Dhaka ০৩:৫৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কালুখালীতে কলাবাগানে তরুণীর বিবস্ত্র লাশ

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৮:২৮:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ মার্চ ২০২১
  • / ১৩০৬ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥  রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়ন এলাকার একটি কলাবাগান থেকে বুধবার সকালে নীলা বেগম ওরফে ঝর্ণা নামের এক তরুণীর বিবস্ত্র লাশ উদ্ধার করেছে কালুখালী থানার পুলিশ। সে পাশ্র্¦বর্তী বোয়ালিয়া ইউনিয়নের চরসিলোকা গ্রামের মোহাম্মদ আবু হোসেনের মেয়ে ও মাজবাড়ি ইউনিয়নের মোহনপুর গ্রামের অহিদুল ইসলামের স্ত্রী। কারা কেন তাকে হত্যা করেছে তা এখনও জানা যায়নি। তবে হত্যার আগে তাকে ধর্ষণ করা হতে পারে বলে ধারণা পুলিশের।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পাঁচ মাস আগে একই উপজেলার মোহনপুর গ্রামের অহিদুল ইসলামের সাথে বিয়ে হয় নীলার। কিন্তু সে বাবার বাড়িতেই থাকতো। মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেনি। বুধবার সকালে বাড়ি থেকে আনুমানিক তিনশ গজ দূরে একটি কলাবাগানে তার লাশ দেখতে পায় এলাকাবাসী।

কালুখালী থানার ওসি মাসুদুর রহমান জানান, এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে একটি কলাবাগান থেকে নীলা বেগমের বিবস্ত্র লাশ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে ধর্ষণের পর গলায় রশি পেঁচিয়ে শ^াসরোধে হত্যা করা হয়েছে। বিষয়টি ফরেনসিক রিপোর্টের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে। কারা কেন তাকে হত্যা করেছে তা এখনও জানা যায়নি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।  নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

কালুখালীতে কলাবাগানে তরুণীর বিবস্ত্র লাশ

প্রকাশের সময় : ০৮:২৮:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ মার্চ ২০২১

জনতার আদালত অনলাইন ॥  রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়ন এলাকার একটি কলাবাগান থেকে বুধবার সকালে নীলা বেগম ওরফে ঝর্ণা নামের এক তরুণীর বিবস্ত্র লাশ উদ্ধার করেছে কালুখালী থানার পুলিশ। সে পাশ্র্¦বর্তী বোয়ালিয়া ইউনিয়নের চরসিলোকা গ্রামের মোহাম্মদ আবু হোসেনের মেয়ে ও মাজবাড়ি ইউনিয়নের মোহনপুর গ্রামের অহিদুল ইসলামের স্ত্রী। কারা কেন তাকে হত্যা করেছে তা এখনও জানা যায়নি। তবে হত্যার আগে তাকে ধর্ষণ করা হতে পারে বলে ধারণা পুলিশের।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পাঁচ মাস আগে একই উপজেলার মোহনপুর গ্রামের অহিদুল ইসলামের সাথে বিয়ে হয় নীলার। কিন্তু সে বাবার বাড়িতেই থাকতো। মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেনি। বুধবার সকালে বাড়ি থেকে আনুমানিক তিনশ গজ দূরে একটি কলাবাগানে তার লাশ দেখতে পায় এলাকাবাসী।

কালুখালী থানার ওসি মাসুদুর রহমান জানান, এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে একটি কলাবাগান থেকে নীলা বেগমের বিবস্ত্র লাশ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে ধর্ষণের পর গলায় রশি পেঁচিয়ে শ^াসরোধে হত্যা করা হয়েছে। বিষয়টি ফরেনসিক রিপোর্টের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে। কারা কেন তাকে হত্যা করেছে তা এখনও জানা যায়নি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।  নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।