Dhaka ০৫:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজবাড়ীতে শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যা মামলায় ১ জনের মৃত্যুদন্ড, ৩ জনের যাবজ্জীবন

সংবাদদাতা-
  • প্রকাশের সময় : ০৭:২২:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ জানুয়ারী ২০২১
  • / ১৩৪৮ জন সংবাদটি পড়েছেন

জনতার আদালত অনলাইন ॥রাজবাড়ীতে আট বছরের শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় একজনের মৃত্যুদন্ড ও তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে রাজবাড়ীর নারী শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক শারমীন নিগার এ রায় ঘোষণা করেন। ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামির নাম আবু সাইদ। সে পাংশার কুটি মালিয়াট গ্রামের বশারত হোসেনের ছেলে। ঘটনার পর থেকেই সে পলাতক। যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্ত তিন আসামি হলো আলাল, রনি ও মহির খা। এদের সবার বাড়ি একই গ্রামে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালের ২৫ মে তারিখে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার কুটি মালিয়াট গ্রামে আট বছরের শিশু রুমা আম কুড়াতে গেলে আবু সাইদসহ অপর আসামিরা তাকে ধর্ষণের নির্মমভাবে হত্যা করে। এরপর শিশুটির লাশ মাটি চাপা দিয়ে রাখে। এর তিন দিন পর ২৮ মে তারিখে একটি কুকুর লাশটি টেনে বের করে। এ ঘটনায় ওইদিনই শিশুটির বাবা বাদী হয়ে পাংশা থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা এক নারীসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন।

দীর্ঘ সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আদালতের বিচারক প্রধান আসামি সাইদকে মৃত্যুদন্ড, আলাল, রনি ও মহির খাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড, প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদন্ডের রায় প্রদান করেন। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার প্রমাণ না মেলায় অপর দুই আসামি শুকুর মোল্লা ও রোজিনাকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।

Tag :

সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন-

রাজবাড়ীতে শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যা মামলায় ১ জনের মৃত্যুদন্ড, ৩ জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশের সময় : ০৭:২২:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ জানুয়ারী ২০২১

জনতার আদালত অনলাইন ॥রাজবাড়ীতে আট বছরের শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় একজনের মৃত্যুদন্ড ও তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে রাজবাড়ীর নারী শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক শারমীন নিগার এ রায় ঘোষণা করেন। ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামির নাম আবু সাইদ। সে পাংশার কুটি মালিয়াট গ্রামের বশারত হোসেনের ছেলে। ঘটনার পর থেকেই সে পলাতক। যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্ত তিন আসামি হলো আলাল, রনি ও মহির খা। এদের সবার বাড়ি একই গ্রামে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালের ২৫ মে তারিখে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার কুটি মালিয়াট গ্রামে আট বছরের শিশু রুমা আম কুড়াতে গেলে আবু সাইদসহ অপর আসামিরা তাকে ধর্ষণের নির্মমভাবে হত্যা করে। এরপর শিশুটির লাশ মাটি চাপা দিয়ে রাখে। এর তিন দিন পর ২৮ মে তারিখে একটি কুকুর লাশটি টেনে বের করে। এ ঘটনায় ওইদিনই শিশুটির বাবা বাদী হয়ে পাংশা থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা এক নারীসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন।

দীর্ঘ সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আদালতের বিচারক প্রধান আসামি সাইদকে মৃত্যুদন্ড, আলাল, রনি ও মহির খাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড, প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদন্ডের রায় প্রদান করেন। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার প্রমাণ না মেলায় অপর দুই আসামি শুকুর মোল্লা ও রোজিনাকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।