Dhaka ০৫:৩৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অন্ধ বাউলের বাড়িতে গানের আসরে মাতোয়ারা দর্শক

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:২৪:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১
  • / ১৩০৮ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের সাহেবপাড়া গ্রামে অন্ধ বাউল শুকুর আলীর বাড়িতে শনিবার রাতে গানের আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে। অন্ধ শুকুর বাউল ছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা বাউল শিল্পীরা গান পরিবেশন করেন। গান শুনে মাতোয়ারা হয়েছেন দর্শক শ্রোতারা। প্রতিবছর মাঘী পূর্ণিমা তিথিতে গরীবে নেওয়াজ খাজা মাঈনুদ্দিন চিশতি হাচান আল আজমিরি (রঃ) স্মরণে তার বাড়িতে গানের আসর আয়োজন করেন।

এর আগে এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন বাউল সংগঠনের সভাপতি ও ইউপি সদস্য আইয়ুব আলী, আওয়ামীলীগ নেতা বাদশা আলমগীর, বালিয়াকান্দি উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি সনজিৎ কুমার দাস ও শুকুর বাউল।

জানা গেছে, শুকুর আলী শিশুকালে টাইফয়েড জ¦রে আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা করাতে না পারায় অন্ধ হয়ে যান। যেকারণে তিনি পড়াশোনাও করতে পারেননি। অন্ধ হলেও ছোটকাল থেকেই গানের প্রতি ছিল তার প্রচন্ড ঝোঁক। রেডিও, ক্যাসেটে গান বাজলেই মনযোগ দিয়ে শুনতেন। নিজে নিজেই গাইতেন। ১০ বছর বয়সে তার পরিচয় হয় ওস্তাদ নওশের আলী ফকীরের সাথে। গানের প্রতি মমত্ববোধ দেখে শুকুর আলীকে নিজের গানের দলে নেন ওস্তাদ নওশের আলী। সেই থেকে তার বাউল শিল্পী হয়ে ওঠা। লালনগীতি, শরীয়তি, মারফতি, বিচারগানসহ নানান ধরণের গান করেন শুকুর আলী। দেশের বিভিন্ন জেলায় তিনি গান গেয়ে বেড়ান। পরিচিত হন ‘অন্ধ শুকুর বউল’ নামে। গানই এখন তার জীবন জীবীকা। ২০১৪ সালে বাউল শান্তি সংগঠন নামে নিজ বাড়িতে কার্যক্রম শুরু করেন।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

অন্ধ বাউলের বাড়িতে গানের আসরে মাতোয়ারা দর্শক

প্রকাশের সময় : ০৭:২৪:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১

জনতার আদালত অনলাইন ॥ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের সাহেবপাড়া গ্রামে অন্ধ বাউল শুকুর আলীর বাড়িতে শনিবার রাতে গানের আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে। অন্ধ শুকুর বাউল ছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা বাউল শিল্পীরা গান পরিবেশন করেন। গান শুনে মাতোয়ারা হয়েছেন দর্শক শ্রোতারা। প্রতিবছর মাঘী পূর্ণিমা তিথিতে গরীবে নেওয়াজ খাজা মাঈনুদ্দিন চিশতি হাচান আল আজমিরি (রঃ) স্মরণে তার বাড়িতে গানের আসর আয়োজন করেন।

এর আগে এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন বাউল সংগঠনের সভাপতি ও ইউপি সদস্য আইয়ুব আলী, আওয়ামীলীগ নেতা বাদশা আলমগীর, বালিয়াকান্দি উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি সনজিৎ কুমার দাস ও শুকুর বাউল।

জানা গেছে, শুকুর আলী শিশুকালে টাইফয়েড জ¦রে আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা করাতে না পারায় অন্ধ হয়ে যান। যেকারণে তিনি পড়াশোনাও করতে পারেননি। অন্ধ হলেও ছোটকাল থেকেই গানের প্রতি ছিল তার প্রচন্ড ঝোঁক। রেডিও, ক্যাসেটে গান বাজলেই মনযোগ দিয়ে শুনতেন। নিজে নিজেই গাইতেন। ১০ বছর বয়সে তার পরিচয় হয় ওস্তাদ নওশের আলী ফকীরের সাথে। গানের প্রতি মমত্ববোধ দেখে শুকুর আলীকে নিজের গানের দলে নেন ওস্তাদ নওশের আলী। সেই থেকে তার বাউল শিল্পী হয়ে ওঠা। লালনগীতি, শরীয়তি, মারফতি, বিচারগানসহ নানান ধরণের গান করেন শুকুর আলী। দেশের বিভিন্ন জেলায় তিনি গান গেয়ে বেড়ান। পরিচিত হন ‘অন্ধ শুকুর বউল’ নামে। গানই এখন তার জীবন জীবীকা। ২০১৪ সালে বাউল শান্তি সংগঠন নামে নিজ বাড়িতে কার্যক্রম শুরু করেন।