীর, পাঁজরসহ শরীরের অংশগুলো বিচ্ছিন্ন ছিল। পরনে কোনো বস্ত্র ছিলনা। অন্য কোথাও থেকে হত্যা করে মরদেহ এখানে ফেলে রেখে গেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। কতদিন আগে তাকে হত্যা করা হয়েছে তাও সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না। নিহতের মরদেহ  ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার জিএম আবুল কালাম আজাদ পিপিএম জানান, উদ্ধার নারীর মুখমন্ডল দাহ্য কোনো পদার্থ দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এজন্য তাকে চেনার কোনো উপায় নেই। শরীরের অংশগুলো ছড়ানো ছিটানো ছিল। কোনো জীবজন্তু শরীরের অংশগুলো মুভ করিয়েছে বলে মনে হয়েছে। সিআইডি, পিবিআই’র সদস্যরাও ঘটনাস্থলে গেছেন। কিন্তু মরদেহ পচে যাওয়ায় আঙুলের ছাপ নেওয়া সম্ভব হয়নি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। মামলা হয়েছে। আশা করি, খুব তাড়াতাড়িই রহস্য উদ্ঘাটন করা হবে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

পাটক্ষেতে নারীর ছিন্নভিন্ন মরদেহ

প্রকাশের সময় : ০৬:৫০:৪২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

 রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মদাপুর ইউনিয়নের শিবানন্দপুর মহাশ্মশানের পাশে একটি পাটক্ষেত থেকে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে এক নারীর পাঁচ টুকরা মরদেহ উদ্ধার করেছে কালুখালী থানার পুলিশ। মুখমন্ডল পুড়িয়ে দেওয়ায় তাকে চেনার কোনো উপায় নেই। রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার জিএম আবুল কালাম আজাদ পিপিএম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

কালুখালী থানার এসআই প্রদীপ কুমার সরকার জানান, সন্ধ্যার দিকে এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। মরদেহটি অর্ধগলিত। তার মাথা, পা, শরীর, পাঁজরসহ শরীরের অংশগুলো বিচ্ছিন্ন ছিল। পরনে কোনো বস্ত্র ছিলনা। অন্য কোথাও থেকে হত্যা করে মরদেহ এখানে ফেলে রেখে গেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। কতদিন আগে তাকে হত্যা করা হয়েছে তাও সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না। নিহতের মরদেহ  ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার জিএম আবুল কালাম আজাদ পিপিএম জানান, উদ্ধার নারীর মুখমন্ডল দাহ্য কোনো পদার্থ দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এজন্য তাকে চেনার কোনো উপায় নেই। শরীরের অংশগুলো ছড়ানো ছিটানো ছিল। কোনো জীবজন্তু শরীরের অংশগুলো মুভ করিয়েছে বলে মনে হয়েছে। সিআইডি, পিবিআই’র সদস্যরাও ঘটনাস্থলে গেছেন। কিন্তু মরদেহ পচে যাওয়ায় আঙুলের ছাপ নেওয়া সম্ভব হয়নি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। মামলা হয়েছে। আশা করি, খুব তাড়াতাড়িই রহস্য উদ্ঘাটন করা হবে।