Dhaka ১০:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ফরিদপুরে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামসহ ৩ভুয়া পুলিশ গ্রেফতার,

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:১৬:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ মার্চ ২০২১
  • / ১২২৩ জন সংবাদটি পড়েছেন

রবিউল হাসান রাজিবঃ দীর্ঘ দিন যাবৎ পুলিশ পরিচয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা মহাসড়কসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ছিনতাই করে আসছিলেন শাকিল আহমেদ রুবেল নামে এক যুবক। তার টার্গেটে ছিলো শুধু নারী। তার শিকার এক ভুক্তভোগী নারী ভাঙ্গা থানায় অভিযোগ দায়ের করলে তাকে সহ ৩ জনকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে একজোড়া হ্যান্ডকাপ, একটি ওয়াকিটকি, পুলিশ লেখা কটি, ৫ ভরি ৩ আনা স্বর্ণ, এক জোড়া স্বর্ণের চুরি, ১৭টি মোবাইল ফোন, ৩ হাজার টাকা সহ একটি ভ্যানিটি ব্যাগ উদ্ধার করে পুলিশ এবং তাদের ব্যবহৃত দুটি মোটর সাইকেল জব্দ করে পুলিশ।

রবিবার (১৪ মার্চ) দুপুরে ফরিদপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) জামাল পাশা।

গ্রেফতারকৃত শাকিল আহমেদ রুবেল গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর থানার কবিরপুরের সিদ্দিক মিয়ার পুত্র। তার সাথে জড়িত অপর দুই গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি মাদারীপুর সদরের মোস্তফাপুর জয়রা এলাকার ধীরেন হালদারের পুত্র সঞ্জয় হালদার (৩০) ও মাউনসি মাতুব্বর বাড়ী এলাকার জিন্নাত এর পুত্র মোঃ রেজাউল শেখ (৪৫)।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, গত এক মাসে এই ব্যক্তি একইভাবে ৮টি ঘটনা ঘটিয়েছে বলে ধারণা করা গেছে। এই রুবেলের মূল টার্গেট ছিলো নারী। নারীদের পুলিশ পরিচয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ফাকা জায়গা নিয়ে স্বর্ণালংকারসহ টাকা পয়সা ছিনতাই করে নিতো। এই রুবেলের নামে তিনটি থানায় তিনটি ছিনতাই মামলা রয়েছে।

এ সময় তিনি বলেন, কোনো পুলিশ একা একা কটি পড়ে অভিযানে বা দায়িত্ব পালন করেন না। দায়িত্বরত থাকাকালে পুলিশ ইউনিফর্ম পড়া থাকে। যদি এরকম কেউ মুখোমুখি হয়, তাহলে তাকে ৯৯৯ এ কল দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

ঘটনার বিবরন দিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, গত ৩ মার্চ ভাঙ্গা উপজেলার মহেশ্বরদি চৌধুরীকান্দা গ্রামের ইসরাত জাহান নিলা নামে এক এনজিও কর্মী পুখুরিয়াগামী এক অটোতে পুখুরিয়া বাজারে যাচ্ছিলেন। এ সময় পথিমধ্যে অটো ড্রাইভারকে অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করে অটো থামিয়ে এই এনজিওকর্মীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার বাইকে চড়ে থানায় যেতে বলে। সে ভয়ে থানায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে তার বাইকে উঠে। তার বাইকের সামনে ও পেছনে পুলিশ লেখা স্টিকার ছিলো। পরে তাকে ফাকা স্থানে নিয়ে জীবনাশের হুমকি দিয়ে কাছে থাকা স্বর্ণালংকার ও টাকা পয়সা ছিনিয়ে নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় মামলা হলে পুলিশ পরিদর্শক বিকাশ মন্ডল এর নেতৃত্বে ভাঙ্গা থানার এসআই আজাদ, সার্জেন্ট রাজিব, এ এসআই রেজওয়ান, রাকেশ, পরিতোশ অভিযান চালিয়ে গত ১২ মার্চ দুপুরে ভাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির তথ্যমতে অপর দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

ফরিদপুরে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামসহ ৩ভুয়া পুলিশ গ্রেফতার,

প্রকাশের সময় : ০৭:১৬:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ মার্চ ২০২১

রবিউল হাসান রাজিবঃ দীর্ঘ দিন যাবৎ পুলিশ পরিচয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা মহাসড়কসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ছিনতাই করে আসছিলেন শাকিল আহমেদ রুবেল নামে এক যুবক। তার টার্গেটে ছিলো শুধু নারী। তার শিকার এক ভুক্তভোগী নারী ভাঙ্গা থানায় অভিযোগ দায়ের করলে তাকে সহ ৩ জনকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে একজোড়া হ্যান্ডকাপ, একটি ওয়াকিটকি, পুলিশ লেখা কটি, ৫ ভরি ৩ আনা স্বর্ণ, এক জোড়া স্বর্ণের চুরি, ১৭টি মোবাইল ফোন, ৩ হাজার টাকা সহ একটি ভ্যানিটি ব্যাগ উদ্ধার করে পুলিশ এবং তাদের ব্যবহৃত দুটি মোটর সাইকেল জব্দ করে পুলিশ।

রবিবার (১৪ মার্চ) দুপুরে ফরিদপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) জামাল পাশা।

গ্রেফতারকৃত শাকিল আহমেদ রুবেল গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর থানার কবিরপুরের সিদ্দিক মিয়ার পুত্র। তার সাথে জড়িত অপর দুই গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি মাদারীপুর সদরের মোস্তফাপুর জয়রা এলাকার ধীরেন হালদারের পুত্র সঞ্জয় হালদার (৩০) ও মাউনসি মাতুব্বর বাড়ী এলাকার জিন্নাত এর পুত্র মোঃ রেজাউল শেখ (৪৫)।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, গত এক মাসে এই ব্যক্তি একইভাবে ৮টি ঘটনা ঘটিয়েছে বলে ধারণা করা গেছে। এই রুবেলের মূল টার্গেট ছিলো নারী। নারীদের পুলিশ পরিচয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ফাকা জায়গা নিয়ে স্বর্ণালংকারসহ টাকা পয়সা ছিনতাই করে নিতো। এই রুবেলের নামে তিনটি থানায় তিনটি ছিনতাই মামলা রয়েছে।

এ সময় তিনি বলেন, কোনো পুলিশ একা একা কটি পড়ে অভিযানে বা দায়িত্ব পালন করেন না। দায়িত্বরত থাকাকালে পুলিশ ইউনিফর্ম পড়া থাকে। যদি এরকম কেউ মুখোমুখি হয়, তাহলে তাকে ৯৯৯ এ কল দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

ঘটনার বিবরন দিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, গত ৩ মার্চ ভাঙ্গা উপজেলার মহেশ্বরদি চৌধুরীকান্দা গ্রামের ইসরাত জাহান নিলা নামে এক এনজিও কর্মী পুখুরিয়াগামী এক অটোতে পুখুরিয়া বাজারে যাচ্ছিলেন। এ সময় পথিমধ্যে অটো ড্রাইভারকে অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করে অটো থামিয়ে এই এনজিওকর্মীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার বাইকে চড়ে থানায় যেতে বলে। সে ভয়ে থানায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে তার বাইকে উঠে। তার বাইকের সামনে ও পেছনে পুলিশ লেখা স্টিকার ছিলো। পরে তাকে ফাকা স্থানে নিয়ে জীবনাশের হুমকি দিয়ে কাছে থাকা স্বর্ণালংকার ও টাকা পয়সা ছিনিয়ে নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় মামলা হলে পুলিশ পরিদর্শক বিকাশ মন্ডল এর নেতৃত্বে ভাঙ্গা থানার এসআই আজাদ, সার্জেন্ট রাজিব, এ এসআই রেজওয়ান, রাকেশ, পরিতোশ অভিযান চালিয়ে গত ১২ মার্চ দুপুরে ভাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির তথ্যমতে অপর দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।